উত্তর

২০ অক্টোবর ২০১৬

প্রজ্ঞা,কুমিল্লা
প্রশ্ন: ১। আমরা যখন কয়েল জ্বালাই তখন আগুনটা নিভে যাওয়ার আগে সেটা দেখলে মনে হয় সেটা কয়েলে জ্বলছে না,কয়েল থেকে একটু ওপরে বাতাসে জ্বলছে। এটা কেন হয়?
উত্তর: তোমার প্রশ্নটা ঠিক করে উত্তর দিতে হলে আমাকে বাজার থেকে একটা মশার কয়েল কিনে এনে পরীক্ষা করে দেখতে হবে। যতক্ষণ ঠিক ভাবে উত্তর দিতে না পারছি, একটা সম্ভাব্য উত্তর দেয়ার চেষ্টা করি। জ্বলন্ত কয়েলের তাপের কারনে কাছাকাছি বাতাস হাল্কা হয়ে তার প্রতিসারাংক কমে যাচ্ছে, তাই আলোটা যেখানে দেখার কথা সেখানে না দেখে একটু উপরে দেখা যাচ্ছে। কিন্তু এই উত্তরটা এখনই মেনে নিতে হবে না, আমরা আগে পরীক্ষা করে দেখব।

প্রশ্ন: আচ্ছা স্যার আমার বাবা মা বড় বোন কে কিভবে বুঝাবো আমি দূর্ণতি করে ভালো রেজাল্ট করার চেয়ে এ+ না পাওয়া ভালো।সবাইকে ডাক্তার কেনো হতে হবে বংলা নিয়ে পড়লে ক্ষতিটা কি???
উত্তর: আমি মনে খুবই কষ্ট পেলাম যে, এই বিষয়টা তোমার বড়দের বোঝাতে হচ্ছে। হওয়ার কথা ছিল ঠিক উলটো। তোমার বাবা মা বড় বোনদের তোমাদের সৎ হতে শেখানোর কথা ছিল। না, সবাইকে ডাক্তার হতে হবে না, বাংলায় পড়ে খুব চমৎকার একটা জীবন উপভোগ করছে এরকম অনেক মানুষকে আমি চিনি। আবার ডাক্তার হয়ে এখন কপাল চাপড়াচ্ছে এরকম অনেক মানুষকেও আমি চিনি।

অনন্য যারিফ আকন্দ বয়স- ৮ বছর কানিজ ফাতেমা গার্লস্ স্কুল এন্ড কলেজ মানিকগঞ্জ।
প্রশ্ন: ১। ইলেক্ট্রিক বাল্বে আলো তৈরি হয় কীভাবে? ২। মহাবিশ্বের কি কোনো সীমা আছে? তার আকৃতিই বা কেমন? ৩। আমরা যদি আমাদের সৌরজগৎ পার হয়ে কোনো এক দিকে যেতেই থাকি, যেতেই থাকি, যেতেই থাকি… তখন কী হবে? আমরা কি পূর্বের অবস্থায় ফিরে আসতে পারবো? ৪। দূর মহাকাশে দিক চেনার কি কোনো উপায় আছে? ৫। মাইক্রোকন্ট্রোলারের কাজ কী?
উত্তর: (১) ভেতরের তারটা গরম হয়ে আলো দিতে থাকে। (২) মহাবিশ্বের সীমা আছে কী না সে বিষয়ে বিজ্ঞানীরা এখনো নিশ্চিত হতে পারেননি। (৩) মহাবিশ্ব যদি সীমিত হয় তাহলে ঘুরে কোনো একদিন আগের জায়গায় ফিরে আসবে। (৪)কিছু কিছু পরিচিত নক্ষত্র মণ্ডলী কিংবা গ্যালাক্সীকে রেফারেন্স ধরে দিক বের করার চেষ্টা করা যায়। (৫) মাইক্রোকন্ট্রোলারকে প্রোগ্রামিং করে ইলেক্ট্রনিক কাজকর্ম করানো যায়। (তোমার বয়স আট এখনি এই প্রশ্ন, তুমি বড় হলে আমার অবস্থা কী হবে?

Riti,Hsc 2nd year,Dhaka
প্রশ্ন: accha amra jokhn torch diye akash er dike alo nikkhep kori tokhn alotake r dekhte paina(jemon deyal er gaye lao felle alota gol hoye deyal a dekh jay).karon oikhane alo badha payna.kintu jokhn onek boro boro charch light diye akash e alo nikkhep kori tokhon alota ke gol hoye akash e dekha jay.tokhon alota kothay badha pay?r amra kivabe dekhte pai??
উত্তর: কোনো কিছু দেখতে হলে সেখান থেকে আলো আমাদের চোখে আসতে হয়। কাজেই খুব তীব্র আলো যদি আকাশের দিকে পাঠানো হয় আর আকাশে যদি হালকা মেঘ থাকে, তাহলে সেখানে আঘাত করে বিচ্ছুরিত হয় আমরা সেটা দেখতে পাই। টর্চ লাইটের আলো যদি অনেক তীব্র হতো সেটাও আমরা দেখতে পেতাম।

সীজার, আমতলী,বরগুনা
প্রশ্ন: রাতের আকাশে তাকালে তারা দেখতে পাওয়া যায়। কিন্তুু এদের আলোর কেমন যেন একটা কাপুনি দেখা যায়!! এটা কেন??

images
উত্তর: আমাদের পৃথিবীর বায়ুমন্ডলের জন্যে। বায়ুমন্ডলের ভেতর নানা রকম ঘনত্ব তাই যাত্রা পথে তারার আলো কখনো ডানে কখনো বামে সরে যায় আর আমাদের মনে হয় একটা কাঁপুনি হচ্ছে, কিংবা মিট মিট করছে। মহাকাশে গিয়ে তারার দিকে তাকালে দেখবে সেটা স্থির হয়ে আছে।

প্রশ্ন: Sir, My name is Ananya and I am from Rajshahi. Golden Five story was really good. In many student’s life, we can see the same situation. Even I am a student (inter-2nd year), my mother also thinks same Irine’s mother. She can’t understand the importance of learning. She wants me to become a doctor but I don’t want to be a doctor. If I get less marks in exam, she gives me examples of other students that they have got more marks than me but some of them -don’t write all the answers on their own. But, when I tell her, she doesn’t believe me. I like to read various story books other than text books. But she doesn’t let me buy story books . I really get upset with that. No matter what happens, I will not stop reading story books.
উত্তর: আমি জানি না আমি তোমাকে কী উত্তর দেব। যেটা বলতে চেয়েছিলাম সেটাতো আমার গল্পটাতেই বলেছি। আমার মনে হয় যাই হবে হোক তুমি তবু গল্প বই পড়বে, এটি সঠিক সিদ্ধান্ত। কারন আমার কাছে এটা শোনায় এরকম: “আমাকে সবাই যদি বলে দিনের পর দিন না খেয়ে থাকতে হবে, আমি সেই কথা শুনব না। আমি বেঁচে থাকতে চাই, আমি খাবই খাব।“

প্রশ্ন: Amar nam farha.amar boyos24 bosor.ami zoology ta hons complet koraci.apnar likha ports amar khub valo laga.apnar boi porla onak kichu korata ichca kora.amar khub ichca Ami Bcs exam debo.kintu amar parents r amaka porasuna korata chay na.Ami Maya bola taratari biya dita chat.ami trader onek bujheyace but kono lav hoyni.Tara amar porasunar khoroch detao chay na.ulto amaka emotional blackmail kora.Ami akhon ki korbo? From rajshahi
উত্তর: দাঁতে দাঁত চেপে তুমি তোমার বাবা মা’কে বল যে তুমি পড়াশোনা করবে, বি সি এস দেবে, এখন বিয়ে করবে না। যদি তোমার পড়ার খরচ না দেয় টিউশা্নি করতে শুরু কর, কিন্তু পড়াশোনা বন্ধ করো না। আমি আমার বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ছাত্রীদের বলি, লেখাড়া শেষ করে চাকরি শুরু না করা পর্যন্ত কোনো বিয়ে নয়।

মামুন, যশোর
প্রশ্ন: স্যার, ডিম তো খেতে সুস্বাদু, আমার খুব প্রিয়৷ কিন্তু কখনো প্রশ্ন জাগে, একটু তা দিলেই বা ওম দিলেই তাতে ছানার জন্ম হয় কিভাবে? এটা কি পুরাই প্রাকৃতিক, নাকি এর পেছনে কোনো “বিশেষ শক্তি” ক্রিয়াশীল

egg-and-chick
উত্তর: তুমি খুব সখ করে খাবে মুরগী মোটেও সে জন্যে ডিম দেয় না। মুরগী তার সন্তানের ভ্রূণের পুষ্টির সাপ্লাই হিসেবে ডিমটা দেয়। কাজেই সেটা না খেয়ে মোটামুটি ২২ দিন তা দিলে ডিমের পুষ্টিটা ব্যবহার করে ভেতরের ভ্রুণটা মোরগের ছানা হিসেবে বের হয়ে আসে।

আবু হুরাইরা৷ মিরপুর 6
প্রশ্ন: আমার জানতে ইচ্ছে করে, গাছের সব পাতা জোড়ায় জোড়ায় কেন হয়? একটা একটা করে কিংবা দুই আড়াই জোড়া করে গজালে কী হতো?!!
আরেকটি কথা, পাতার রঙ সবুজ, কিন্তু কেন? আবার সবুজের মধ্যেও রয়েছে তারতম্য, এর কারণটা কি আমাকে বলবেন, প্লিজ……………

leaves
উত্তর: আমি বোটানির মানুষ না, তাই উত্তরটা আমাকেও খুঁজতে হয়েছে। (আমাকে জিজ্ঞেস করার আগে তোমরা নিজেরাও খুঁজে দেখতে পার) আসলে গাছের পাতা বের হওয়ার কয়েকটা পদ্ধতি আছে তার একটা হছে তোমার জোড়ায় জোড়ায় বের হওয়া (একটার বিপরীতে আরেকটা)। অন্য ভাবেও বের হয়, ছবিতে দেখ।
গাছের পাতা সবুজ কারণ তার পাতায় যে ক্লোরোফিল আছে সেটার রঙ সবুজ। অন্য রংয়ের বেলায় বুঝতে হবে সেখানে অনয় কিছুও আছে।

rifathossain
প্রশ্ন: আমি বুঝতে পারছি না আপনার সাথে কীভাবে কথা বলা শুরু করব। আমি আপনার বই পড়তে খুব ভালোবাসি 25+ পড়েওছি। কিন্ত স্কুলের disgusting পড়া পড়তে একদম মন চায়না। teacher রাও uninteresting lesson পড়ায়।
উত্তর: পড়াশোনা খুব ইন্টারেস্টিং সেটা আমি এখনো শুনি নি। পড়তে হয় বলে সবাই পড়ে, তুমিও নাহয় পড়লে।

Ekanto Sylhet
প্রশ্ন: Sir ami apner kub vokto.apnake dekar kub ichcha.ar apnio Sylhet taken amio Sylhet.tobuo kunu din deka hoi nai.sir apner shate deka korar chesta korbo.ekta autograph diben kintu sir.
উত্তর: ঠিক আছে। দিব।

S M Ibnul Wasif, Bhurungamari, Kurigram
প্রশ্ন: Sir, অাপনার লেখা বই গুলোর মধ্যে আপনার প্রিয় বই কোন টি ।
উত্তর: এতোদিন থেকে এতো বই লিখেছি যে কী লিখেছি নিজেই ভুলে গেছি। তোমার প্রশ্নের উত্তর দিতে হলে সবগুলো বই আবার পড়তে হবে! তার কী সময় পাব?

আদৃতা রোম্মান, ঢাকা
প্রশ্ন: আমরা জানি আলোর বেগ ধ্রুবক। এখন আমাদের কাছে আলো ১ সেকেন্ডে ৩০০০০০ কিমি যায়। কিন্তু আলোর জন্য আমাদের এই এক সেকেন্ড ০ সেকেন্ড, আবার ওই ৩০০০০০ কিমি ০ কিমি। তাহলে আলোর কাছে তার নিজের বেগ হল ০/০। কিন্তু আলোর বেগ তার নিজের কাছেও c হবার কথা, তাই না স্যার??
উত্তর: তুমি আলোর বেগের যত কাছাকাছি ইচ্ছে যাও, সেই রেফারেন্স ফ্রেমে আলোর বেগ c । কিন্তু তুমি আলোর বেগ c তে কখনোই একটা রেফারেন্স ফ্রেম কল্পনা করতে পারবে না। সেটি বাস্তবে সম্ভব নয়।

সব্যসাচী জয়পুরহাট
প্রশ্ন: স্যার,আপনি ছোট থেকেই এত্ত ট্যালেন্ট কেন? …… কিভাবে এত্ত ট্যালেন্ট আপনি ও আপনার পরিবার?
উত্তর: আমার ট্যালেন্টের এই বিচিত্র গল্প তুমি কোথায় পেয়েছ আমি জানি না! বিশ্বাস কর আমি এবং আমার পরিবারের কারো মাঝে কোনো বাড়তি ট্যালেন্ট নেই! (হ্যাঁ একটু পাগলামী আছে, কিন্তূ সেটা কার নেই?)

সৈকত দাশ,১০ম শ্রেণি। বানিয়াখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়,ডুমুরিয়া,খুলনা।
প্রশ্ন: স্যার, x^x=5 হলে x=? x^x=4 হলে x=2 তা সহজেই বলতে পারি।কিন্তু অনেক চেষ্টার পর ও x^x=5 এ x এর মান বের করতে পারলাম না।এটা বের করার প্রসেসটা কি?নাকি এর কোন সমাধান নেই?
Marshal ashif Class ten Rajshahi
প্রশ্ন: X to the power x equals to 5. Then x = what?
উত্তর: দুজনেই হুবহুব একই প্রশ্ন পাঠিয়েছ! কাজেই দুজনের জন্যে একটা উত্তর। x^x = 5 হলে x = 2.129372483, আমি আমার ক্যলকুলেটরে মিনিট পাঁচেক টেপাটেপি করে বের করেছি। এটা নিউমেরিক্যালি বের করতে হবে। একটা উপায় হচ্ছে x^x -5 = 0 এই ইকুয়েশনের রুট বের করা। ধরে নাও y = x^x – 5 এবারে সম্ভাব্য উত্তরের কাছাকাছি একটা x এর মান নিয়ে y/(dy/dx) এর মান বের কর। এক্স এর যে মানটা ধরেছ সেটা থেকে y/(dy/dx) এর মানটা বিয়োগ দাও। যেটা পাবে (x`) সেটা হল x এর নুতন সম্ভাব্য মান। অর্থাৎ x` = x – y/(dy/dx) আবার এটা কর, অর্থাৎ নুতন মানটা বসিয়ে আরো নুতন মান বের কর। এভাবে চালিয়ে যাও, প্রত্যেকবার সঠিক উত্তরের কাছাকাছি যেতে থাকবে। এই পদ্ধতিটির নাম নিউটন র‍্যাফসন পদ্ধতি। এর জায়গায় অন্য যে কোনো ফাংশন ব্যবহার করে দেখতে পার।

অছিউর রহমান আদনান ছাতক,সুনামগঞ্জ ট্যাগ:মানিক বন্দোপধ্যায়,অতসী মামী।
প্রশ্ন: প্রথম লেখাতেই ফাটিয়ে দিতে হবে এমন কোন কথা আছে?
উত্তর: না সেরকম কোনো কথা নেই। কিন্তু যদি তোমার কাছে বোমা থাকে না চাইলেও সেট ফাটবে। মানিক বন্দোপধ্যায় তাঁর বন্ধুর সাথে বাজী ধরে সেটা ফাটিয়েছিলেন।

ইবু,ঢাকা দ্বাদশ শ্রেণী,ঢাকা কলেজ
প্রশ্ন: আমরা একটা কো অর্ডিনেট সিস্টেম এ একটা বিন্দু কে বুঝাতে (x,y)ব্যবহার করি।বাস্তব সংখ্যার ক্ষেত্রে ।এখন কথা হলো যখন জটিল সংখ্যার ব্যপার স্যাপার চলে আসে তখন আমরা (x+iy) ব্যবহার করি।আমার সবসময় মনে হয়েছে ,আচ্ছা এখানে y imaginary axis এ তাই এর আগে i আসছে।(i টা খুব সম্ভবত একটা operator,যা কিনা 90 degree rotate করে)।কিন্তু আমরা তো ব্যাপারটাকে এভাবেও লিখতে পারতাম (x,iy),+না দিয়ে , ব্যবহার করতে পারতাম।কিন্তু কেনো + ই ইউজ করি ।এটা কি কোনো কনভেনশনের ব্যাপার স্যাপার নাকি আসলেই কোনো কারণ আছে।
উত্তর: তোমার যুক্তি ঠিক আছে, তবে i কোনো অপেরটর না, i হচ্ছে (-1)^(1/2) । অনেক জায়গাতেই কমপ্লেক্স সংখ্যার জন্যে x + iy এর পরিবর্তে (x, y) দুটি মান নেয়া হয়।

প্রশ্ন: স্যার, এই সাইটে একটা গ্যালারি বা এধরনের কিছু করলে হয়না? সেখানে আপনার ছবি থাকবে আর আমাদের মত বিশ্বব্যাপী যারা আপনার সাথে ছবি তুলেছে সেগুলোও থাকবে!!!(অন্তত এতে বন্ধুদের সামনে বড়াই করতে পারব যে আমার তোলা ছবি স্যারের সাইটে আছে!)
উত্তর: সেটা ম্যানেজ করবে কে? (যদি বড়াই করাটাই আসল উদ্দেশ্য হয় তাহলে এই ভাবে কী বড়াই করা যায়: সবাইকে বল, আমি স্যারকে একটা প্রশ্ন করেছিলাম স্যার তার উত্তর দিতে গিয়ে একেবারে হিমশিম খেয়ে গেছেন!!)

প্রশ্ন: স্যার,আয়েশা ফয়েজের লেখা বই এর পিডিএফ লিংক চাই। যেই বইয়ে আপনি চার বছর বয়সে বেশি কথা না বলা নিয়ে বলেছিলেন “বেশি কথা বলে লাভ কি?”
উত্তর: আমার কাছে নেই, কিন্তু নেটে পেয়ে যাবে। একটা সার্চ দাও।

Sutapa,class10,khilgoan.
প্রশ্ন: Sir ekhon amader jonne mane boroder jonne kichu lekha jay? Naki eta Sudhu picchider?
উত্তর: তুমি বড় হয়েছ সেটা তুমি কোথায় শুনলে? তুমি এখনো যথেষ্ট পিচ্চি!

প্রশ্ন: আসসালামুয়ালাইকুম স্যার।।স্যার ফিজিক্স নিয়ে পড়তে আপনার মতে সবচেয়ে বেশি কোন জিনিসটা প্রয়োজন???
উত্তর: ওয়ালাইকুম সালাম। সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন ফিজিক্সের জন্যে ভালোবাসা।

প্রশ্ন: স্যার বাঙালি এত পাকিস্তানকে support করে কেন?একবার ধরা খায়েও কি শিক্ষা হইনি,বুঝেনা কেন কে দুঃসময়ের আর কে সুসময়ের বন্ধু তারা অনেক জানে হইত কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের স্রিতি কখনো fell করেনি কি?
উত্তর: কোথায়? আমার আশে পাশে কাউকে তো আমি পাকিস্তানকে সাপোর্ট করতে দেখি না। কেন করবে? কী আছে এই দেশটাতে? মারামারি কাটাকাটি ছাড়া আর কী আছে এই দেশটাতে?

Jannatul Mawya Kashfiya Mizan Model Academy, Gazipur
প্রশ্ন: Sir, Amader desher pry sob kobirai chosma pore. apnio poren.chosma porlei ki kobi bhouar onubhuti paua jay ba kobi howa jay.Apnar motamote chai

four-poetsউত্তর: চারজন বিখ্যাত বাঙালি কবি। রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, জীবনানন্দ, সুকান্ত। চশমা কোথায়?

হোসাইন, ঢাকা..
প্রশ্ন: প্রাস গতির ক্ষেত্রে বই-এ, বাতাসের বাধাকে উপেক্ষা করতে বলা হচ্ছে..কিন্তু, বাতাসের বাধা তো একটা বাস্তবতা, কাজেই, বাস্তবক্ষেত্রে বাতাসের বাধা বাদ দিয়ে হিসাব করলে হিসাব ভুল হওয়ার কথা!
উত্তর: শেখা আর ব্যবহার করা ভিন্ন ব্যাপার। শেখার সময় সহজ ভাবে শেখ, যখন ব্যবহার করবে তখন খুটি নাটি বিবেচনা করো।

Supty.Tangail.
প্রশ্ন: Sir,apni kemon asen?sir,amar pora-lekha korte aktu ow valo lage na.Amar Ma Baba r amk nie onek sopno….tader kotha tader sopner kotha chinta korle ami onk depressed hoye jai…..ami akjon traveler hote chy.prithibir sob jaigai jete chy…sob kisu dekhte chy….ami jani ata kokhono possible na…kintu ata amr sopno.
উত্তর: তোমার মা বাবার স্বপ্ন আর তোমার স্বপ্ন মোটেও সাংঘর্ষিক নয়! দুটোই সত্যি হতে সমস্যা কোথায়?

সমুদ্র
প্রশ্ন: স্যার,আমরা যারা মধ্যবৃত্ত পরিবারে বড় হয়েছি এবং টিকে থাকছি তারা সবাই হয়তো একমত হবে,এখানে ছোট থেকেই হাজারো প্রথা-নিয়ম কানুন-কুঃসংস্কারের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয় । পরবর্তি জীবনে আমরা এইসব কুঃসংস্কার বুঝতে পারলেও,অবচেতন মনে পাকাপুক্ত ভাবে গেঁথে যাওয়ার কারনে ওখান থেকে বেরিয়ে আসতে পারি না । মনের মধ্যে এক প্রকার খুতখুতানি(সংকোচ) লেগেই থাকে আর যেহেতু মধ্যবৃত্ত পরিবার,পাওয়া-না পাওয়া-হারানোর ভয়তো থাকেই ।এ থেকে কিভাবে বেরিয়ে আসা যায় ।
উত্তর: খুব কঠিন না, চেষ্টা করে দেখ বের হতে পারবে। বই পড়, চিন্তা করো, চারপাশের দুনিয়াটা দেখ, কোনো কিছু মেনে নেয়ার আগে নিজের মত করে বিশ্লেষণ কর। (আমার কথাটাও!)

Nisarg Saha. 8/A, Monipuripara,Tejgaon,Dhaka
প্রশ্ন: Apni Kishore Alo te Ki lekha bondho kore diechen? Pore aro proshno jiggesh korbo.apatoto…
উত্তর: আমি কিশোর আলোতে যা লিখতাম, এখানেও তাই লিখছি! কাজেই সমস্যা কোথায়?

Sabrina Hilali. Location: Rajshahi
প্রশ্ন: Sir , Ami Inter-2nd year e pori. Ami porasunar pasapasi prochur golper boi pora pochondho kori. Apnar Science fiction er prai sokol boi ami collect korechi,boigulo khub chomotkar. Amake kindly kotogulo English story book er suggestion dite parben ? Amar mone hoi amader banglar pasapasi English boi o pora uchit . Samne jehetu admission exam ache , English practice kora kharap hobe na.
উত্তর: হ্যারি পটারের বই দিয়ে শুরু কর। রোল্ড ডালও আমার খুব ফেভারিট।

মিথুন আগারগাও, ঢাকা।
প্রশ্ন: প্রিয় জাফর ইকবাল স্যার, আমি আপনার ভক্তসমুদ্রের ছোট্ট একটা ফোটা। আমি রীতিমত ত্রিশ বছরের মহিলা এবং ব্যাংকার (অত্যন্ত বিরক্তিকর জীবিকা)। আমি আপনার কিশোর সাহিত্যের অন্ধভক্ত। আগে পিচ্চি ছিলাম তাই বই পড়তে সময় লাগত। মন ভরে পরতে পার‍তাম। মনের বয়স না বাড়লেও বড় হয়ে যাবার কারনে এখন কিশোর উপন্যাস গুলো পড়তে সময় অনেক কম লাগে। সমস্যাটা সম্পূর্ণঈ আমার। তবুও আমার মত বুরো বাচ্চাদের কথা চিন্তা করে একটা অনেক অনেক অনেক মোটা কিশোর উপন্যাস লিখেন প্লিজ স্যার। অনেক সময় নিয়ে লিখেন, তবুও লিখেন স্যার প্লিজ। মন ভরে পর‍তে পারতাম।
উত্তর: একজন সত্যিকার লেখক হতে হলে লেখালেখি, পড়াশোনা আর প্রস্তুতিতে যেরকম সময় দেয়া দরকার, আমি সেটা দিতে পারি না। মাঝে মাঝে ইচ্ছা করে সব কিছু ছেড়ে শুধু লেখালেখিতে সময় দিই কিন্তু সেটা সম্ভব না, তাই শুধু জোড়া তালি দিয়ে একটা জীবন কাটিয়ে দিতে হচ্ছে। আমি নাদুস নুদুস বই খুব বেশি না লিখলেও পৃথিবীতে হাজার হাজার মোটা সোটা নাদুদ নুদুস বই আছে, সেগুলো পড়।

প্রশ্ন: স্যার, এটা ঠিক প্রশ্ন তো নয়। কেবল ধন্যবাদ। আপনার একটি বই পড়ে আমি প্রথমবারের মত বেশ সিরিয়াসলি নিজে নিজে একটি বই লেখার পরিকল্পনা করেছিলাম। সেটি জারুল চৌধুরীর মানিকজোড়। আমি যে বইটি লিখতে চেয়েছিলাম সেটার নাম হতো ‘ছোটদের ক্যালকুলাস’। একটু শুরুও করেছিলাম কিন্তু সেটা শুরু হয়ে প্রথম অংশেই থেমে রয়েছে। আমি যেদিন জানতে পারলাম আপনি ছোটদের জন্য ক্যালকুলাসের বই লিখছেন তখন কতটা যে খুশি হয়েছিলাম সেটা বলে বুঝানো যাবে না। ……… ক্যালকুলাস নিয়ে কলম ধরার ইচ্ছেটা আমার এখনও একশভাগ আছে। হয়তো যা ভেবেছিলাম তেমন হবে না, একটু অন্যরকম হবে। আপনি তো শুরু করেই দিলেন। আমি নাম ঠিকানা লিখতে ভুলিনি। এত বড় কাজ শেষ করতে না পারলে ভয়ানক বেইজ্জতি হবে, তাই প্রজেক্ট আপাতত গোপ। আপনার দ্বিতীয় ডেরাইভেটিভ নেগেটিভ হোক আর প্রথম ডেরাইভেটিভ সবসময় শূন্যই থাকুক।
উত্তর: থ্যাঙ্কু। শুনে খুব খুশি হলাম যে তুমি ক্যালকুলাসের উপর একটি বই লিখতে যাচ্ছ। অপেক্ষা করে রইলাম।  ডেরাইভেটিভ শুন্য করে থামিয়ে দিলে, পজিটিভ রেখে আরো উপরে উঠতে দিতে চাও না? (ঠাট্টা করলাম!)

রাইয়ান, বাংলাদেশ।
প্রশ্ন: স্যার, আমি আপনার কাছ থেকে একটা পরামর্শ চাই। আজকাল বাজারে যে সব বিভিন্ন ক্লাসের গাইড বই পাওয়া যায় তা তো বাচ্চাদের মেধার তো কোনো বিকাশ করেইনা বরং মেধার বিনাশ ঘটায়। কিন্তু বাচ্চারা থেকে শরু করে ক্লাসের শিক্ষক পর্যন্ত সবাই এসব পচা গাইড বইয়ের উপর খুবই নির্ভরশীল। সৃজনশীল পদ্ধতি চালু হওয়ার পর গাইড বইয়ের ব্যাবহার আমি মনে করি আরো বেড়ে গেছে। তাই আমরা কিভাবে এই সব গাইড বই থেকে বের হয়ে এসব???
উত্তর: সেগুলো পড়ে যেন কোনো লাভ না হয় সেরকম একটা পরিবেশ তৈরী করা গেলে নিজ থেকেই গাইড বই বন্ধ হয়ে যাবে। কিন্তু বাজার থেকে গাইড বই তুলে দিলেই কী গাইড বই উঠে যাবে? খবরের কাগজে যে গাইড বই ছাপা হয় সেটা কে বন্ধ করবে? প্রথম আলোর মত সম্ভ্রান্ত পত্রিকা নিয়মিত ভাবে গাইড বই ছাপায়, তুমি যাবে কোথায়?

রেদওয়ান, ঢাকা..
প্রশ্ন: ১) আলো এক সেকেন্ডে ১ লাখ ৮৬ হাজার মাইল যায়-বিজ্ঞানীরা এটা হিসাব করলো কিভাবে? ২) গ্রহ-নক্ষত্রের দুরত্ব আলোকবর্ষ হিসাবে করা হয়..এক সেকেন্ডে আলো ১ লাখ ৮৬ হাজার মাইল যায়- কাজেই এক বছরে আলো নিশ্চয়ই একটা নির্দিষ্ট দুরত্ব অতিক্রম করবে, অর্থাৎ, একটা ধ্রুবক মান পাওয়া যাবে..তাহলে, আলোকবর্ষের চেয়ে ওই দ্রুবক সংখ্যাটাই বেশি সু নির্দিষ্ট এবং সুবিধাজনক না? কিন্তু, আলোকবর্ষ কথাটাই বেশি শোনা যায় কেনো?
উত্তর:  ম্যাক্সওয়েলের সমীকরণ দিয়ে এটা দুই মিনিটে হিসাব করে বের করে ফেলা যায়। আর এমনিতে অবশ্যি আলোর বেগ এক্সপেরিমেন্ট করে মাপা সম্ভব। আমরা পপুলার লেখলেখিতে আলোকবর্ষ ব্যবহার করি কারন সেটা আমাদের বিশাল দুরত্বটির একটা বাস্তব অনুভুতি দেয়। এস্ট্রনোমাররা parsec বলে অন্য একটা ইউনিট সমানভাবে ব্যবহার করেন।

শফিক,সাস্ট।
প্রশ্ন: স্যার,আমি এমন কেনো? চিন্তাভাবনা খালি এমন হয়।কবে যে মানুষ হবো। যেমন, কেউ আপনাকে বাসায় দাওয়াত দিলেও ভয় অথবা সন্দেহ হয় যে যদি কিছু করে ফেলে আপনার!
আপনার কিছু হলে কি যে করবো বলতে পারছি না। আপনাকে প্রথম লিখলাম। উত্তর না পেলে কি হবে আশাহত হবো।
উত্তর: তুমি সাস্টের ছাত্র, তুমি ইচ্ছা করলেই আমার সাথে দেখা করে তোমার যা প্রশ্ন আছে করে সাথে সাথে উত্তর পেতে পার। তুমি কেন এখানে প্রশ্ন করে উত্তরের জন্যে বসে আছ? (তোমার দুশ্চিন্তা করার কিছু নেই, কেউ আমাকে কিছু করে ফেলবে না!)

তিয়াস কুষ্টিয়া।।
প্রশ্ন: যার ভর আছে তাকে light speed dewa impossibe.সকল কণার ভর আছে।আবার photon একটা কণা।তাহলে photon waveআকারে চলে। আমার প্রশ্ন তাহলে photon কণা ধর্ম show করে কখন(????)
উত্তর: আলো একই সাথে তরংগ এবং কণা। ঠিক সেরকম ইলেক্ট্রন একই সাথে কণা এবং তরংগ। ফটো ইলেক্ট্রিক এফেক্ট আলোর কণা ধর্ম দেখায়, আইনস্টাইনকে এর জন্যে নোবেল পরস্কার দেয়া হয়েছিল।

Riti,Hsc 2nd year,dhaka
প্রশ্ন: Accha ami ki tomake tumi kore bolte parti? R baba dakte pari?:*
R ami jodi baba daki,tahole ki nabil vaia r yeashim apu amake hingsha korbe?:p
উত্তর: হ্যাঁ পার। সেটাও পার, কোনো সমস্যা নেই। না, নাবিল ইয়েশিম মোটেও হিংসা করবে না।

রেদওয়ান, ঢাকা..
প্রশ্ন: শুনেছি, কাজি নযরুল, রবীন্দ্রনাথ, এরকম আগেকার দিনের বড় বড় সাহিত্যিকরা পরালেখা নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামাতেন না..নিজেকে বিরক্তিকর কোনো কাজের চাপে ফেলে নিজের ক্রিয়েটিভিটি, কল্পনা-শক্তি নষ্ট করার কোনো মানে হয়?- এভাবেই হয়তো উনারা ভেবেছেন..(আমিও ভাবি…) টকিন্তু, আপনি বা হুমায়ুন আহমেদ এতো পড়ালেখা করেও কিভাবে এতো বড় সাহিত্যিক হলেন? 😮 আপনারা কিভাবে ভেবেছেন?
উত্তর: কাজি নজরুল কিংবা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আনুষ্ঠানিক কোনো ডিগ্রি হয়তো ছিল না কিন্তু তারা লেখাপড়া করেননি এরকম একটা ধারণা তোমার কেমন করে হল? তারা নিজে নিজে কী ধরনের পড়শোনা করেছেন জানলে তোমার মাথা খারাপ হয়ে যাবে।

খালেদুর রহমান(সৈকত), age:13,address: কুলাউড়া,মৌলভীবাজার
প্রশ্ন: স্যার আপনি কি দাবা খেলা পারেন? আমি আপনার সাথে একটা প্রীতি ম্যাচ খেলতে চাই।
উত্তর: কেন আমাকে দাবা খেলায় হারিয়ে সবার সামনে বেইজ্জতি করার জন্যে এতো ব্যস্ত হয়েছ?

খালেদা ইয়াসমিন (বীথি), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
প্রশ্ন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের রিডিং ক্লাবের সেশনে ইয়েশিমকে পেয়েছিলাম কিছুদিন আগে। জানতে চেয়েছিলাম যে আমরা যারা বড় হয়ে গিয়েছি তাদের জন্য কোন অপশন কি এই সাইটে রাখা যায়? আপনার কাছেও একই প্রশ্ন থাকলো। আর কিছু না হোক বড়দের জন্য আপনার লেখা বইগুলোর পিডিএফ বা তালিকা কি যোগ করা যায়?
উত্তর: তোমার অনুরোধটি সময়মত আমার কাছে পৌছেছিল। আমি এটা নিয়ে ভাবছি, কিন্তু সমস্যা হলো আমাকে একশ একটা কাজ করতে হয়, বছরে বেশ কয়েকটা বইও লিখতে হয়। তাই কোনো একটা ঠিকমত চালাতে পারব সেটা নিশ্চিত না করে কিছু শুরু করতে চাই না।

জিসান, নবম শ্রেণী , আইডিয়াল স্কুল
প্রশ্ন: স্যার , আগুন কি পদার্থ নাকি শক্তি ?

download
উত্তর: আগুন থেকে যে আলো আর তাপ বের হয় সেটা শক্তি। আগুনে যে গরম বাতাস কিংবা কার্বনের কণা থাকে সেগুলো পদার্থ। (কেন জানি মনে হচ্ছে উত্তরটা আগে একবার দিয়েছি!)

Arif… Comilla
প্রশ্ন: sir..ami inter 1st year r akjn student.noton college a vorti hoisi..kinto ami karo sathe temn mishtea parina.a bepare apnar motomot ki!
উত্তর: সবাই সমান মিশুক হয় না, আমি যেরকম অনেকটা তোমার মতন ছিলাম, নিজ থেকে এগিয়ে গিয়ে মিশতে পারতাম না। তাই এটা নিয়ে বেশী দুশ্চিন্তা করো না। ঠিকই দেখবে তোমার অনেক বন্ধু হয়ে যাবে, সবাইকে নিয়ে অনেক আনন্দ করে কলেজ জীবন কেটে যাবে।

রুপালি (ছদ্মনাম) , দশম শ্রেণি , ঢাকা ।
প্রশ্ন:  স্যার , কোন একটা সময় ছিল যখন স্কুল কলেজ এর পাঠ্যবই এ অনেক বেশি বিস্তারিত করে লিখা থাকতো । যেমন, আমরা কোন শ্রেণীতে উঠলে আমাদেরকে এখন টিচার রা বড় আপু-ভাইয়াদের আগের ভার্সন এর বই যোগাড় করতে বলেন কারণ ঐখানে অনেক সুন্দর করে গুছিয়ে কোনও একটা বিষয় বিস্তারিত ভাবে বিবরণ দেওয়া থাকে। কিন্তু আমাদের পাঠ্য বই গুলোর বিষয়বস্তু advance হলেও অনেক ছাড়া ছাড়া ভাবে কিছু কিছু বিষয় এর সংক্ষিপ্ত বিবরন রয়েছে । আবার অনেক সময় আগের ক্লাস এর বই পরিবর্তন হওয়ায় ঐ ক্লাস এ কিছু topic advance বুঝানো হয়েছে কিন্তু দেখা যায় এর পরের ক্লাস এ আগের version এর বই থাকাতে basic জিনিস গুলো পরের ক্লাস এ উঠে জানতে পারি। যেমন , নবম-দশম শ্রেণীর রসায়ন বিজ্ঞান । এই সমস্যার সমাধান কোথায় ?
উত্তর: দুর্ভাগ্যক্রমে তোমাদের জন্যে এর কোনো সমাধান নেই। পুরানো বইগুলো খুঁজে এনে পড়। শুধু নিজের পাঠ্যবই না পড়ে অন্যান্য বই পড়। তবে পরের বছরের ছেলেমেয়দের জন্যে এই সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে আমি জানি। (ছদ্মনামটি কি জন্যে?)

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক।গাইবান্ধা
প্রশ্ন: স্যার আমার একটা সমস্যার জন্য বড় বিপদে আছি।আমি বেসরকারি পলিটেকনিকে Computer department এ 3rd semester এ study করছি।কিছুদিন আগে থেকে দেখছি যে যদি কোন কারনে sir/mam তাদের ডেস্ক এর সামনে ডাকে,তখন আমার অজান্তেই আমার পা কাপাকাপি শুরু হয়।আবার অতিরিক্ত নার্ভাস ফিল করি।এই সমস্যা থেকে বের হওয়ার একটা উপায় বলবেন?
উত্তর: স্যার ম্যাডামরা ডেস্কের সামনে ডাকলে একটু নার্ভাস হতেই পার, সমস্যা নেই। যখন দেখবে তারা বাঘ ভাল্লুক কিছু নন, তোমার উপর লাফিয়ে পড়ে ঘাড় মটকে দিচ্ছেন না, তখন কাঁপুনিটা নিশ্চয়ই কমে আসবে।

ওয়াহিদা বিনতে রোকন  নবম শ্রেণি,পি এম বলিকা উচ্চ বিদ্যালয়, নওগাঁ
প্রশ্ন: নওগাঁ একটা ছোট শহর এবং এখানে সুযোগ-সুবিধা খুব কম। ……উদ্দেশ্য একটা কিশোর পত্রিকা বের করব।সবাই হাসাহাসি করত।নিরুৎসাহিত করত।আব্বু আম্মু রা বকা দিত কিন্তু আমরা থামলাম না।৩৩ আড্ডা পর খুব কষ্ট করে একটা সংখ্যা বের …… আমাদের প্রথমবারের মত উৎসাহ দিল নওগাঁর জেলা প্রসাশক আর এসপি।তখন সবাই আমাদের পাত্তা দিল আর নওগাঁতে টিম ফড়িং সবার নজর কেড়ে নিল।সব জায়গায় আমাদের নিয়ে আলোচনা হত।আমরা যে এভাবে সফল হব কখোনো ভাবিনি।কিছুদিন আগে আমাদের ১০০ তম আড্ডাও উদযাপিত হল।এবার আমরা আয়োজন করছি শত মুনিষীর মেলার। এটা নওগাঁ তে প্রথমবারের মত আয়োজন করা হচ্ছে।এক আ্ড্ডয় আমাদের একজন ফড়িং ইয়ার্কি করে আপনার আাসার কথা বলল কিন্তু আমাদের সেই একজন বড় মানুষ,আমাদের সম্পাদক আমাদের ছেলেমানুষীকে প্রশয় দিয়ে আপনাকে আাসার জন্য একটা চিঠি দিয়ে দিয়েছে!!……একটা হাস্যকর প্রশ্ন আছে,”আপনি কি আমাদের শত মুনীষির মেলা আয়োজনে আসবেন??????নওগাঁর শতশত ছেলেমেয়ে আপনাকে একবার কাছে পেতে চায়,,,,,,নওগাঁর মত একটা ছোট নগণ্য শহরে আপনার আসা একটা আকাশ কুসুম ব্যাপার। কিন্তু আমার জিনিসটা নিয়ে খুব ভাবতে ইচ্ছা করছে,,,,স্যার স্যার স্যার প্লিজ বলেন না আপনি কি আসবেন????হ্যাঁ কি না,,,,?????
উত্তর: যদিও একজন ইয়ার্কি করে আমাকে আসার কথা বলেছিল, আমি কিন্তু সিরিয়াসলি আসতে চেয়েছিলাম, এখন তোমরাই তোমাদের প্রোগ্রাম পিছিয়ে দিলে আমি কেমন করে আসব?

প্রশ্ন: আমার নামটা খুব খটোমটো।এটা নিয়ে আমার খুব মন খারাপ হয়।নামটা ভালই লাগে কিন্তু নতুন কোথাও গেলে আমাকে খুব সমস্যায় পড়তে হয়।অামার স্বপ্ন লেখক হওয়া। অনেকে বলে তাহলে নাকি আমার নামটা চেঞ্জ করে একটা বানানো নাম দিতে হবে!!!! সত্যি কি আমার নামটা বাজে????
উত্তর: আমি যদি আমার এরকম বিচিত্র একটা নাম দিয়ে এতগুলো বই লিখে ফেলতে পারি, তুমি কেন পারবে না?

প্রশ্ন: পদার্থবিজ্ঞান পারিনা।আমার রোল দুই-তিন-চারের মধ্যে থাকত কিন্তু এবার ফিজিক্সে টেনেটুনে পাস করছি।খুব মানসিক চাপের মধ্যে ছিলাম।মরে যেতে ইচ্ছা করত।কিন্তু যাই হোক আমি স্বাভাবিক হয়েছি।কিন্তু তবুও পদার্থবিজ্ঞান পারিনা।আমার মনে হচ্ছে আমার ভবিষ্যত ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে।পড়াশোনা খারাপ করছি।কী করব????
উত্তর: পদার্থবিজ্ঞান তো পারার ব্যাপার না, বোঝার ব্যাপার। আগেই যদি ধরে নাও বুঝবে না তা হলে কিন্তু হবে না। বোঝানোর মত করে আমি তোমাদের জন্যে একটা পদার্থ বিজ্ঞানের বই লিখেছি সেটা পড়ে দেখ কিছু বোঝ কি না।

প্রশ্ন: আমি পড়াশোনার পাশাপাশি গান,অভিনয়,আবৃত্তি করি কিন্তু আমার টিচাররা পছন্দ করেন না। তারা বলেন পড়াশোনায় ভালো করতে হলে সবখওছু ছাড়তে হবে।আমি কি ছাড়ব না ধরে রাখব????
উত্তর: যে টিচার তার ছাত্র-ছাত্রীদের গান, অভিনয় আর আবৃত্তি করা পছন্দ করে না আমি তাকে টিচার বলতে রাজী নই! তাদেরকে বড় জোর আংকেল না হলে মামা বলা যেতে পারে!  সবচেয়ে বড় কথা গান, অভিনয় আর আবৃত্তি করে কখনো কারো লেখা পড়ার ক্ষতি হয়নি। হবেও না।

প্রশ্ন: আপনার কি মনে হচ্ছে আমি খুব বেশি বকর বকর করি? সবাই আমার বকবকানির জন্য অতিষ্ট।বকবকানি কমানোর জন্য কী করব???
উত্তর: খামাখা কমানোর চেষ্টা করে লাভ নেই, বকবকানী এমন কিছু খারাপ বিষয় নয়। গোমড়ামুখি মানুষ যে কথা বলে না (আমার মতন) তার থেকে বকবকানি করা মানুষ বেশি ইন্টারেস্টিং।

Rushda, malibagh Age 20
প্রশ্ন: আমার মন সবসময় খুব খারাপ থাকে | I am NOT suicidal; I actually suffered from a pretty upsetting past, for something that had happened 3 years ago, I cannot let go of the feelings of being emotionally and academically abused. এখানে বিস্তারিত বলবো না কারণ সবাইকে জানাইতে চাই না আমার ঘটনা | আমার প্রশ্ন হলো, আপনার জীবনে ও ত খারাপ ঘটনা ঘটেছে , আপনি সেই feelings গুলা সামলান কি ভাবে?
উত্তর: আমার শুনে খুব খারাপ লাগছে যে তোমার মন সবসময় খারাপ থকে। যদি মন খারাপের কারন থাকে তাহলে মন তো খারাপ হতেই পারে, কী করবে বল। তিন বছর অনেক সময় এতো দিনে কষ্টের তীব্রতা কমে আসা উচিৎ ছিল। যাই হোক যদি এখনো অকারনে মন খারাপ হয় তাহলে তোমার কিছু একটা করা দরকার। কারো সাহায্য নাও। আমার যখন মন খারাপ হয় তখন আমার কাছাকাছি যে আপনজন থাকে তারা বুঝে যায়, তখন তারা আমার মন ভালো করার চেষ্টা করে। মন খারাপ হলে মন ভালো করার সবচেয়ে ভালো আর সহজ পদ্ধতি হচ্ছে প্রানের বন্ধুর সাথে কথা বলা। তোমার যদি সেরকম বন্ধু না থাকে তা হলে কান পেতে রইয়ের সাথে যোগাযোগ করতে পার। এটা খুব সুইট একটা অর্গানাইজেশান। কথা বললে তোমার ভালো লাগবে। আমি খুব আশা করে আছি কিছুদিন পরে তুমি আমাকে লিখে বলবে, এখন তোমার আর মন খারাপ নেই। তুমি এখন হাসিখুশি!

জিসান, দশম শ্রেণী , ঢাকা ।
প্রশ্ন: হুমায়ুন স্যার এর ‘মিসির আলি’ চরিত্রের মত একটি প্যারানরমাল কাহিনীর সিরিজ লিখার কথা কি ভাবা যায় ? বাংলায় এই ধরনের লিখা খুব কম হয় আর আপনার কল্পনাশক্তি ত অসাধারণ । প্যারা সাইকোলজি নিয়ে কিছু লিখা কি আমরা আশা করতে পারি?
উত্তর: সবাই নিজের মত করে লিখে, আমিও আমার মত লিখি। হুমায়ুন আহমেদের মত করে আমি লিখতে পারব না, চাইলেও পারব না।

প্রশ্ন: হুমায়ুন আহ্মেদ স্যার এর শেষ ইচ্ছে গুলোর মধ্যে একটা ছিল বাংলাদেশে বিশ্বমানের ক্যান্সার হাসপাতাল নির্মাণ। আমরা সবাই মিলে কি পারি না স্যার এর এই ইচ্ছেটা পূরণ করতে? এই দেশের তিন প্রজন্মের মানুষ স্যার এর ভক্ত । যে যার সামর্থ্য নিয়ে এগিয়ে এসে কি পারিনা এই স্বপ্ন টা সত্যি করতে? স্যার এর পরিবারের প্রতিনিধি হয়ে আপনি যদি এগিয়ে আসেন, আমার বিশ্বাস স্যার এর এই স্বপ্ন সফল হবেই ।
উত্তর: যে বিষয়টা হুমায়ুন আহমেদ খুব সহজে করতে পারতো, অন্যদের জন্যে সেটা আকাশের সমান কঠিন। আমি হাসপাতালের কিছু জানি না, কেমন করে এরকম প্রজেক্ট হাতে নেব?

প্রশ্ন: এই প্রশ্নটা নিয়ে আমি নিজেও দ্বিধান্বিত । বাংলাদেশে বসবাসরত বিহারিদের যে বিহারি ক্যাম্প এ রাখা হয় এবং অনেক মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয় এই ব্যাপারটা আসলে আমি কিভাবে দেখব বুঝতে পারিনা। পাকিস্তানকে আমি শরীরের শেষ রক্ত বিন্দু দিয়ে ঘৃণা করি । প্রতিবার ইতিহাস পরে ‘৭১ এ তাদের বর্বরতায় নতুন করে শিউরে উঠি । বিহারিদের নির্লজ্জ পাকিস্তান সমর্থন এর ইতিহাস ও জানি । কিন্তু এখন যারা নতুন প্রজন্ম , তারাই বা কোন পাপের জন্যে তাদের মৌলিক অধিকার, নাগরিকত্ব এসব থেকে বঞ্চিত হবে? ব্যাপারটা কি জাতীয়তাবোধ থেকে দেখা উচিত না মানবিক ভাবে দেখা উচিত এইটা নিয়ে নিজের সাথেই নিজের মনোমালিন্য হয় । আসলে কোনটা ঠিক ?
উত্তর: আমি তোমার সাথে একেবারে একশ ভাগ একমত। যারা এই দেশের মাটিতে জন্ম নিয়েছে তারা কেন তাদের পূর্বপুরুষের অপরাধের প্রায়শ্চিত্ত করবে? নুতন প্রজন্মকে অবশ্যই বাংলাদেশকে গ্রহন করে এই দেশের নাগরিক হিসেবে ঠিকভাবে বাঁচা উচিত। কিন্তু সমস্যা হল বিহারীরা নিজেরাই এখনো নিজেদের পাকিস্তানের নাগরিক ভেবে পাকিস্তানে ফিরে যাবার স্বপ্ন দেখে। পাকিস্তান তাদের ফিরিয়ে নিতে আগ্রহী নয়! এখন সমাধানটা কী?

প্রশ্ন: শ্রদ্ধেয় স্যার, আমার সবচেয়ে কাছের বন্ধু যাকে আমি আট বছর এরও বেশি ধরে চিনি । তার সাথে আমার কখনও ঝগড়া হয়নি । এটাকি কোনো সমস্যা? ????
উত্তর: না, সমস্যা না। (কিন্তু একবার ঝগড়া করে দেখ কেমন লাগে!)

প্রশ্ন: We are asking u lot of question…..plz u ask us one question…..
sir I ve devloped a website amrakorbojoy.com
Rafihath saleh father. ..ASM Khayruk Akhter Chowdhury……

images-2
উত্তর: থ্যাংকু থ্যাংকু থ্যাংকু! তুমি ঠিকই বলেছ, শুধু তোমরা প্রশ্ন করতে পারবে আর আমি প্রশ্ন করতে পারব না, এটা তো হতে পারে না। আমার মনের ভেতরে কতো প্রশ্ন! তোমাকেই একটা প্রশ্ন করি। টুথপেস্টের টিউবে জোরে চাপ দেয়ার কারনে যখন একসাথে অনেকখানি পেস্ট বের হয়ে আসে তখন সেটা আবার ভেতরে ঢোকানোর কোনো বুদ্ধি দিতে পারবে? (তোমার আব্বু আমার খুব পছন্দের মানুষ, তোমার আব্বু থাকার কারনে আমাদের ইউনিভার্সিটি তথ্য প্রযুক্তিতে সবার চাইতে এগিয়ে সেটা কি তুমি জান? তোমার ওয়েব সাইটটাও খুব সুন্দর হয়েছে। এতো ছোট ছেলে তুমি ওয়েব সাইট বানাতে পার? wow!)

ফারিহা রাহনুমা,মিরপুর,ঢাকা। kurigram
প্রশ্ন: আমি এবার দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী।বিগত কয়েক বছর ধরে দেখছি গোপনে প্রশ্ন ফাঁস কমন হয়ে দাঁড়িয়েছে। আমাদের ও কি ফাঁস হওয়া প্রশ্নে পরীক্ষা দিতে হবে??
উত্তর: না, তোমাকে ফাঁস হয়া প্রশ্নে পরীক্ষা দিতে হবে না। সত্যিই যদি প্রশ্ন ফাঁস হয়, অন্যেরা দিক, তুমি দিও না। (এবারে মেডিক্যালের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস করতে পারে নি। কাজেই সরকার যদি চায় প্রশ্ন ফাঁস না করে পরীক্ষা নিতে পারে!)

প্রশ্ন: স্যার,একটা ফুটবলে যখন বাতাস থাকে তখন মাটির দিগে মারলে তা আবার উপরে উঠে। কিন্তু যখন বাতাস থাকে না ফুটবলে তখন মাটির দিগে মারলে তা আর উপরে উঠে না কেন?
উত্তর: যখন ফুটবলে বাতাস থাকে তখন সেটা অনেকটা স্প্রিংয়ের মত কাজ করে। উপর থেকে নিচে ফেলে দিলে ফুটবলটা সংকুচিত হয়, সেই সংকোচন একটা বল প্রয়োগ করে, সেই বলে ফুতবলটা লাফিয়ে উঠে। যখন বাতাস থাকেনা তখন এই ব্যাপারটা ঘটতে পারে না।

বিশাল, ঢাকা
প্রশ্ন: আত্মবিশ্বাস অনেক কম.. কি করা যায় এখন? এই কারণে অনেক অপমানিত হইতেছি।
উত্তর: আত্মবিশ্বাস কম থাকলে কেমন করে হবে? বাড়াও। কিছু একটা কর, করে নিজেকে দেখাও তুমি সেটা পার। (কিন্তু তুমি কেন অপমানিত হচ্ছ সেটা বুঝতে পারলাম না। লোকজনকে গায়ে পড়ে তোমাকে অপমান করতে দিও না।)