উত্তর

 

 

 

 

 

পুরানো প্রশ্ন ও উত্তর:        

২৮ এপ্রিল ২০২১

প্রশ্ন: Dear Sir, I am Anindita Shreya. Student of Holy Cross Girls’ High School, class 7. I am a big fan of your books. And My sister and I are book worm. I also love science books. I want to be a scientist. I have some questions. My mother has answered a few of them. And I asked the rest to my teacher. But he scold me and didn’t answered those. Can I ask you those question? I have none to answer them. With best regards, Anindita Shreya { I am not good at English. I have typed English Because It is hard for me to type Bangla in Laptop}
উত্তর: তোমার প্রশ্নটির উত্তর দেওয়া খুবই সোজা! হ্যাঁ তুমি অবশ্যই প্রশ্ন করতে পার। যদি আমার মনে হয় তুমি নেটে খোঁজ করলে এই প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবে তাহলে আমি অনেক সময় তোমাকে সেটা করতে বলব। না হয় উত্তরটা দেওয়ার চেষ্টা করব, সব প্রশ্নের উত্তর যে আমি জানি সেটাও সত্যি না। অনেক প্রশ্নের উত্তর আবার বাবা মায়েরা মোটেও পছন্দ করেন না!

প্রশ্ন: লাইবা, ঢাকা। (২৭/০৪/২১) “জীবন যে রকম” বইটি কি সুন্দর!! আমি মাত্র শেষ করলাম। এতো চমৎকার করে লেখা বইটি। পড়তে পড়তে আমার গলা ধরে গেছে প্রায়ই। আপনার মা সত্যিই একজন অসাধারণ “মা”। কি গভীর তাঁর জীবনবোধ, মানবিকতা, বিশ্লেষণ আর অনুধাবনের দক্ষতা। পুরো বইটিতে তিনি তাঁর অভিজ্ঞতা, রসবোধের সমন্বয়ে কি নিপুণভাবে তুলে ধরেছেন। আর বইয়ের শেষটাও এতো মায়াময়! মানুষের জীবন মোটেও কোনো বানানো গল্প থেকে কম বৈচিত্র্যময় না! তাঁর এই জীবনসংগ্রাম আমাদের সবার জন্য অনুপ্রেরণা। আমি শ্রদ্ধার সাথে তাঁকে স্মরণ করছি। অনেক ভালোবাসা এই মহান মানুষটির জন্য। আল্লাহ তাঁর পরকালীন জীবন আনন্দময় করুক। আপনার মা শ্রদ্ধেয় আয়েশা ফয়েজের কি “জীবন যে রকম” বাদে আর কোনো লেখা বই আছে? (লেখক হিসাবেও তিনি কিন্তু অসাধারণ!)
উত্তর: আমার মা এই বইটা লেখার পর অনেকদিন অপ্রকাশিত হয়ে পড়েছিল। একসময় আমি উদ্যোগ নিয়ে এই বইটা বের করেছিলাম। তোমার বইটা ভালো লেগেছে জেনে আমারও ভালো লাগল। হ্যাঁ, আমার মা একজন অসাধারণ মহিলা ছিলেন, ভয়ানক দুঃসময়ে পুরো পরিবারটাকে ধরে রেখেছিলেন বলে আমরা টিকে আছি, তা না হলে আমরা সবাই কোথায় যে ভেসে যেতাম! হুমায়ুন আহমেদ মারা যাবার পর কষ্টটা ভুলে থাকার জন্য আমার মা তাকে বসে বসে চিঠি লিখতেন। আমরা পরে সেটাকে একটা ছোট বই হিসেবে বের করেছিলাম। সেই বইটার নাম ‘শেষ চিঠি’।

প্রশ্ন: Sir, আমি যথাযথ সম্মান এর সাথে আপনাকে একটা বিষয় বলতে চাই; আপনি ক্লাস 9-10 এর বই এভাবে কেন লিখেছেন?এভাবে কেউ বই লিখে? একটাও definition properly দেয়া হয়নি, একদম আগের বই এর মতোন না। আমরা পরীক্ষার খাতায় কি লিখব?জানি আপনি কি বলবেন, বলবেন যে এটা আমাদের বোঝানোর জন্যই এভাবে লিখেছেন, কিন্তু আমি আপনাকে এটাই বলব যে now its very hard to understand…this is not fair…because you’re writing a text book not a novel… অরণ্য সংস্কৃত, ঢাকা, বাংলাদেশ।
উত্তর: তুমি আমাকে একটা উদাহরণ দাও তাহলে আমি সমস্যাটা বুঝতে পারব। আমি যতদূর জানি পদার্থ বিজ্ঞানের বিষয়গুলোর সবই তো দেওয়া আছে। ছেলেমেয়েরা যেন নিজেরা পড়ে বুঝতে পারে সেটা হচ্ছে উদ্দেশ্য, সেটা কি করে দেখেছ? মজার ব্যাপার হচ্ছে তোমাদের মত বেশ কিছু ছেলেমেয়ে আমাকে এই বিষয়টা লিখেছ, কিন্তু তার সাথে সাথে অনেকে আমাকে লিখে ধন্যবাদ দিয়েছে পদার্থ বিজ্ঞানের বিষয়টা বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য। আমি এখন কার কথাকে বেশি গুরুত্ব দেব?

প্রশ্ন: স্যার ,আমার নাম লিখে আপনার একটু অটোগ্রাফ দিবেন প্লিজ? নাম : আদনান হোসেন, কুমারপাড়া, সিলেট।


উত্তর: দিলাম। খুশি?

প্রশ্ন: স্যার আমাকে আমার নাম লিখে আপনার একটা অটোগ্রাফ দিবেন প্লিজ??? আমার নাম আতিকা হাসান নওশীন… আমি চট্টগ্রাম থেকে..


উত্তর: তোমাকেও দিলাম। খুশি?

প্রশ্ন: স্যার, ১। আপনি বলেছেন টিভি দেখলে মানুষের কোনো কল্পনা করতে হয় না। তাই মস্তিষ্কের বিকাশ হয় না। তাই বই পড়া উচিত। তাহলে স্যার কমিকস পড়াও কি সময় নষ্ট? ২। আর স্যার আপনি কি টিনটিন পড়েছেন? (স্যার, এখানে আমার কোনো প্রকার ব্যাঙ্গ বা ঠাট্টা করা উদ্দেশ্য না। ভুল হলে ক্ষমা করে দিবেন।) আসমাউল হাসান, বাসাবো, ঢাকা।


উত্তর: যখন দেখবে কমিক পড়ে তৃপ্তি হচ্ছে না আরো কিছু পড়ার ইচ্ছে করছে তখন বুঝবে তোমার মস্তিষ্ক আর এক ধাপ বিকশিত হয়েছে। তোমার ইচ্ছা তুমি তোমার মস্তিষ্কটাকে কতোটুকু বিকশিত করতে চাও। হ্যাঁ আমি একটি দুইটি টিনটিন পড়েছি। এই বছর কমিকের জন্য আমি ‘ঢাকা কমিক্স’কে একটা ছোট গল্প লিখে দিয়েছিলাম।

প্রশ্ন: স্যার, আমার প্রশ্নঃ ১। আপনার আইকিউ কত? (কিছু মনে করবেন না প্লিজ, আমি এমনিই জানতে চাচ্ছি) ২। বর্তমান বিশ্বের পরিপ্রেক্ষিতে একজন লেখকের শুধু লেখালেখি করেই জীবিকা নির্বাহ কি সম্ভব? (জানি এটা একটা অদ্ভুত প্রশ্ন; উত্তর না দিলেও সমস্যা নেই) আসমাউল হাসান, বাসাবো, ঢাকা।
উত্তর: আইকিউ ব্যাপারটা কখনো সিরিয়াসলি নেই নাই, কেন জানি মাপার জন্য কখনো খুব আগ্রহও হয় নাই। চল্লিশ পঞ্চাশ হবে মনে হয়! আমার ধারণা শুধু লেখালেখি করে ‘জীবিকা নির্বাহ’ করার দিন শেষ হয়ে আসছে, আজকাল কেউ আর বই পড়ে না, সবাই ফেসবুক ‘করে’! ফেসবুক নির্ভর একটা জীবন খুঁজে বের করতে পারলে মনে হয় আরামে থাকা যাবে!!

প্রশ্ন: স্যার, অনেক সময় কোনো বিশেষ বই পড়লে বা মুভি/সিরিজ দেখার পর তা শেষ হয়ে গেলে ভীষণ মন খারাপ লাগে। অন্য কাজও করতে পারি কিন্তু ভালো লাগে না। আমার সেই বই বা মুভির চরিত্রগুলোর জন্য মায়া লাগে। আমি জানি কয়েকদিন পর এমনিই ঠিক হয়ে যাবে তবুও মনকে বুঝাতে পারি না। এই পরিস্থিতি থেকে সাথে সাথে মুক্তি পাওয়ার উপায় কী? উত্তরের সাথে একটা অটোগ্রাফও দিয়েন (প্লিজ)। জ্যোতি, বাসাবো, ঢাকা।


উত্তর: কেন? মুক্তি পেতে চাচ্ছ কেন? তোমার একটা সংবেদনশীল মন থাকবে সেটা তো খুব ভালো কথা, এর মাঝে দোষ কী? দিচ্ছি অটোগ্রাফ!

প্রশ্ন: স্যার আপনি কি কখনো কুচিং সেন্টারে পড়েছেন? বা কারো কাছে প্রাইভেট পরেছেন? আজকাল আমরা যেভাবে পড়ি। আজিজুল হক সদর হবিগঞ্জ।
উত্তর: না পড়ি নাই। আমাদের সময় ‘প্রাইভেট পড়া’র ব্যাপারটা আসলেই প্রাইভেট ছিল। এটা ছিল একটা লজ্জার ব্যাপার, কারও যদি পড়তে হতো সেটা সে গোপন রাখতো!

প্রশ্ন: স্যার কেমন আছেন?আমি আপনার “আবারো টুনটুনি আবারো ছোটাচ্ছু” বইটিতে এই ওয়েবসাইটের লিংক খুঁজে পেয়েছি।আর এই প্রথম কিছু একটা লিখছি এখানে।আমার এক স্যারের সুবাদে প্রথম আপনার বই পড়ার সুযোগ হয়।বইটার নাম ছিল “শুকনো ফুল রঙিন ফুল” মূলত তখন থেকে আমি আপনার ভীষণ ভক্ত হয়ে পড়ি।আমার মনে হয় আমি আমার মনের মতোন লেখক খুঁজে পেয়েছি।এরপর আপনার অনেক বই পড়া হয়ে গেছে।কিন্তু ইদানিং আমার আব্বু আম্মু বেশি সমস্যা করছে।পাঠ্যবই ছাড়া অন্যান্য বই(তাদের মতে আউট বই/অপ্রয়জনীয় বই)তাদের চোখের বিষ হয়ে দাঁড়িয়েছে।তাদের ইচ্ছা ভবিষ্যতে আমি যেন ডাক্তার(কি বিৎঘুটে!) হই।(বাংলাদেশের মা বাবারা ডাক্তার ইন্জিনিয়ার ছাড়া আর কিছু চিনে না)আর তার জন্য তারা আমাকে চব্বিশ ঘন্টা অল টাইম পড়ার টেবিলে দেখতে চাই।এখন আমি কি করি?আগে পাঠ্যবইয়ের নিচে চাপা দিয়ে গল্পের বই পড়তাম।এখন সেটাও সম্ভব না,আম্মু পাশে বসে থাকে।ভালো থাকবেন। (নাম: মুহিব ঠিকানা:পটিয়া,চট্টগ্রাম)
উত্তর: আমি এতোবার তোমাদের বয়সী ছেলেমেয়েদের কাছ থেকে এই অভিযোগটা শুনেছি যে আমার মনে হয় রাস্তায় বসে বসে কাঁদি। যদি তোমরা আমাকে লিখে বলতে ‘আমার মা বাবা আমাকে খেতে দিচ্ছে না’ তাহলে আমি একই রকম কষ্ট পেতাম। তোমরা কীভাবে বই পড়বে সেটা তোমরা চিন্তা করে বের করে নাও, কিন্তু অন্তত নিজেকে জানিয়ে রেখো বই পড়ায় কোন দোষ নেই। যারাই পৃথিবীকে কিছু দিয়েছে তারা সবাই বই পড়ে পড়ে বড় হয়েছে।

প্রশ্ন: সার আমি আপনার ওয়েবসাইট এর প্রতিটি প্রশ্ন উত্তর মনোযোগ দিয়ে পড়ি। এখানে অনেকেই বাংলিশ লেখে। অর্থাৎ ইংরেজি অক্ষরে বাংলা লেখে। লেখতে সহজ হলেও এটা পড়া অনেক কঠিন। এজন্য আমি অনুরোধ করব আপনি সবাইকে বাংলা টাইপ করতে বলবেন। ইশতিয়াক হাসান মাধবপুর হবিগঞ্জ
উত্তর: তুমি ঠিকই বলেছ। আমিও চাই সবাই বাংলায় লিখুক, না পারলে যতটুকু পারুক ইংরেজিতে। কিন্তু ইংরেজি অক্ষরে বাংলায় না, প্লিজ প্লিজ প্লিজ, সবাই ইশতিয়াকের কথাটা শুনো!

প্রশ্ন: স্যার আমি কিছুদিন আগে গ্রামে গিয়েছিলাম। ওখানে দেখি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি শিক্ষা দেওয়া হয় না। এই জিনিসটা কি ঠিক? আমার মনে হয় না। গ্রাম হোক বা শহর কাউকেই এই শিক্ষা হতে বঞ্চিত করা উচিত নয় বলে আমি মনে করি। তারা ফেসবুক, ইউটুব, ভালোভাবেই চিনে। চান মিয়া, ব্রাহ্মণবাড়িয়া
উত্তর: স্কুল কলেজে তো তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি শিখতে হয়, না শিখে যাবে কোথায়?

প্রশ্ন: স‍্যার আদাব। কেমন আছেন? আমার জন্মদিনে অটোগ্রাফ দেওয়ার জন‍্য আপনাকে অনেক অনেক অনেক ধন‍্যবাদ। আগামীকাল ২৫/০৪/২০২১ আমার বড় ভাই দিব‍্য দে এর জন্মদিন। স‍্যার আপনি যদি উত্তরে আপনার একটি অটোগ্রাফ দেন তাহলে আমি screenshot তুলে ওকে দেখাব। তাই স‍্যার প্লিজ অটোগ্রাফ দিবেন। ও খুব খুশি হবে। ভালো থাকবেন। দেবরঞ্জন দে।

উত্তর: দিচ্ছি! (আরো ভাই-বোন থাকলে একবারে নিয়ে নাও!)

প্রশ্ন: স্যার আপনার যেকোন একটা বইয়ের পিডিফ দেবেন?
উত্তর: নাম ঠিকানা নেই তো উত্তর নেই।

প্রশ্ন: প্রশ্নটা আবার করছি! পৃথিবী থেকে চাঁদে আলো পৌঁছাতে সময় লাগে 1.33 সেকেন্ড । কিন্তু আমরা যদি একটা লম্বা খুঁটি দিয়ে পৃথিবী এবং চাঁদ সংযুক্ত করি , এবং তা দিয়ে খোঁচাখুঁচি করে মোর্স কোড টাইপের সিগন্যাল পাঠাই, তাহলে কি আলোর থেকে বেশি গতিতে তথ্য পাঠানো সম্ভব না? খুটিটা হয়তো অতিক্রম করবে কয়েক সেন্টিমিটার কিন্তু সিগন্যাল টা তো অনেক বড় দূরত্ব অতিক্রম করবে! পৃথিবী থেকে চাঁদ না হয়ে যদি আরো দূরে হয় তাহলে তো আলোর চেয়ে আরো অনেক আগে তথ্য পাঠানো যাবে। কিন্তু আমিতো পড়েছি কোন তথ্যই আলোর চেয়ে বেশি গতিতে যেতে পারে না? — জিসান, গাজীপুর !
উত্তর: তুমি যদি বিশ্বাস কর আলো থেকে বেশি গতিতে কিছু যেতে পারবে না, তাহলে কেন লাঠির শেষ মাথাটাকে আলোর গতি থেকে বেশি গতিতে চাঁদে পৌছে দিতে চাইছ? কেন তোমার লাঠিকে থিওরি অফ রিলেটিভিটি মানতে হবে না?

প্রশ্ন: স্যার সালাম নিবেন। আপনি তো বলেন গল্প বই পড়লে অনেক লাভ।কিন্তু কী লাভ হয়?গণিত-বিজ্ঞান বই পড়লে লাভ হয় সত্যি কিন্তু গল্প বই কীভাবে? রাইয়ান তাওসীফ,ঢাকা
উত্তর: তুমি যদি এটা না জান তাহলে তোমাকে কেমন করে বোঝাব বল! লাভ ক্ষতির হিসাবটা তুমি কেমন করে কর? একটা ভালো গল্পবই পড়ে দেখো তো কেমন লাগে! মনে হয় কিনা, আহা এই জীবনটা কী মধুর! সেটাকে কি লাভ মনে করা যায় না?

প্রশ্ন: স্যার,আমার বড় বোন আপনার অটোগ্রাফ নিয়েছে (তাও আবার সরাসরি)।কিন্তুু আমি নিতে পারি নাই।আমাকে একটা অটোগ্রাফ দিবেন??আমার নাম হলো মাওজুদা সাফয়াত হানি।(আমাকে ‘হানি’ নামে দিবেন)।(‘মাওজুদা সাফয়াত’ নামটা দিবেন না কারণ এই নামটা আমি দুুই চোখে দেখতে পারি না।এই নামটা এত কঠিন যে আমাকে কয়েকবার বলতে হয়,তারপর মানুষ বোঝে।)তাই আমাকে “হানি” নামে দিবেন।৭ম শ্রেণী ঠিকানাঃময়মনসিংহ


উত্তর: আমি দোয়া করছি একদিন তুমি এতো বড় একটা কাজ করবে যে সবাই মাওজুদা সাফয়াত নামটা জেনে যাবে, তখন আর কারো কাছে নামটা কঠিন মনে হবে না, একবার বললেই সবাই বুঝে যাবে! শুধু তাই না মায়েরা তোমার নামে তাদের মেয়েদের নাম রাখবে ‘মাওজুদা সাফয়াত’!! (এখন অটোগ্রাফ হানি নামেই দিলাম!)

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম, স্যার। ট্রান্সফরমার কি ডিসি ভোল্টে কাজ করতে পারে। আমি এটা ছোট ট্রান্সফরমার এর সাথে ডিসি ৫ ভোল্ট কানেক্ট করে কয়েকবার শক খেয়েছি। Wasi,dhaka
উত্তর: ‘ট্রান্সফরমার শুধু এসি ভোল্টে কাজ করে’, না বলে বলা উচিৎ প্রাইমারি অংশে ভোল্টেজের পরিবর্তন হলে সেকন্ডারি অংশে সেটা আউটপুট দেয়! এখন দেখি তুমি কেন শক খেয়েছ সেটা বুঝতে পার কিনা।

প্রশ্ন: আলোর কণা ফোটনের কোনো ভর নাই, কিন্তু ভরবেগ আছে। কিভাবে? একটু সহজ ভাষায় বুঝায়ে বলবেন কি?? সাদিক। বাগেরহাট থেকে।
উত্তর: আমার ‘পদার্থবিজ্ঞানের প্রথম পাঠ’ নামে একটা বই আছে (নেটে নিশ্চয়ই পেয়ে যাবে) তার 60 পৃষ্ঠায় উদাহরণ 3.7 এ বিষয়টা একেবারে হা বিতং করে লেখা আছে! এখানে শর্টকাটে বলতে পারি: তোমরা ভরবেগ বলতে যে ভর এবং বেগের গুনফল হিসেবে জান, সেটি পূর্নাঙ্গ নয়। রিলেটিভিটি ব্যবহার করলে শক্তি এবং ভরবেগের পূর্নাঙ্গ সম্পর্কটি পাবে, সেটা হচ্ছে, E^2 = p^2 c^2 + m^2 c^4, এখানে ভর শুন্য বসালেও তার ভরবেগ থাকে।

প্রশ্ন: Sir did you ever come in Chandpur?Will you ever come? Please please come.I’m waiting for you. Humayara Jahan Chandpur.
উত্তর: ছোট থাকতে গিয়েছি। অবশ্যই যাব একদিন, তুমি অপেক্ষা করে আছ, তোমার সাথে দেখা হবে নিশ্চয়ই।

প্রশ্ন: এতোদিন পর wikipedia থেকে আপনার website টি খুঁজে পেলাম। ধন্যবাদ স্যার এত সুন্দর একটি website খোলার জন্য। – অনন্যা দেবী, চট্টগ্রাম
উত্তর: এটা সুন্দর ওয়েব সাইট? এর থেকে জোড়াতালি দেওয়া ওয়েবসাইট দেখেছ কখনো? (মজা কী জান? এই ওয়েবসাইট হ্যাক করার জন্য কারা জানি দিন রাত চেষ্টা করে যাচ্ছে! কী আছে এখানে যে হ্যাক করে ফেলতে হবে?)

প্রশ্ন: আপনি এতো চমৎকারভাবে উত্তর দেন যে মনে হয় সব প্রশ্ন আপনাকেই করে ফেলি। কি করা যায় বলেন তো?? লাইবা তাফান্নুম, দ্বাদশ শ্রেণি, MPSC,Dhaka.
উত্তর: করো প্রশ্ন! আমি যদি পারি তাহলে আনন্দের সাথে উত্তর দেব।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার। আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন, সুস্থ আছেন এবং সুন্দর আছেন। কয়েকদিন ধরে বাংলাদেশকে নিয়ে আমার খুব চিন্তা হচ্ছে। কারণটা আজ বের করতে পেরেছি। আমাদের দেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ। এদেশের বিভিন্ন system, technology ও সুযোগ সুবিধা আগের থেকে অনেক উন্নত। কিন্তু এই উন্নয়নের ফলে বাংলাদেশের যেমন অবস্থা ছিল ঠিক তেমন অবস্থায় রয়ে গেছে। আজও বাংলাদেশে রাস্তার পাশে আজ ময়লা ফেলার dustbin দিলে কাল দেখা যায় সেটা আর নেই। চুরি হয়ে গেছে। এর জন্য কে বা কারা দাই বলতে পারেন? আমরা সবাই জানি শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড ও উন্নয়নের একমাত্র চাবিকাঠি। তাই আমার মতে দাই আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা। আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা আমাদের তোতা পাখি ছাড়া আর কিছু বানাতে পরে না। একজন দায়িত্বশীল citizen হওয়ার কোনো কিছুই তারা আমাদের শেখাতে পরে না। আমার বিশ্বাস আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থাই আমাদের ও বাংলাদেশের ক্ষতি করছে এবং করে যাচ্ছে। আমার প্রশ্ন হচ্ছে আপনার কী মনে হয় আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা ঠিক কেমন হওয়া উচিৎ? (এতোক্ষণ এত বক বক করার জন্য দুঃখিত আর এতোক্ষণ এত ধর্য করে পুরোটা পড়ার জন্য অনেক অনেক thanks) আমি তানজিলা আর ঠিকানা……(যেদিন বলবেন আমাদের বাসায় বেড়াতে আসবেন সেদিনই আমার ঠিকানা বলবো)
উত্তর: আমরা তো সেই পাকিস্তান থেকে ৭১ দিয়ে বাংলাদেশ হওয়া দেখেছি তাই আমদের বেশি কিছু চাওয়ার নেই। আমরা অল্পতেই মহাখুশি থাকি। আমি যখন দেখি ময়লা ফেলার ডাস্টবিন কেউ চুরি করে নিয়ে গেছে তখন আমি খুক খুক করে হেসে ফেলি, মনে হয় বেচারা চোরটা কত বোকা, কত কষ্ট করে কত বিপদের ঝুকি নিয়ে এটা চুরি করেছে, এর থেকে কত কম কষ্ট করে কিছু টাকা পেতে পারতো। যাই হোক বেচারা হয়তো তার বাচ্চা কাচ্চাকে এই টাকা দিয়ে কিছু একটা কিনে দিয়েছে। মেজাজটা গরম হয় যখন দেখি বড়লোকেরা হাজার কোটি টাকা চুরি করে, কানাডায় বাড়ি কিনে বড় বড় কথা বলে, দেশটা রসাতলে যাচ্ছে সেটা নিয়ে হা হুতাশ করে! আর লেখাপড়াটা তো নিজের উপর।সেই জন্ম থেকে একই রকম দেখে আসছি, এই কুৎসিত সিস্টেমের ভেতর থেকে কিছু কিছু ছেলেমেয়ে ঠিকভাবে পড়াশোনা করে, তাদের কেউ কেউ বোকার মত দেশকে ভালোবেসে দেশে থেকে দেশের জন্য কাজও করে, দেশটা তাই হাজার ঝড় ঝাপটার মাঝেও মাথা তুলে দাঁড়ায়।

প্রশ্ন: স্যার, পুরো ভূপৃষ্ঠে কী alien নামক কোনো জীব সত্যিই আছে? চট্টগ্রাম থেকে সাহিরা।
উত্তর: তুমি কি ভূপৃষ্ঠ বলতে চেয়েছ, নাকি বিশ্বব্রহ্মাণ্ড বলতে চেয়েছ? এখন পর্যন্ত কোথাও এলিয়েনের দেখা কেউ পায়নি। যদি পায় সেটা নিয়ে এতো হইচই হবে যে তোমার ঘুম নষ্ট হয়ে যাবে!

প্রশ্ন: স্যার, এই ওয়েবসাইটে সময় কাটানোকে সময় নষ্ট করা বলে উল্লেখ কেন করেছেন? 🙁 [ওয়েবসাইটি অনেক সুন্দর। প্রশ্নের উত্তরগুলো পড়তে ভালো লাগে অনেক। অনেক ধন্যবাদ এতটা আন্তরিক হওয়ার জন্য:)] নামঃলাইবা, ঠিকানাঃঃ ঢাকা উদ্দান, ঢাকা।
উত্তর: আমি তো পুরানা মডেলের মানুষ, তাই কেউ যদি গাছ পাখি আকাশ মেঘ মানুষ এসব না দেখে একটা স্ক্রিনের দিকে তাকায় তাহলেই আমার মনে হয় সে সময় নষ্ট করছে! ছোট একটা জীবন, সেটা এই স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে শেষ করে দেবে? বই পড়লে তবু তো কল্পনা করে অন্য একটা জগতে যেতে পারে, স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে কোথায় যাবে?

প্রশ্ন: স্যার, আপনি কি আর আসবেন না? —লাইবা তাফান্নুম( সবার পক্ষ হতে)
উত্তর: এই যে এসেছি। যদি না আসি বুঝে নেবে মানুষটা নিশ্চয়ই পরিবারের কারো কোভিড নিয়ে ব্যস্ত আছে, তা না হলে বড়দের যে সমস্ত খুবই বোরিং কাজ করতে হয় সেরকম কিছু একটা করতে করতে সময় পাচ্ছে না!

প্রশ্ন: স্যার, আপনি ইফতারি তে কি খেতে পছন্দ করেন? ভাজা পোড়া নাকি অন্য কিছু? আরেকটি প্রশ্ন, আপনার লিখা বই এর মধ্যে আপনার সবচেয়ে প্রিয় কোনটি? (শাফায়েত, চট্টগ্রাম)
উত্তর: ইশ! ইফতারির কথা মনে করে দুর্বল করে দিলে! পছন্দের ইফতারি হচ্ছে, পেঁয়াজো, ছোলাভাজার সাথে মুড়ি সবশেষে রসে টসটসে মুচমুচে একটা বিশাল নাদুস নুদুস জিলাপী! (নিজের বইয়ের প্রিয় আর অপ্রিয় বের করা খুব কঠিন! ‘আমার বন্ধু রাশেদ’ বইটা একটা প্রয়োজনীয় বই বলতে পার।)

প্রশ্ন: আমাক্র একটা অটোগ্রাফ দিন প্লিজ। লিখবেন, জারা ও ওয়াদিকে অনেক শুভেচ্ছা নিচে আপনার সুন্দর নাম (মানে, অটোগ্রাফ) রুম্মান জারা। চাঁদপুর


উত্তর: দিচ্ছি। ঠিক যেভাবে তুমি বলেছ, সেভাবে!

প্রশ্ন: শ্রদ্ধেয় মুহম্মদ জাফর ইকবাল স্যার, আসসালাম ওয়ালাইকুম। আশা করি ভাল আছেন। কোনো কিছু লিখতে হলে কিভাবে শুরু করতে হয় সেটা আমি খুব ভালোমতো জানিনা। তাই নিজের মতো করেই লিখলাম : আমি অষ্টম শ্রেণীতে পড়ি। অনেক দিন থেকেই আমি আপনার সাথে কথা বলার জন্য আকুল হয়ে ছিলাম। অনেক খোঁজাখঁজির পর এই ওয়েবসাইটটি পেলাম। আর যখন দেখলাম এখানে আমার প্রিয় লেখককে প্রশ্ন করা যাবে, তখন আমার আনন্দ দেখে কে ? কিছুক্ষণ চোখ বুলিয়ে দেখলাম অনেকে আপনার কাছে অটোগ্রাফ চেয়েছে। স্যার, আমি কিন্তু অটোগ্রাফের জন্য লিখছিনা ( যদিও অটোগ্রাফের জন্য মনটা খুত খুত করছে )। যদি এমন হতো, বইমেলায় গিয়ে দেখি আপনি কোনো স্টলে বসে আছেন, তাহলে আমি আপনার সামনে পাঁচ – ছয়টা বই ছড়িয়ে দিতাম অটোগ্রাফের জন্য ( যদিও আমি আপনাকে কখনো সামনাসামনি দেখিনি। যদি দেখতাম, তাহলে এমনটাই করতাম )। সেই অটোগ্রাফের মূল্যই আলাদা। সারা জীবন বই গুলো আমার সাথে থাকবে। আর বই খুললেই প্রথমেই সেই স্মৃতি জড়ানো অটোগ্রাফগুলো আমার চোখে পড়বে। আমার বুকটা তখন আনন্দে ভরে উঠবে।
… … … ……
আমার মনের মধ্যে যেটা এসেছে, আমি তাই লিখেছি। সেজন্য লেখাটা এত বড় হয়ে গেছে। আপনি ধৈর্য্য ধরে পড়তে পারবেন কিনা জানি না। আপনাকে আমি আরও অনেক কিছু লিখব ( পরবর্তীতে )। সেজন্য অপেক্ষায় থাকবেন। আজ এখানেই শেষ করতে চাই। স্যার, এমন কিছু যদি লিখে থাকি যেটা পড়ে আপনার মন খারাপ হয়েছে, তাহলে প্লিজ আমাকে ক্ষমা করে দিবেন। মো: মোস্তাশিরুল হক মাহিন ভূইগড়, নারায়ণগঞ্জ ২১.০৪.২০২১ পুনশ্চ : স্যার, অটোগ্রাফের বিষয়টা পুনরায় ভেবে দেখলে বোধহয় মন্দ হয় না ( হি হি হি )!


উত্তর: ঠিক আছে, অটোগ্রাফের বিষয়টা পুনরায় ভেবে দেখলাম! সরাসরি না চেয়ে নানা ধরনের আকার ইঙ্গিত দিয়ে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য একটা অটোগ্রাফ দিচ্ছি! তোমার প্রশ্নটি সাইজে অনেকটুকু বড় সেজন্যে কাটছাট করে একটু ছোট করতে হল। তবে ভয় নেই আমি পুরোটা পড়েছি এবং বেশ মজা পেয়েছি। তবে গায়ে পড়ে একটু উপদেশ দিই, কখনো নিজের টাকা খরচ করে বই ছাপাবে না। পাবলিশাররা যখন তাদের নিজেদের টাকা খরচ করে তোমার বই ছাপাবে তখন বুঝবে তোমার লেখালেখি অন্যদের পড়ার উপযোগী হয়েছে। কিন্তু লেখালেখি করে পত্রপত্রিকা ম্যাগাজিনে ছাপাতে কোনো সমস্যা নেই। সেটা করতে থাকো। (আমার প্রথম বই ছাপা হয়েছে যখন আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি। কাজেই কোনো তাড়াহুড়া নেই!)

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম, স্যার। আপনার সাথে যোগাযোগের অনেক চেষ্টা করেছি। কিন্তু আপনার আগের সাস্টের ই মেইল ঠিকানায় আপনাকে পাইনা। স্যার, আমাদের কিছু কাচ্চাবাচ্চার বইখোর নামে একটা বাচ্চা সংগঠন আছে। আমরা আমাদের ফেসবুক পেইজ থেকে আপনার সাথে লাইভে আড্ডা দিতে চাই।আপনি কি প্লিজ আপনার জীবন থেকে একটা ঘণ্টা আমাদেরকে দিবেন। আমরা বাচ্চা বলে কেউ আমাদেরকে পাত্তা দিতে চায়না। সবাই হাই প্ল্যাটফর্ম খুঁজে। আমার ই মেইল ঠিকানা: … … …
উত্তর: কম্পিউটারের একটা ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে নিজেকে বোঝাতে হবে আমি অনেক মানুষের দিকে তাকিয়ে আছি সেটা কয়েকবার করে আমার জীবন অতিষ্ঠ হয়ে গেছে। সেই থেকে আমি সবাইকে বলে দিয়েছি যে আমি এগুলোতে আর যাচ্ছি না। যে সমস্ত মিটিং না করলে দুনিয়া অচল হয়ে যাবে সেগুলো ছাড়া আর কোনো ভারচুয়াল মিটিংয়ে যাই না। বেয়াদপ কোভিড বিদায় হোক, তখন আমি আবার সত্যিকারের মানুষের দিকে তাকিয়ে তাদের সাথে কথা বলতে যাব!

প্রশ্ন: স্যার, আমি এবার প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ ফিজিক্স অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করছি । এবার তো তিন ধাপে অলিম্পিয়াডটি হবে- বাছাই, আঞ্চলিক ও জাতীয় পর্ব । আমি যেন তিন ধাপেই সিলেক্টেড হতে পারি, সেই দোয়া করবেন । আমার প্রস্তুতি প্রথমবার হিসেবে খুব ভালো । ধন্যবাদ ! নাবিল ইয়াসিন, কুষ্টিয়া জিলা স্কুল ।
উত্তর: চমৎকার! এই প্রথম একজনকে পেলাম যে আত্মবিশ্বাস নিয়ে বলেছে ‘আমার প্রস্তুতি খুব ভালো’। আমাকে জানিও কেমন হয়েছে তোমার অলিম্পিয়াড!

প্রশ্ন: স্যার, লাল সালাম। বাংলাদেশে কমিউনিজম এর কি কোন ভবিষ্যৎ আছে? এটা কে এদেশে এত অপছন্দ করা হয় কেন? সুমাইয়া, ঢাকা বাংলাদেশ।
উত্তর: অনেকদিন পর একটা লাল সালাম পেলাম। তোমাকেও একটা লাল সালাম! তোমার প্রশ্নটা খুব জটিল, এই ওয়েবসাইটে দেওয়া শুরু করলে বাচ্চারা বিরক্ত হয়ে যাবে। তবে এইটুকু বলতে পারি বামপন্থী রাজনৈতিক দলগুলোর একটা আদর্শিক শক্তি আছে যেটা আমাদের দেশের জন্য খুব দরকার।

প্রশ্ন: what do you think about wikipedia ? Md Sabit, Khulna.
উত্তর: প্রায় প্রতিদিনই আমার কোনো না কোনো কাজে উইকিপিডিয়া ব্যবহার করতে হয়।

প্রশ্ন: Sir, did you know that the young generation of Bangladesh has forgotten 71? They say that the history is wrong and not so many poeple were killed. They also say we shouldn’t execute Rajakars(pro Pakistani Bihari). They love Pakistan in the name of muslim brotherhood. They also hate Sheikh Mujib. And call him a traitor. How do I know? I’m a part of this generation. What’d you say on this? Samiya, Dhaka, Bangladesh.
উত্তর: হায় হায় হায়! তুমি এই কোন আজব চীজদের সাথে ঘোরাফেরা করো? তোমার কোনো কাজকর্ম নাই? ওদের সাথে সময় কাটালে সবসময় বাসায় এসে সাবান দিয়ে গোসল করবে!

প্রশ্ন: স্যার সালাম নিবেন। আশাকরি ভালো আছেন।আপনি আমার ভালোলাগা একজন পারসন। কারন আপনি একজন বিদ্বান যিনি স্রোতের বীপরীতে চলেন এবং একজন মুক্তিযুদ্ধার সন্তান যিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ছড়িয়ে দিতে চান। আমি আমার ছোট ভাই বোনদের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে কী কী বই পড়াতে পারি।…..মীর মুহম্মদ আসআদ জামিয়া ইকরা বাংলাদেশ।
উত্তর: আমার এই ওয়েব সাইটে বাচ্চাদের জন্য কয়েকটা বই দেওয়া আছে সেগুলো কী পড়া হয়ে গেছে? জাহানারা ইমামমের একাত্তরের দিনগুলি একটা ভালো বই।

প্রশ্ন: sir,ami jiyad hossain.bari khulna.apni tukunjil boi te arkimidiser sutro dia je prosnota koresen tar uttorer bistarito bakkata bolben, please.bakkata ganitik o sadharon dristi vongite bolben ,please jate sadharon manuso bujhte pare
উত্তর: উঁহু! এটা আমি কখনো বলব না। চিন্তা করে বের করতে হবে। প্রশ্নের উত্তর কখনো জেনে নিতে হয় না, প্রশ্নের উত্তর বের করতে হয়!

প্রশ্ন: স্যার,আদব। আমি এখন নবম শ্রেণীতে বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে পরছি। আমি চতুর্থ বিষয় হিসেবে চারু ও কারুকলা নিতে চাই । কিন্তু আমি জানি না এই বিজ্ঞান বিভাগে পড়তে হলে HSC তে কি চতুর্থ বিষয় হিসেবে চারু ও কারুকলা নেওয়া যাবে কি না। নাম প্রকাশ করায় অনিচছুক,,, ***** ,from Dhaka
উত্তর: আমি আসলে ঠিক জানি না। তবে আমার ধারণা চতুর্থ বিষয় হিসেবে চারু ও কারুকলা না নিলেও কোনো সমস্যা হওয়ার কথা না। বড় কথা হচ্ছে এই বিষয়ে তোমার দক্ষতা আছে কিনা।

প্রশ্ন: হাসিন, ঢাকা। স্যার আপনি সবাইকে যেহেতু অটোগ্রাফ দিচ্ছেন আমাকেও স্যার একটা দিবেন। প্লিজ স্যার!


উত্তর: ঠিক আছে। দিচ্ছি। খুশি?

প্রশ্ন: স্যার, আমার নাম তাপসী। আমি রাজশাহীতে থাকি। মার্চে আমি আপনাকে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যু আর বাংলাদেশের বাকস্বাধীনতা নিয়ে একটা প্রশ্ন করেছিলাম…পরিচয় না দেয়ার কারণে আপনি হয়তোবা উত্তর দেননি, কিন্তু স্যার আপনি জানেন না যে আপনার উত্তরের জন্য আমি কতটা মুখিয়ে রয়েছি। স্যার, সাইটে যদি উত্তর দিতে অসুবিধা হয়, তাহলে আমাকে ইমেইল করেন স্যার প্লিজ …স্যার,…
উত্তর: বিষয়টা আমাকে খুব কষ্ট দিয়েছে। আমি পত্রপত্রিকায় লেখলেখি করা ছেড়ে দিয়েছি বলে এই বিষয়ে কিছু লিখা হয়নি। মনে হচ্ছে শুধু এটা নিয়ে আমার কষ্টটা প্রকাশ করার জন্য হলেও একবার লিখতে হবে। নিজেকে খুব দোষী মনে হচ্ছে।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার, কেমন আছেন? আমি আপনার ওয়েবসাইটে প্রায়ই ঢুকি। এর আগেও আপনি আমার প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন। আপনি ওয়েবসাইটে অনেকেই অটোগ্রাফ দিয়েছেন। কিন্তু আমার যদি কখনো আপনার সাথে দেখা করার সুযোগ হয়, তবে আমি আপনার অটোগ্রাফ নিবই নিব। আমি আপনার অনেক বই পড়ি। আপনার লেখা ‘ চার বন্ধু’ আমার প্রথম পড়া বই। আপনার ২০২১ সালের বই গুলো ফাটাফাটি। বিশেষ করে ‘টুনটুনি ও ছোটাচ্চু’ এটা আমার প্রিয় বই। স্যার, আমার কাজিন আপনার সাথে ছবি তুলে ফেসবুকে আপলোড করেছিল তখন থেকে আমার খুব মন খারাপ। জারিফ মুশরারাত মায়িশা, বগুড়া-৫৮০০।
উত্তর: আমিও তোমাকে অটোগ্রাফ দিবই দিব। আজ থেকেই পকেটে বল পয়েন্ট কলম নিয়ে ঘুরতে থাকব, তোমার সাথে দেখা হওয়া মাত্রই অটোগ্রাফ দিয়ে দেব। তোমার কাজিনের সাথে প্রতিযোগিতায় তুমি যেন হেরে না যাও সেজন্য তুমি চাইলে আমরা ছবিও তুলে ফেলব। ঠিক আছে?

প্রশ্ন: স্যার দশম শ্রেণীতে অধ্যয়নকালে আপনাকে প্রশ্ন করেছিলাম উত্তর পাইনি।এখন স্নাতকে অধ্যয়নরত।একটি অটোগ্রাফ কি পাব স্যার? রেদওয়ান বিন আখতার মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদ হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, দিনাজপুর।


উত্তর: মনে হয় আরো কিছুদিন অপেক্ষা করা উচিৎ! তাহলে তুমি বলতে পারবে ‘স্যার দশম শ্রেণীতে অধ্যয়নকালে আপনাকে প্রশ্ন করেছিলাম উত্তর পাইনি। এখন বিবাহ করেছি একটা বাচ্চাও আছে…’ (দিচ্ছি অটোগ্রাফ!)

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার। মাহে রমজানের শুভেচ্ছা রইল। কেমন আছেন আপনি? আমাকে চিনেছেন? আমি আপনার সেই গোপন ক্ষুদে ভক্ত। আসলে সেইবার আমার নামটা গোপন রাখতে ভাইয়া বলেছিল। ও বলেছিল, ‘আগে দেখ ওয়েবসাইট ভুয়া নাকি। প্রথম উত্তর পেলে পরেরবার পরিচয় দিবি। না হলে নাই।’ তাই পরেরবার আমার পরিচয় দেবার পালা। আমার নাম তানজিলা ইসলাম। ঠিকানা চট্টগ্রাম। আমাদের দেশে তো book addiction আর computer game addiction এক রকমই ক্ষতিকর হিসেবে ধরা হয়। কিন্তু আমি মনে করি book addiction computer game addiction থেকে হাজার গুণ ভালো। এই নিয়ে আপনার মতামত জানতে চাই। আর হ্যা আপনার Gmail account টা একটু দেবেন প্লিজ। আমি একটা গোয়েন্দা গল্প লিখেছি ‘আংটি রহস্য’। আমার লিখা প্রথম গল্প। আপনাকে পাঠানোর জন্য আপনার Gmail account টা খুবই দরকার। (আমি জানি আপনার Gmail account খুঁজে বের করা তেমন কঠিন কিছু না কিন্তু আমার জন্য এটা খুব কঠিন কাজ। তাই দয়াকরে আপনার Gmail account টা দেবেন)। (আমি এই প্রশ্নটা একবার লিখছিলাম কিন্তু নাম ঠিকানা লিখতে ভুলে গেছিলাম। তাই আবার লিখলাম)।
উত্তর: addiction শব্দটা খারাপ, একটা ভালো কাজ বোঝানোর জন্য এই শব্দটা ব্যবহার করা একেবারেই ঠিক না। এরপর শুনব কেউ বলছে সত্যবাদিতায় addiction কিংবা মহত্বে addiction কিংবা বুদ্ধিমত্ত্বায় addiction কিংবা সৃজনশীলতায় addiction!! তুমি নিশ্চিন্তে বই পড়, দেশের পাগল ছাগল কী বলে সেটা নিয়ে তোমার মোটেও দুর্ভাবনা করতে হবে না। তোমাকে আরও একটা জিনিষ শিখিয়ে দেই। মানুষকে অবিশ্বাস করে সবসময় দুর্ভাবনা করার থেকে সবাইকে বিশ্বাস করে ঠকে যাওয়া অনেক ভালো। জীবনটা তাহলে বেশি আনন্দের হয়। (আমার ইমেইল একাউন্ট নিজে খুঁজে বের করতে হবে, সরি!)

প্রশ্ন: স্যার আদাব। আমার প্রশ্নের উত্তর দেওয়ায় অসংখ্য ধন্যবাদ। স্যার আমি আমার সব বন্ধুর সাথে সমান বন্ধুত্বসুলভ আচরণ করি কিন্তু তারা বলে যে আমি কোনো ফ্রেন্ড সার্কেলে থাকিনা। সবাই এই করোনার সময়ে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে বাইরে ঘুরে বেড়ায়, পড়াশোনা বাদ দিয়ে … … সেটা ফ্রেন্ড সার্কেল। সেটা না করে আমি বাড়িতে পড়াশোনা করি গল্পের বই পড়ি মাকে কাজে সাহায্য করি। তাই আমি মায়ের আঁচলের তলায় লুকিয়ে থাকি এই কথাটা শুনতে হয়।আমি জানি বন্ধুদের সর্ম্পকে বলা মানে নিজের সর্ম্পকে বলা তবুও আমি জানতে চাই আমি কীভাবে ওদের ভুল ভাঙাবো? বাবা_মাকে বললে তারা মন খারাপ করবে বলে আমি আপনাকে জিঙ্গাসা করলাম। _সুস্মিতা,নাটোর
উত্তর: যদি ভুল থাকে তখন ভুল ভাঙ্গাতে হয়। যদি ভুল না থাকে সেটা কেমন করে ভাঙ্গাবে? তুমি যেটা করছ সেটা তুমি যদি মনে কর ভুল না, তাহলে তোমার এতো দুর্ভাবনা কেন? দেখতে দেখতে এই কোভিড যন্ত্রণা শেষ হয়ে যাবে তখন সবাই মিলে আগের জীবনে ফিরে যেতে পারবে।

প্রশ্ন: স্যার, ঘোস্ট রাইটিং জিনিসটা আপনার কাছে কেমন লাগে? বা আপনার মতামত কি এর প্রতি…আপনার কাছের কেউ করেছে এমন? -প্রত্যয় (জামালপুর)
উত্তর: তোমার প্রশ্নটা অনেকটা এরকম, ‘স্যার, প্রতারণা জিনিসটা আপনার কাছে কেমন লাগে?’ তুমিই বল, আমি কী উত্তর দিব?

প্রশ্ন: শ্রদ্ধেয় স্যার, আমি ছোটবেলা থেকে আপনার বই পড়ে পদার্থবিজ্ঞান ভালবাসতে শিখেছি। তখন থেকে মনছবি দেখতাম ঢাবিতে পদার্থবিজ্ঞানে পড়ব( আপনাকে আইডল মেনে)। আমি ঢাবিতে পদার্থবিজ্ঞানে স্নাতকে ভর্তি হয়েছি এক বছর হল। কিন্তু এ বিভাগে সবসময় শিক্ষকদের নেতিবাচক ও অত্যন্ত খারাপ আচরণ এবং তার ফলে মাত্র 24% পাশ রেটের খবর জেনে আমার এখন অত্যন্ত হতাশ লাগে। ঢাবির এ বিভাগে নাকি কেউ পড়তে চায় না এসব কারণে।শিক্ষকদের এমন আচরণে প্রায়ই মনে হয় আমি কি আসলেই পদার্থবিজ্ঞান ভালবাসি? ছোটবেলা থেকে আমার যে মনছবি, যে জগত-বিশ্বাস , তা এখন ওলটপালট লাগে। আমার এখন জানতে ইচ্ছা করে এখানে আপনি ও ড.ইয়াসমীন ম্যাম কীভাবে পড়ালেখা করেছিলেন? আপনার লেখা পড়ে কেন পদার্থবিজ্ঞানীদের জীবন এত সুন্দর মনে হয়েছিল তখন আমার? দয়া করে উত্তর দেবেন, স্যার। বিনতে, ঢাকা।
উত্তর: শোনো, তোমাকে বলি। পদার্থ বিজ্ঞান এখনো সুন্দর আছে। সত্যি কথা বলতে কি এই মুহূর্তে পদার্থ বিজ্ঞানের এতোগুলো চমকপ্রদ আবিষ্কার হয়েছে যে আমি নিজের চোখে সেগুলো দেখতে পারছি বলে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে হচ্ছে। কিন্তু দুঃখের ব্যাপার হচ্ছে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পচে গলে শেষ হয়ে গেছে। তুমি যে অভিযোগ করেছ সেটা শুধু তোমার বিভাগ কিংবা তোমার বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য সত্যি নয়। মোটামুটি সব বিশ্ববিদ্যালয়ের সব বিভাগের জন্য সত্যি। যদি সত্যি না হতো তাহলে সারা পৃথিবীর প্রথম কয়েক হাজার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতর আমাদের কোনো বিশ্ববিদ্যালয় নেই কেন? সেটা নিয়ে কারো ভেতরে কোনো লজ্জা নেই কেন? কাজেই ছাত্রজীবনে আমি যেটা করেছি তোমাকেও সেটা করতে বলি, বসে বসে রেজনিক হ্যালিডে বইয়ের যত প্রবলেম আছে সেগুলো সলভ করতে থাকো। তোমার চারপাশে যা হচ্ছে সেটা হতে থাকুক, তুমি চোখ তুলেও তাকাবে না। দেখবে দেখতে দেখতে তোমার চারপাশের জগৎটা সুন্দর হয়ে যাবে।

প্রশ্ন: স‍্যার প্লীজ আমার নাম লিখে একটা অটোগ্রাফ দিন। নাম: তাহমিদ জামান চৌধুরী। একটা জিনিস খেয়াল করেছেন যে, আমি আপনার কথা মতো বাংলায় লিখেছি? অ-নে-ক সময় লাগল।


উত্তর: থ্যাঙ্ক ইউ থ্যাঙ্ক ইউ থ্যাঙ্ক ইউ … … … যে তুমি আমার কথা শুনে বাংলায় লিখেছ। এই যে অটোগ্রাফ।

প্রশ্ন: স্যার , আজকে আমার আপনার একটা অটোগ্রাফ চাই ই চাই।‌ আমাকে একটা অটোগ্রাফ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ দিবেন। অনেক কষ্ট করে বাংলা লিখেছি। কারণ আপনি বাংলা ইংরেজিতে লেখা পছন্দ করেন না। নূহা মগবাজার, ঢাকা


উত্তর: তোমাকেও থ্যাঙ্ক ইউ থ্যাঙ্ক ইউ থ্যাঙ্ক ইউ … … … যে তুমি বাংলায় লিখেছ। তোমার জন্যেও অটোগ্রাফ!

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার। আমি *****, ঢাকা থেকে বলছি। আগেরবার আমার প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন সেজন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আমি যে কতোটা খুশি হয়েছি তা আপনাকে বলে বোঝাতে পারব না। থ্যাঙ্কু! আজকে আমি আপনাকে ছোট ছোট কয়েকটা প্রশ্ন করব। * ‘স্কুলের পড়াশোনা’র জন্য দিনের কতটুকু সময় ব্যয় করা উচিত? * বাসায় বসে থেকে দিন দিন আমি কেমন জানি খিটখিটে স্বভাবের হয়ে যাচ্ছি। সারাদিন হাসিখুশি থাকার কোনো উপায় আছে? * আপনার যখন খুব মন খারাপ হয়, তখন আপনি কী করেন? এতক্ষণ ধৈর্য ধরে আমার লেখা পড়ার জন্য আপনাকে আবারো থ্যাঙ্কু! সময় থাকলে প্লিজ কষ্ট করে আমাকে একটা উত্তর দিবেন। আর ভালো থাকবেন স্যার, আল্লাহ হাফেজ। (পুনশ্চ: দয়া করে নাম গোপন রাখবেন, প্লিজ!!!)
উত্তর: পড়াশোনার জন্য কত সময় ব্যয় করতে হয়, সেটার মনে হয় কোনো বাধাধরা নিয়ম নেই। তবে প্রত্যেকদিন নিয়ম করে পড়াশোনা করার অভ্যাসটা মনে হয় ভালো। আমাদের জীবনের সাথে তোমাদের জীবনের কোনো মিল নেই, আমরা নিজেরা পড়েছি, আমাদের অন্য একশটা কাজ করার সময় ছিল। তোমাদে্র প্রজন্ম দেখি নিজেরা পড়তে পারে না, তারা কোচিং করে, তাদের আনন্দ করার সময় পর্যন্ত নেই। বাসায় বসে থেকে খিটখিটে হয়ে যাচ্ছ শুনে হাসি পাচ্ছে। বাসায় ‘বসে’ থাকবে কেন? কাজ কর! বই পড়, ছবি আঁক, উপন্যাস লিখ, প্রোগ্রামিং কর, কাজের কী অভাব আছে? আমার যতবার খুব মন খারাপ হয়েছে তখন তার কারণ ছিল, মন খারাপ হওয়ার মত কিছু ঘটেছে, তখন মন খারাপ করে থেকেছি। আপনজনের সাথে কষ্টটা ভাগাভাগি করেছি। মানুষকে বেঁচে থাকতে হলে তার ভাগের দুঃখটা পেতে হবে না?

প্রশ্ন: স্যার, মহাকর্ষ যেহেতু কোনো বল না (আপেক্ষিকতা অনুসারে) তাহলে মৌলিক বল নিশ্চই দুই প্রকার (ইলেক্ট্রো-উইক এবং নিউক্লিয়ার বল) হওয়ার কথা। কিন্তু বইয়ে পড়লাম তিন প্রকার। কেন? সাদিক। বাগেরহাট থেকে…
উত্তর: জ্যামিতি দিয়ে মহাকর্ষ ব্যাখ্যা করা যায় সেটা সত্যি, কিন্তু জ্যামিতি করার জন্য স্পেসটা বাঁকা হয় কেমন করে?

প্রশ্ন: বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা কখনো কি ইউরোপ, আমেরিকার শিক্ষার আদলে করা সম্ভব হবে? মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা পদ্ধতি হাল আমলের হলেও উচ্চ শিক্ষা কেন হাল আমলের মত হবে না? নাফিস সাদিক পরাগ মুক্তাগাছা, ময়মনসিংহ বিএসসি ইন ইইই আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ
উত্তর: তোমাকে একটা তথ্য দিয়ে রাখি, আমেরিকার সাধারণ স্কুলের লেখাপড়া কিন্তু খুবই খারাপ। খবরের কাগজে দেখ না, মাঝে মাঝেই একজন ছাত্র গুলি করে অন্য ছাত্রদের মেরে ফেলছে? শুধু বড়লোকেরা ভালো শিক্ষা পায়! ইউরোপ মনে হয় ভালো, কিন্তু আমাদের তো ওই সব দেশের মত দরকার নেই, আমাদের দরকার আমাদের দেশের মত পড়াশোনা।

প্রশ্ন: প্রিয় স্যার, ঈদের শুভেচ্ছা। আমার কোনো বন্ধু নেই। ক্লাসে আমার রোল দুই তারপরেও আমার সাথে কেউ মেশে না। আমার সহপাঠীদের মধ্যে আমার মতো ভাবে এমন আর কেউ নেই। আমি তাদের থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন। তারা অনেকে একই এলাকাতে থাকে বলে তাদের মধ্যে ভাব। আমার এলাকায় আমার কোনো সহপাঠী থাকে না। তারা অ্যানিমে, ফুটবল, রেসলিং, হলিউড, ফেসবুক এইসব নিয়ে মেতে থাকে। আমার এইসব ভালো লাগে না। তাদের মধ্যে আমিই একমাত্র বইপড়ুয়া। আমি তাদের সাথে মিশতে চেষ্টা করেছি। তারা যা পছন্দ করে তা করা যেমন হলিউড মুভি আর অ্যানিমে দেখা। কিন্তু তাও কিছু হয় না। পক্ষান্তরে আমি কোনো খেলা বুঝি না আর পারিও না। তারা আমার থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। আর যতই আমি আমার মতো থাকি, মাঝে মাঝে আমার কোনো বন্ধু নেই বলে খুব খারাপ লাগে। এখন আমি কী করবো? *******, অষ্টম শ্রেণি, ******** ঢাকা। (আমার কোনো সহপাঠী দেখে ফেলতে পারে তাই অনুগ্রহ করে নাম-ঠিকানা গোপন রাখুন)
উত্তর: ওগুলো নিয়ে বেশি মাথা ঘামিও না। কেউ কেউ এরকম হয়, যারা অন্যদের থেকে ভিন্ন বলে ঠিক বন্ধু খুঁজে পায় না। কিন্তু চোখ কান খোলা রাখো, হয়তো তুমিও বই পড়ুয়া একজন পেয়ে যাবে। মনের মত একটা সংগঠন খুঁজে তার জন্য ভলান্টারি কাজ শুরু কর, তখন সমমনা অনেককে পাবে। সবচেয়ে বড় কথা তোমার যে খুবই বিশ্বস্ত প্রাণের বন্ধু আছে সেটা অন্যদের কারো নেই, সেটা হচ্ছে বই!

প্রশ্ন: স্যার, আমি করোনায় স্কুল বন্ধ হওয়া থেকে আজ পর্যন্ত 259 টা বই পড়েছি ! আপনি কয়টা পড়েছেন ? নাবিল ইয়াসিন ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজ ।
উত্তর: কী সাংঘাতিক ব্যাপার! 259 টা বই? তোমাকে তো একটা পুরস্কার দেওয়া দরকার! কোন বইটা সবচেয়ে ভালো লেগেছে? আমি হয়তো গোটা বিশেক বই পড়েছি, তবে আমি অনেক লিখেছি। অনেক ছবি এঁকেছি। অনেক মিটিং করেছি, যেগুলো তোমাকে করতে হয়নি!

প্রশ্ন: স্যার, আপনি কি অলুক্ষুণে,অপয়া এই ধরনের বিষয়গুলোতে বিশ্বাসী? -মৌন,সপ্তম শ্রেণী,নওগাঁ।
উত্তর: তোমার কী মনে হয়, এই জিনিষগুলো কি বিশ্বাস করার মত জিনিষ? তুমি কি বিশ্বাস কর?

নববর্ষ ১৪২৮

প্রশ্ন: স্যার ,আমার নাম লিখে আপনার একটু অটোগ্রাফ দিবেন প্লিজ? নাম : মাহির তাজুয়ার আকাশ ঠিকানা : কুমিল্লা


উত্তর: এইযে দিলাম। খুশি?

প্রশ্ন: প্রিয় স্যার, অনেকদিন হলো আমি ঘর থেকে বেরোই না।মাঝে মাঝে সামনের বারান্দাটায় গিয়ে দাড়াই। গাড়ি ঘোড়া, মানুষজন দেখি। ভালোই লাগে। মাঝে মাঝে দিনটা খুব মেঘলা থাকে। এমন দিনে যদি হঠাৎ বারান্দায় যাই, দমকা এক হাওয়া এসে ধাক্কা দেয়। মৃদু ঠান্ডা মোলায়েম সে হাওয়া।বাতাসে আমার চুলগুলো এলোমেলো উড়তে থাকে। সামনের আধমরা করলা গাছের ঝাড়টা কেমন হালকা দুলতে থাকে। হিলহিলে নিমগাছটা কেমন দুঃখী মানুষের মতো এপাশ ওপাশ করে। আকাশটাতে ছাই রঙা মেঘেদের আনাগোনা বাড়তে থাকে। তখন কেন জানি উপরে তাকালেই মনটা খারাপ হয়ে যায়। কী যেন মনে আসতে চেয়েও আসে না। দূর অতীতের কোন স্মৃতি। সেটা মধুর নাকি মন খারাপের তা আমি জানি না। আমার কিছুই আর ভালোলাগে না। শুধু মনে হয়, একটা টুল এনে এই ঝড়ো হাওয়ার মাঝে এসে বসে থাকি। কোমল ঠান্ডা বাতাস যখন গায়ে এসে লাগে, মনে হয় যুগের পর যুগ এভাবেই বসে থাকি। কেন এরকম হয়, স্যার? আমার কী মনে পড়তে এসেও মনে পড়ে না? মানুষের জীবনটা এমন কেন? কেন এত কষ্ট হয় মানুষের? অকারণে? – সীমা, দশম শ্রেণি, নাটোর।
উত্তর: এতো অবাক হচ্ছ কেন? সবারই কখনো না কখনো অকারণে মন খারাপ হয়। হয়তো পুরোপুরি অকারণে নয়, মনোবিজ্ঞানীরা বিশ্লেষণ করে কারণটা বের করে ফেলবেন, কিন্তু বের করার দরকার কি? থাকুক একটু খানি রহস্য! একশ বিলিওন নিউরন নিয়ে জন্ম নিয়েছ, সেজন্য মস্তিষ্কে কত কি হবে, হতে দাও!

প্রশ্ন: স্যার আপনি যেমন shortcut programming এর pdf দিয়েছেন এখানে, তেমনি কি অপারেশন নীলাঞ্জনা বইটা দিতে পারেন না? প্লিজ, স্যার, প্লিজ, প্লিজ, প্লিজ! তাহলে আপনার প্রতি অনেক কৃতজ্ঞ থাকব! Srijila, class nine, VNC.
উত্তর: শর্টকাট প্রোগ্রামিং বইটা আমি নিজে এডিট করেছি, কভার তৈরি করেছি, তার পিডিএফ তৈরি করে পাবলিশারকে ছাপানোর জন্য দিয়েছি। সেজন্য এটার পিডিএফ আমার কাছে আছে। কিন্তু অন্য বইগুলো তো আমি হাতে লিখি, পাবলিশার কম্পোজ করে ছাপায়। আমার কাছে তার পিডিএফ থাকে না। আমি সেটা নিয়ে মাথা ঘামাই না, কারণ আমি জানি নেটে কেউ না কেউ এর পিডিএফ দিয়ে দেবে। পুরোপুরি বেআইনি কাজ কিন্তু আমি দেখেও না দেখার ভান করি!

প্রশ্ন: স্যার শুভ নববর্ষ। টুনটুনি ও ছোটাচ্চু এ বছরের বইটা অনেক সুন্দর। আমার খুব ভালো লেগেছে । ২০২২সালেও চাই। সুস্মিতা, নাটোর
উত্তর: থ্যাংকু! অনেক যত্ন করে গল্পগুলো লিখেছি। সাদাত ছবিগুলো এঁকেছে আরো বেশি যত্ন করে।

প্রশ্ন: পৃথিবীর অনেক দেশের বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে তাদের নিজ দেশের অলিম্পিয়াড মেডালিস্ট দের এডমিশনে সুবিধা দেয়া হয়, কিন্তু আমাদের দেশে এমন নেই কেনো? (তারা নিঃসন্দেহে তাদের নিজ নিজ বিষয় গুলো তে দেশের সেরা) (তানজিলা আক্তার, রাজশাহি)
উত্তর: আমি যখন সাস্টে ছিলাম তখন এই নিয়ম করে রেখেছিলাম, এখনো আছে কিনা জানি না। না থাকলেও অবাক হব না। কি কারণ জানি না কেউ ছেলেমেয়েদের সাহায্য করতে চায় না, সবাই শুধু নিয়ম কানুন তৈরি করে ছেলেমেয়েদের পিছনে টেনে রাখার জন্য!

প্রশ্ন: Sir assalamualaikum. Ami Tahmid, Nabigonj Hobigonj. Oneke bole je priyo lekhok hote hole moter mil thakte hoy. Ashole kothata bhul. Apner shonge amar beshir bhag moter e omil. Othocho apni amar priyo lekhok. Ar ekta kotha.. Humayun Ahmed sir er ki insomnia chilo?Prosnota shudhui koutuholer jonno. Asha kori prosner uttor diben.
উত্তর: আমার কয়টা মত তুমি জান? যখন স্কুলে পড়তো পরীক্ষার আগে মাঝে মাঝে তার ঘুম হতো না। আমার মা এস্পিরিন কিনে কাগজে মুড়ে তার বালিশের নিচে রেখে বলতেন, “এটা ঘুমের টেবলেট, ঘুম না আসলে খাবি।“ ঘুমের টেবলেট আছে জেনেই সে নাক ডেকে ঘুমিয়ে যেতো!

প্রশ্ন: স্যার শুভ নববর্ষ। ঐশি ,নরসিংদী
উত্তর: তোমাকেও শুভ নববর্ষ!!

প্রশ্ন: যাকে তাকে অটোগ্রাফ দেবেন না ! কিন্তু আমাকে একটা অটোগ্রাফ দিতে হবে ! জাওয়াদ কবির পাবনা জেলা স্কুল, পাবনা !


উত্তর: তুমি “যাকে তাকে” এর মাঝে পড় না? আমি কেমন করে বুঝব কে “যাকে তাকে” আর কে “যাকে তাকে” না? দিয়েছি অটোগ্রাফ!

প্রশ্ন: শ্রদ্ধেয় স্যার, আপনার কাছে আমার ছোট একটি প্রশ্ন আছে। আপনার আত্নজীবনীমূলক একটি বইয়ে পড়েছি, কত কঠোর নিয়মের মাঝে আপনার সন্তান দুটিকে বড় করেছেন। এটা যদি ভালো কিছু হয়, তবে বইয়ে সেটি আপনি লেখেন না কেন? গল্পবইয়ের চরিত্রগুলোর মতো স্বাধীনভাবে বড় হয়ে কি জীবনে ভালো কিছু তবে করা যায় না স্যার? এই দুরকম জীবন সম্পরকে আপনার কাছে থেকে কিছু শুনতে চাই। দয়া করে কিছু বলেন স্যার। আমি খুবই অশান্তিতে আছি। ধন্যবাদ। সৌমিক হাসান, অষ্টম শ্রেণী,বরিশাল জিলা স্কুল।
উত্তর: এটা মোটেও সত্যি না যে আমি আমার ছেলেমেয়েদের কঠিন নিয়মের মাঝে বড় করেছি! তূমি কোথায় পড়েছ আমি জানি না। আমি তাদের কম্পিউটার গেম খেলতে দিইনি, কারন শুধু যে সময় নষ্ট তা নয়, এটা নেশার মত হয়ে যায়। তাদের যদি সিগারেট খেতে না দিই তাহলে কম্পিউটার গেম খেলার নেশা কেন করতে দেব? তাদের খুব বেশি খেলনা কিনে দেইনি, কারণ খেলনার আনন্দটাই তাহলে উঠে যাবে। কিন্তু এ ছাড়া তাদের সব রকম স্বাধীনতা দিয়েছি! তুমি কি নিয়ে দুশ্চিন্তা করছ? চোখ কান খোলা রাখো, দেখ চারপাশে কত কি করার আছে। আমরা যখন বড় হয়েছি তখন বই পড়া আর মাঠে ঘাটে দোড়াদৌড়ি করা ছাড়া আর কিছু করার সুযোগ পাইনি। এখন কত কি করা যায় জান?

প্রশ্ন: আপনাকে একটি কথা বলি স্যার। দয়া করে কারো কথা শুনে লেখালেখি করবেন না।এতে আপনার লেখা ব্দলে যায়। আপনার আসল লেখা আর পড়তে পারি না। আপনি কি বলতে চান তা বুঝতে পারি না।কিন্তু এটা পরিষ্কারভাবে বুঝতে পারি আপনি এটা লিখতে চান নাই। আপনি নিজে থেকে যা লিখতেন তা পড়েই আমরা আপনার লেখা ভালোবাসি স্যার। একাংশ পাঠক যেমন লেখা আশা করে তেমন আপনি কেন লিখবেন? একজন লেখক কেন অন্যের মনমতো লিখবেন?অনেকেই তো অনেক কিছু চাইবে।তাই বলে আমার স্বকীয়তা আমি হারাবো কেন? আমার মন যা চায় আমি তাই লিখব। কেউ যদি আমার লেখা ভালোবেসে থাকে, আমার লেখার ধরণ দেখেই তার নিশ্চয় ভাল লেগেছে। আর না লাগলেই বা কী? সেজন্য আমার মন যেটা চায় না সেটা লিখে ফেলব? আপনার স্যার ”হাতকাটা রবিন” এর কথা মনে নেই? প্রকাশকের কথা শুনে যে ছোট করে ফেলেছিলেন? এত চমৎকার বইটার এমন দশা হয়েছিল কিনা এক অন্য ্মানুষের কথায়? না, না, স্যার এমন কাজ আর আপনি করবেন।আর আমার কথাই যে আপনার শুনতে হবে তা কে বলেছে? আপনার মন যা বলে তাই করবেন। তাহা, দ্বাদশ শ্রেণি, সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজ,জামাল্পুর।
উত্তর: আমি অন্য মানুষের কথা শুনে লিখি কে বলেছে? টুনটুনি হচ্ছে একমাত্র বই যেটা আমি বাচ্চাদের অনুরোধে লিখেছি। আরও একটা কারণ আছে, দেখি সেই কারণটা বের করতে পার কি না। এটাই আসলে বড় কারন। হাত কাটা রবিনের কথা আলাদা, তখন আমাকে কে চিনতো? বই বের করতে রাজী হয়েছে সেজন্য আমার কত আনন্দ! তবে একটা কথা সত্যি, আমার মঝে মাঝে বড়দের জন্য সিরিয়াস কিছু লখতে ইচ্ছা করে, কিন্তু বাচ্চাদের জন্য লিখতে লিখতে সময় চলে যায় বলে বড়দের জন্য লিখতে পারি না।

প্রশ্ন: স্যার, আজকাল আপনার বইয়ের দাম খুবই বেড়ে যাচ্ছে। বোঝায় যাচ্ছে, উন্নত মানের পাতার কারণে দামের এই অবসহা। কিন্তু স্যার আমরা আগের মতো বই চাই। আপনি যদি প্রকাশকদের একটু বলেন তাহলেই তো হয়! আপনার বই বেশি বিক্রি হয় বলে তারা এভাবে চালাকি করে দাম বাড়িয়ে দেয়। আপনি সব জেনেও কেন কিছু করেন না স্যার! আমি ব্যবসাপাতি ভালো বুঝি না। কিন্তু আমার ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় বলে এরকম দাম রেখে পাঠকদের বেশ ঠকানো হচ্ছে। হাফসা, CLASS: 11, BLUE BIRD SCHOOL & COLLEGE, SYLHET.
উত্তর: তুমি ঠিকই বলেছ, শধু উন্নত মানের পাতা না, হাইফাই বাধাই, ভেতরে রঙ্গীন ফর্মা এরকম নানা কায়দা করে খামাখা দাম বাড়িয়ে ফেলে। কিছু বললে তারা কারণ দেখায় এরকম না করলে বই পাইরেসি হয়ে যাবে, সত্য মিথ্যা বুঝি না। কিন্তু যেহেতু সব বই নেটে পাওয়া যায় (যদিও বেআইনি!) তাই আমি বেশি কিছু বলছি না।

প্রশ্ন: স্যার আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন? আমি এই ওয়েবসাইটে নতুন। এখানে প্রশ্ন করার কোনো সঠিক নিয়ম জানিনা। তাই নিজের মতো করে লিখলাম। আপনার কাছে আমার দুইটা প্রশ্ন। এক. “বিজ্ঞান বিভাগে না পড়লে জীবনে কখনো সফল হতে পারবে না।” এই মন্তব্য সম্পর্কে আপনার ধারণা কী? দুই. আমি ছোটোবেলা থেকেই পড়াশোনাতে ভালো। বছরের প্রথমদিকেই সাধারণত আমার সিলেবাস শেষ হয়ে যায়। কিন্তু কোভিডের এই সময়ে বাসায় বসে থেকে আমার মধ্যে অনেক পরিবর্তন এসেছে। পড়ার প্রতি আমার আগ্রহ আগেরমতোই আছে। কিন্তু সমস্যা হলো আমি বেশিক্ষণ পড়ায় মনোযোগ ধরে রাখতে পারি না। সামনের বছর আমার জেএসসি পরীক্ষা। তাই আমি অনেক চিন্তিত। এখন আমার করণীয় কী? স্যার প্লিজ আমাকে একটা উত্তর দিন। আর নাম গোপন রাখবেন প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ। আসসালামু আলাইকুম। নাম: ***** ঠিকানা: ঢাকা, বাংলাদেশ
উত্তর: কেউ যদি বলে “বিজ্ঞান বিভাগে না পড়লে জীবনে কখনো সফল হতে পারবে না” তাহলে বুঝে নেবে সে জীবন কী জানে না সফল মানে কী সেটাও জানে না। পরীক্ষা নিয়ে এতো ব্যস্ত হওয়ার কিছু নেই, তাও জেএসসির মত একটা বাচ্চা পরীক্ষা!

প্রশ্ন: স্যার ব্যাপারটা কিছুতেই বুঝতে পারছিনা। আমি এর আগে দুইটা প্রশ্ন করেছি আপনি একটারও উত্তর দেননি নাম ঠিকানা ও ঠিকমতোই লিখেছিলাম। (এটা কিন্তু প্রশ্ন না , তাই এটার উত্তর দিয়ে আগেরগুলো এড়িয়ে যাবেন না প্লিজ । – জিসান , গাজীপুর ।
উত্তর: তোমার কী ধারনা আমি মানুষ না, আমি একটা সফটওয়ার? আমার সামনে তোমাদের সব প্রশ্নগুলো সাজানো আছে? চাইলেই একজনের পুরানো প্রশ্ন বের করে ফেলতে পারব? বোতামে চাপ দেব আর কুট কুট করে তার উত্তর লেখা হয়ে যাবে? উহুঁ! আমি যে শুধু মানুষ তা না, খুবই ঢিলে ঢালা এবং অগোছালো ধরনের মানুষ! কোনো কাজ আমি ঠিক করে করতে পারি না। প্রশ্নের উত্তর না পেলে আবার প্রশ্ন কর, সমস্যা কি?

প্রশ্ন: আমি কিছু মুখস্ত করতে পারি না।জানি আপনি এতো ক্ষনে নিশ্চয় বলছেন মুখস্ত করা ঠিক না,মুখস্ত করলে মাথার ব্রেন পুরাই আউলাঝাউলা হয়ে যায় ইত্যাদি ইত্যাদি। আসলে আমারই বলা উচিৎ আমার কিছু মনে থাকে না।বা আরো ভালো করে বলা উচিৎ আমার কোনো তথ্য মনে থাকে না।বা আবারো আরো ভালো করে বলা উচিৎ আমার যেসব বিষয় ভালো লাগে না বা যা কিছু মুখস্ত করতে বলা হয় তা মনে থাকে না।যেমন বিঙ্গান আমার প্রিয় বিষয় বলে বিঙ্গানের কোনো মজার তথ্য আমার মনে থাকলেও সাধারন ঙ্গান মনে থাকে না।তাই স্বভাবিক ভাবেই সমাজ আর সাধারন ঙ্গানকে আমি অনেক ভয় পাই।তাই বাবা আর আম্মু মিলে নতুন মিশন নিছে আমাকে প্রতেক মাসে কারেন্ট আ্যফেয়ার্স মুখস্ত করাবে।এখন আমি কি করব বলেন তো? আমি রিফা তাসনিয়া। কাদিরাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুলে ক্লাস এইটে পড়ি।
উত্তর: হায় হায় কী সর্বনাশা কথা! আমি নিজের চোখে না দেখলে এটা বিশ্বাস করতাম না। দেখো কাকুতি মিনতি করে তোমার বাবা মায়ের মন গলানো যায় কিনা।

প্রশ্ন: প্রিয় জাফর ইকবাল নানু। আমার নাম বৈশালী।আমি ক্লাস সেভেনে পড়ি। আমি আগেও আপনাকে একবার ই-মেইল পাঠিয়েছিলাম। আমি আপনাকে একটা ধাঁধা ধরবো। ধাঁধাটা আমাকে আমার নানি ধরেছেন। কিন্তু নানি আমাকে এটার উত্তর কোনোভাবেই কাউকে জানাতে নিষেধ করেছেন (এই কাউ মানে গরু না) তাই আমি আপনাকে ধাঁধার উত্তর বলতে পারবোনা। ধাঁধাটা হলো-
“এক বেটা উড়ে যায়,
মাঝখানে তার নাই।”
আপনি কি এটার উত্তর পারবেন?? আজ পর্যন্ত আমি যতজন কে জিজ্ঞেস করেছি কেউ পারেনি। আমিও পারিনি কিন্তু নানি আমাকে উত্তর বলে দিয়েছেন। বিঃদ্রঃ ধাঁধাটা আপনাকে একটু অন্যভাবে বুঝতে হবে। কারণ আমরা যেভাবে বলি হয়ত সেভাবেই লিখেছি!
উত্তর: আমাদের দেশের এই ধরনের ধাঁধাঁ আসলে খুবই কঠিন, যেহেতু এগুলোতে যুক্তি তর্ক বা গণিত থাকে না, আসলে কথার মারপ্যাঁচ দিয়ে তৈরি করা হয় তাই সেগুলো সমাধান করা প্রায় অসম্ভব। তোমার ধাঁধাঁটা শুনে অনুমান করছি এটা হয়তো এমন একটা শব্দ যেটার মাঝখানে “নাই” কথাটা আছে। (যেমন ফিনাইল!) একটু চিন্তা করি, তবে মনে হয় না পারব।

প্রশ্ন: স্যার, আপনি কি শুনছেন যে ৫ম মৌলিক বল নিয়ে খুবই শক্তিশালী প্রমাণ পাওয়া গেছে?? সাদিক… বাগেরহাট থেকে…।
উত্তর: ফেসবুক ইউটিউবের বিজ্ঞান নিয়ে মাথা খারাপ করোনা।

প্রশ্ন: শ্রদ্ধেয় স্যার, কেমন আছেন আপনি? আপনার বন বালিকা বইটা আমার ভালো লেগেছে। মিতুল চরিত্রটা কি সুইট। এই ওয়েরসাইটে আপনার প্রিয় ৫০ টি বইয়ের লিস্ট দেখেছি। আমি এ লিস্টের অনেকগুলো বই পড়েছি। কিছু যোগার করার চেষ্টা চলছে। আপনার নিশ্চয় আরো অনে…….ক প্রিয় বই আছে! স্যার আপনি কি আরো কয়েকটা ভালো বইয়ের নাম বলবেন প্লিজ। আসলে এখন তো স্কুল – কলেজ ছুটি তাই বই পড়তে কেউ খুব বাধা দিচ্ছেনা। ভালো থাকবেন। ঐশি ,নরসিংদী।
উত্তর: হ্যাঁ আমার আরো অনেক প্রিয় বই আছে। আমি তাদের লিস্ট দেব। তোমার বই পড়ার ম্যাচুরিটি কেমন জানি না, যদি ভালো হয় তাহলে হাসান আজিজুল হকের স্যারের “আগুনপাখি” বইটা পড়ে দেখ। অসাধারণ বই! কোভিড শেষ হলে আমি রাজশাহী যাব স্যারকে জিজ্ঞাস করতে এরকম একটা অসাধারণ বই কেমন করে লিখলেন!

প্রশ্ন: স্যার, আমার মনে হয় মানুষ যা কিছু শিখে সব ধীরে ধীরে শিখে। চিন্তাভাবনাগুলি আস্তে আস্তে উন্নত হয়। যেমন আপনার বইয়ে, বিশেষ করে সায়েন্স ফিকশনে শুরুর দিকের বইগুলিতে মানুষের বেশ শারিরীক বরণ্না আছে। কিন্তু এখ্নকার বইয়ে সেটা দেখা যায় না। এটা আসলে আনন্দের ও সস্তির। কিন্তু একটা অদ্ভুত ব্যাপার হচ্ছে , এখনের বইয়ে বেশ English শব্দ পাওয়া যাচ্ছে যা পড়তে অদ্ভুত লাগে।মনে হয় আমাদের ভাষাটা বুঝি ভাব প্রকাশের জন্য উপযুক্ত নয়। খুব খারাপ লাগে স্যার। দয়া করে যদি এ ব্যাপারটা একটু দেখতেন। আপনি অনেক অনেক আনন্দে থাকুন স্যার। জেরিন, একাদশ শ্রেণি, হলিক্রস কলেজ, ঢাকা।
উত্তর: শব্দগুলো আসলে ইংরেজি শব্দ নয়, শব্দগুলো সব বানানো এবং আমাদের দৈনন্দিন শব্দ থেকে ভিন্ন। নামগুলোও সেরকম, বানানো নাম। সায়েন্স ফিকশানের সময় এবং পরিবেশ যেহেতু ভবিষ্যতের তাই শব্দগুলোও ভবিষ্যতের। ভাষা কিন্তু বাংলা ভাষা! নিজের ভাষায় নতুন শব্দ ঢোকালে কিন্তু ভাষার ক্ষতি হয় না, ভাষা আরো মুল্যবান হয়। তবে আমি যখন বাংলায় বিজ্ঞানের বই লিখি তখন আমি টের পাই আমাদের বাংলা ভাষায় বিজ্ঞানের ক্রিয়া পদের কত অভাব, তাই শব্দের শেষে “করা” লাগিয়ে কাজ চালাতে হয় সেজন্য বিজ্ঞানের বইগুলি কেমন জানি কটমটে হয়! তোমারা বড় হয়ে নুতন নূতন বিজ্ঞানের ক্রিয়াপদ তৈরি করে বাংলা ভাষাটাকে বিজ্ঞানের জন্য রেডি করো।

প্রশ্ন: স্যার, আপনি আপনার “রঙ্গিন মানুষ” বইয়ে লিখেছেন সৃষ্টিকর্তা নাকি মায়াবশত অলস মানুষদের জন্য কিছু একটা ব্যবস্থা করে দেন! আমিও তো অলস স্যার, আমাকেও করে দিবে কি?! আর আপনার সেসময় কোনো স্বপ্ন বা লক্ষ্য ছিল না? জানাতেন যদি 🙂 – হাসান, জামালপুর।
উত্তর: যদি আমার মত খাটি অলস হও অবশ্যই করে দেবে। ভেজাল থাকলে হবে না। স্বপ্ন বলতে যা বোঝায় সেরকম বড় কিছু ছিল না। আমরা তো দুঃসময়ের মানুষ, টিকে থাকাটাই আমাদের জন্য বিশাল বিজয়!

প্রশ্ন: আংকেল, একটা বয়সের পর নাকি ফিকশন আর পড়া হয় না। ঘটনা কি সত্য? ইশতিয়াক, ঢাকা
উত্তর: ৬৮ পর্যন্ত সত্যি না। এর পরেরটা জানি না, বয়স হোক তখন বলতে পারব।

প্রশ্ন: স্যার ইলেক্ট্রন গতিশীল হলে কেন চুম্বকীয় বলের সৃষ্টি হয়? আর স্যার log(1+x) এর ধারাটা ম্যাকলরিনের উপপাদ্য ছাড়া আর কোনোভাবে পাওয়া যাবে না? যদি যায় স্যার একটু প্রমান করে দিন। স্যার আমাকে একটা অটোগ্রাফ দিন। ঠিকানা – শ্রীপুর খরণদ্বীপ বোয়ালখালী চট্টগ্রাম। পোস্ট -৪৩৬৩ আসমা আকতার চট্টগ্রাম।
উত্তর: উত্তর দেওয়ার আগে আমি অন্য একটা প্রশ্ন করি। ধরা যাক ইলেকট্রনটা স্থির, তুমি গতিশীল হয়ে এটার দিকে তাকিয়ে আছ। তুমি কী দেখবে? log(1+x) অন্যভাবে বের করা যায় কিনা আমি আগে ভেবে দেখিনি। তুমি বলার পর ঘাটাঘাটি করে খুব মজার একটা উপায় পেয়েছি। প্রথমে 1/(1+x) কে বায়োনোমিয়াল এক্সপানসান কর। তারপর দুইপাশে ইন্টেগ্রেট করো!

প্রশ্ন: Sir, Assalamualaikum .Sir, can we actually go to the past? Because the thermodynamic arrow of time is always going forward. regards, Rayet Zarif Mirzapur Cadet College
উত্তর: তুমি যদি টাইম ট্র্যাভেল করার জন্য ওয়ার্ম হোল বা অন্য কিছু ব্যবহার করে একটা টাইম মেশিন বানাতেই পার, তাহলে তোমার কাজের ছোট জায়গাটাতে থার্মোডিনামিক্সের দ্বিতীয় সূত্র রক্ষা করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করে নিতে সমস্যা কি? তা ছাড়া সব কিছুতেই খানিকটা অনিশ্চয়তা থাকে, সে তোমাকে অনেক বিপদ থেকে রক্ষা করে।

প্রশ্ন: স্যার, আমি এই কোয়ারিন্টিনে অনার্স লেভেলের কিছু বই, যেমন: calculus I, calculus II, Differential equation, tensor analysis, complex analysis, ইত্যাদি pure mathematics এর কিছু বই সম্পূর্ণ শেষ করছি। কিন্তু আমি অষ্টম ক্লাসে পড়ি বলে আমি এই বিষয়গুলো গভীর ভাবে শিখতে পারছি না. আমার জন্য কয়েকটা বই বা কোর্স বলবেন দয়া করে? আমি ইউটিউব চ্যানেলে এগুলো নিয়ে ভিডিও বানাই. স্যার এই যে লিংক https://youtu.be/WmDj7T71JVw। রাজন আহমেদ অয়ন, অষ্টম শ্রেণি, উত্তরা,ঢাকা
উত্তর: বাহ! কী অসাধারণ! তুমি কি আমাদের গণিত অলিম্পিয়াডে অংশ নিচ্ছ? অবশ্যই নেবে, সেখানে তুমি তোমার বয়সের উপযোগী চ্যালেঞ্জ খুঁজে পাবে।

প্রশ্ন: স্যার, শিম্পাঞ্জির বিবর্তনের রূপ হচ্ছে মানুষ, আবার বলা হয় কোনো প্রাণীর মাঝে বিবর্তন ঘটলেই কেবল সেটি প্রকৃতিতে টিকে থাকতে পারে। তাহলে আমাদের পরিবেশে যে শিম্পাঞ্জিগুলো আমরা দেখতে পাই সেগুলো কেন দেখতে পাই?সেগুলো তো দেখতে পাওয়ার কথা না। দ্বিতীয়ত, মানুষ যে শিম্পাঞ্জি থেকে এসেছে তার মধ্যবর্তী প্রাণীগুলোর ফসিল কোথায়? আমি কিছুদিন আগে দেখলাম এক ধর্মপ্রচারক বিবর্তনের বিরূদ্ধে যা ইচ্ছা তা-ই বলছে এবং সেগুলো সম্পূর্ণ অবৈজ্ঞানিক কথা।আমি বিবর্তনে বিশ্বাসী, কিন্তু সেখানে আমাকে ভদ্রতার কারণে চুপ করে থাকতে হয়েছে।যাইহোক আমি প্রায়ই দেখি অল্প-বিস্তর বিজ্ঞান জানা মানুষ বিবর্তনকে মিথ্যা প্রমাণ করার জন্য এই প্রশ্নগুলো করে থাকে।আমার বৈজ্ঞানিক জ্ঞান ও ততো বেশি নয় তবে আমি বিজ্ঞানে বিশ্বাসী এবং আমি এই প্রশ্নগুলোর উত্তর চাই। ধন্যবাদ। *******(নাম পরিচয় গোপন রাখতে হবে) চঁাদপুর।
উত্তর: তোমাকে কে বলেছে “শিম্পাঞ্জির বিবর্তনের রূপ হচ্ছে মানুষ”? মোটেও না! এই সাইটেই আমার একটা বই দেওয়া আছে, বিগ ব্যাং থেকে হোমো স্যাপিয়েন, খুবই ছোট বই। একবার চোখ বুলিয়ে নাও প্লিজ। ধর্মের গোঁড়ামি সেই আদিকাল থেকে বিজ্ঞানের পিছনে লেগে আছে। থাকতে দাও, ওরা জানে না ওরা ধর্মের কত বড় ক্ষতি করছে! মাত্র কিছুদিন আগে ক্যাথলিক চার্চ গ্যালেলিওকে “ক্ষমা” করে দুঃখ প্রকাশ করতে বাধ্য হয়েছে। গ্যালেলিওর দোষ তিনি বলেছিলেন পৃথিবী সূর্যের চারিদিকে ঘুরে।

প্রশ্ন: স্যার, আমি খেয়াল করলাম যে আপনি গত মাসের শেষ দিনে (৩১ মার্চ) সকল প্রশ্নের উত্তর পাবলিশ করলেন, কিন্তু তারিখ দিলেন ১৯শে মার্চ। কারণটা কী? সাদিক। বাগেরহাট থেকে…
উত্তর: কারণটা চিন্তা করে বের কর।

প্রশ্ন: আম্যমক্সক্নন,কক্সজেদিদন্দেদক্যদ্ভক্নযক্যুব্ববন
উত্তর: তোম্যমক্সদিক্সক্সক্সন,কক্সজেদিক্সক্সদন্দেই!!

প্রশ্ন: আসসালামুয়ালিকুম স্যার, আমার নাম নানজীবা রহমান পোর্সিয়া। আমি ২০১৭ তে আপনাকে ইমেইল করেছিলাম, হয়তো আপনার মনে নেই, না থাকাটাই স্বাভাবিক। আমি সুইডেন এ থাকি এবং যখনি সময় পাই আপনার লিখা বই পড়ি, এমন অনেক বই আছে যেগুলো একাধিক বার পড়েছি। মহাকাশ আমাকে সবসময় আকর্ষণ করে, সবসময় নতুন কিছু শিখতে আগ্রহ করে। কিন্তু Time Dilation কী? আপনি কি প্লিজ আমাকে সহজ ভাষায় বুঝাতে পারবেন? বলে বুঝাতে পারবো না আপনার এই ওয়েবসাইটটা খুঁজে পেয়ে কতটা খুশি হয়েছি। উত্তর দিলে খুব খুশি হবো। আর, আপনার আরো অনেক অনেক বই পড়তে চাই। যদিও নতুন বই এর ঘ্রাণ-ই অন্যরকম আনন্দের, যেটা PDF এ পাওয়া যায় না। আমার জন্য দুআ করবেন স্যার। ইতি, পোর্সিয়া
লুলেও, সুইডেন (Luleå, Sweden)
উত্তর: কি মজা, তুমি সেই সুইডেন থেকে লিখছ। আর কয়দিন পর দিন লম্বা হতে হতে এতো লম্বা হবে যে তোমাদের সুইডেনে সূর্য প্রায় ডুববেই না! টাইম ডাইলেশন সহজ ভাষায় জানতে চেয়েছ, এভাবে বলা যায়: ধরা যাক তুমি বসে আছ আর আমি রকেটে খুব দ্রুত তোমার দিকে ছুটে আসছি। তুমি বলবে, স্যার আসতে আসতে একঘণ্টা লাগিয়ে দিল! আমি বলব, মোটেও না, এই দেখ আসতে আমার ঘড়িতে মাত্র এক মিনিট সময় পার হয়েছে!

প্রশ্ন: স্যার, ছাত্রজীবনে কি আপনি ফিজিক্সে খুব ভালো ছিলেন?আজকে আমি ফেল করলাম তাই বললাম। মাহি মগবাজার, ঢাকা
উত্তর: লেখাপড়া নিয়ে আমার কখনোই সমস্যা ছিল না, কিন্তু পরীক্ষা দেওয়া নিয়ে কখনো মাথা ঘামাইনি বলে পরীক্ষার ফল ফাটাফাটি ভালো হয়েছে সেটা বলা যাবে না।

প্রশ্ন: স্যার, আপনি আমাকে কখনো দেখেন নি। কিন্তু, আপনাকে খুব কাছের মানুষ মনে হয়। কালকে জাতীয় গণিত উৎসব। আমার খুব মন খারাপ হয়, আপনাদের দেখা হবে না এবার। দীপ, ঢাকা
উত্তর: যখন সব ঠিক হয়ে যাবে তখন অনেকবার দেখা হবে। দেখতে দেখতে বিরক্ত হয়ে যাবে।

প্রশ্ন: আমি সাদিক। বাগেরহাট থেকে… স্যার, অনলাইনে দেখলাম আপেক্ষিকতার সূত্রানুসারে মহাকর্ষ নাকি কোনো বল না। এটা কি সত্য?
উত্তর: হ্যাঁ সত্যি। এই সাইটে আমার রহস্যময় ব্ল্যাক হোল নামে একটা বই আছ। বইটা পড়ে দেখো।

প্রশ্ন: স্যার আমি দুঃখিত এরকম একটা সিরিয়াস প্রশ্ন করার জন্য। আপনি কি রাগ করেছেন? প্লিজ রাগ করবেন না। নামঃ সাজিদ ঠিকানাঃ খোশবাস, বরুড়া, কুমিল্লা
উত্তর: না, না রাগ করব কেন? কাউকে বলতে চেয়েছিলে, আর কাউকে না পেয়ে আমাকে বলেই সিস্টেম থেকে বের করে এনেছ!

প্রশ্ন: Sir,apnar”jerokom tuntuni seirokom chutacchu”boi tar golpo gula ki apnar golpo section e diben,plz… Name:Maujuda Saffat Hani, Mymensingh
উত্তর: কীভাবে দেব বল? আমি তো সব হাতে লিখি! নেটে খুঁজে দেখ নিশ্চয়ই পেয়ে যাবে।

প্রশ্ন: স্যার, একজন আপনাকে বলেছে এই সাইটটি বন্ধ করে দিতে। আপনি কখনোই এই সাইটটা বন্ধ করবেন না। সবকিছুর মতো ইন্টারনেটেরও ভালো-খারাপ আছে। আপনি যেহেতু এই সাইটে ব্যস্ততার কারণে এই সাইটে নিয়মিত নন সেহেতু এই সাইটে আসক্ত হবার মত কিছুই নেই। ভয়ের থেকে পালানোর পরিবর্তে ভয় দূর করা উচিত। উপরন্তু, এখানে অনেকে তাদের জীবনের আর পড়াশোনার নানা সমস্যার সমাধান জানতে পারছে। ১। স্যার, আপনি ডায়েরি লেখা বিষয়ে কী ভাবেন? প্রতিদিন ডায়েরি লেখা কি আমাকে ভবিষ্যতে লেখক হতে (অবশ্যই বেশি বেশি বই পড়ার পাশাপাশি) ও চারিত্রিক গুণ লাভে সাহায্য করবে? ২। স্যার, সিনেমা দেখা কি ফেসবুকের মতো সময় অপচয়? আর স্যার আপনার বইগুলো আমার অনেক ভালো লাগে। আপনি কি “নাঈম” নামে আমাকে একটা অটোগ্রাফ দিতে পারবেন(প্লিজ প্লিজ স্যার)? (স্যার যদি ই-মেইলে দেনঃ ****@gmail.com) যেহেতু আমি ছোট তাই আপনার সাথে আমার দেখা হবার সম্ভাবনা নেই। ধন্যবাদ। আসমাউল হাসান নাঈম, বাসাবো, ঢাকা।


উত্তর: ভয় নেই, যদি তোমাদের বেশিরভাগ এটা চাও তাহলে এরকম ভাবে থাকবে, না চাইলে নিজে নিজে একদিন বন্ধ হয়ে যাবে। ডায়েরি লেখার অভ্যাস খুব ভালো। না, এটা লিখে লেখক হওয়া যায় সেটা হয়তো সত্যি না, কিন্তু অনেকদিন পরে সেটা পড়ে অনেক মজা পাবে। ভালো সিনেমা দেখা ফেসবুকে সময় নষ্ট করা থেকে অনেক ভালো। এই যে তোমার অটোগ্রাফ।

প্রশ্ন: স্যার আমি নওশীন,চট্টগ্রাম থেকে। আমি কিন্তু আপনাকে অনেক ভালোবাসি!!! আপনি কি সেটা জানেন?
উত্তর: থ্যাংকু নওশীন। একটা জিনিষ জানি, তোমরা অনেকে আমাকে অনেক ভালোবাস সেটা জেনে যারা আমাকে দুই চোখে দেখতে পারে না তাদের শরীর সবসময় চিড়বিড় চিড়বিড় করে জ্বলে!

প্রশ্ন: স্যার, ভালো আছেন? আমি আপনার ভক্ত স্যার। আপনি আমাকে বই পড়া শিখিয়েছেন, এমনকি আমি কিছু টুকটাক গল্প টল্প লেখার চেষ্টা করি, সেগুলোর ইনস্পাইরেশনেও আপনিই ছিলেন, এখনো আছেন! আমি সেজন্য আপনার কাছে অনেক অনেক অনেক অনেক অ-নে-ক(অসীম) কৃতজ্ঞ। আপনাকে অনেক অনেক অনেক অনেক অনেক(অসীম) ধন্যবাদ। আমার একটা স্বপ্ন আপনার সাথে দেখা করার, হয়তো আপনি আমার সাথে কিছুক্ষণ কথা বললে হয়তো আমাকে মনে রাখবেন(এটা আমার একটা আশা!)। কিন্তু দূর্ভাগ্যক্রমে আপনার সাথে আমার দেখা হয়নি। এমনকি এই ওয়েবসাইটে আমি আপনাকে দুইবার একই প্রশ্ন করেছি, সেগুলোর উত্তরও দেননি। এখন অনেকদিন পরে আপনাকে দেখে খুশি হলাম, তাই ওই প্রশ্নটা আর করছি না। আমি চাই, আপনি আমার এই লম্বা চিঠির একটা উত্তর দিবেন। প্লিজ স্যার, দিবেন! আপনার সাথে কি আমার কখনো দেখা হবে স্যার? আপনার কি মনে হয়? (পিদিম অনন্তরূপা, অষ্টম শ্রেণি, বিদ্যাময়ী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ময়মনসিংহ)
উত্তর: তোমার নামটা কি সুন্দর! পিদিম, শুনলেই কান জুড়িয়ে যায়। এখানেই শেষ হয় নাই, তারপর আবার অনন্তরূপা! কী চমৎকার! যেই নাম রেখে থাকুক তাকে বলো এতো সুন্দর নাম আমি খুব কম দেখেছি। অবশ্যই একদিন দেখা হবে তোমার সাথে, আমি কি কখনো ময়মনসিংহ যাব না?

প্রশ্ন: স্যার আমি আপনার অনেক বড় ভক্ত। আশাকরি আপনি ভালো আছেন। এর আগে আমি অনেকগুলো প্রশ্ন একসাথে করেছিলাম তাই হয়তো উত্তর পাইনি। এবার মাত্র ২টা প্রশ্ন করব। আমার প্রশ্ন হলো: আলো এত দ্রুত চলার শক্তি কোথা থেকে পায়। যদি এর উত্তর নক্ষত্র হয়। তবে নক্ষত্র থেকে পাওয়া সেই শক্তি আলো কোথায় জমিয়ে রাখে ? এবং সেই শক্তি কী কখনও ফুরিয়ে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে ? আপনি উত্তর দিলে আমি এত বেশি আনন্দিত হব যে আপনাকে বলে বোঝাতে পারব না ! নাম: মো: রাশিদ আবিদ। । । অ্যেনিম্যেন এর আবিদ 😉 ঠিকানা:দিনাজপুর , নিউটাউন ৭ নং স্যার প্লিজ প্লিজ প্লিজ উত্তর দিয়েন!!!..!!!…!!!…!!!…!!!..!!!
উত্তর: তোমার কেন ধারণা হল আলোর চলতে শক্তির দরকার? যার ভর নেই সে সবসময় আলোর গতিতে ছুটে চলে, কোনো শক্তি লাগে না।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম, স্যার! একটা কৌতূহল, আপনি যে বইগুলো লিখেন, সেগুলো কি কাগজে-কলমে লিখেন নাকি কীবোর্ড-মনিটরে? উত্তরের আশায় থাকব। -প্রত্যয় (জামালপুর)
উত্তর: অবশ্যই কাগজে আর কলমে। আমার কী মাথা খারাপ হয়েছে যে আমি কী বোর্ডে লিখব? (আমার হাতের লেখা খুবই খারাপ, যত দিন যাচ্ছে আরো বেশি খারাপ হয়ে যাচ্ছে, যারা কম্পোজ করে তাদের জান বের হয়ে যায়!)

প্রশ্ন: Why water has not any colour? (Pori- Kurigram)
উত্তর: দৃশ্যমান যে কয়টি রঙের আলো আছে, ঘটনাক্রমে তার কোনোটাই পানি শোষণ করে না তাই পানির কোনো রঙ নেই। ভাগ্যিস এটা ঘটেছে তা না হলে কী সর্বনাশ হতো তুমি জান?

প্রশ্ন: আশা করি স্যার ভালো আছেন। স্যার আমি একজন মেয়ে যে কিনা নিজের পরিবার থেকেই শুনে আশছি যে, “তুমি একটা মেয়ে, তুমি ইচ্ছে হলেই সব পারো না করতে।” বাহিরের কথা না হয় বাদ দেই। স্যার আমার বাবা মা আমাকে কখনো কোন প্রশিক্ষনমূলক বা extra curricular কাজে অংশগ্রহণ করতে দেয় নি। আমি শুধু পাঠ্যপুস্তক এর মাঝে সীমাবদ্ধ। কিছু দিন আগে আমার Austrilia তে পড়ার সুযোগ হয়। কিন্তু তারা শুধু ধর্মের অযুহাত দিয়ে আমাকে যেতে বারন করে। তাদের দাবি বিয়ের আগে কোন মেয়ে একা এত দূরে যেতে পারে না। আমাকে যদি যেতে হয় তবে আগে বিয়ে করতে হবে। স্যার আমি এখনো ২০ ই পার করতে পারি নি।আমি বুঝি না তারা ঢাকা সিটি তে এমন family তে থেকে এমন mentality কিভাবে তৈরি হয়। সব কাজে ধর্মের নাম করে আমাকে এভাবে বাধা দেয়। স্যার আমার অনেক সপ্ন আছে, আমি তা পূরন করতে চাই। শুধু তাদের মানসিকতার জন্য পেরে উঠি না। আমাদের ধর্মে কি মেয়েদের এতই বন্ধি বানানো হয়েছে?
**** ঢাকা। ( পরিচয় গোপন রাখতে চাচ্ছি)
উত্তর: আমি আমার জীবনে যে দুইটি কথা শুনে মনে খুব কষ্ট পাই তার একটা হচ্ছে যখন একটা মেয়ে বলে তাকে বলা হয়: “তুমি একটা মেয়ে, তুমি ইচ্ছে হলেই সব পারো না করতে।” (আরেকটা হচ্ছে যখন বাবা মা পাঠ্যবই ছাড়া অন্য বই পড়তে দেয় না।) আপাতত তুমি যেহেতু তোমার বাবা মায়ের কথার বাইরে যেতে পারবে না, তাই নিজের স্বপ্নগুলো বাঁচিয়ে রেখো। যখন বড় হবে, স্বাধীনভাবে নিজের কাজ করতে পারবে তখন তোমার স্বপ্নগুলো পূরণ করতে শুরু করো।

প্রশ্ন: শ্রদ্ধেয় স্যার, আপনি আপনার হটলাইন বইটিতে লিখেছেন সেখানে এক মানসিক স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের হটলাইনে যেই স্বেচ্ছাসেবকেরা কাজ করে, তারা গোপনীয়তার অঙ্গীকার করে আত্মহত্যা প্রবণ মানুষদের সাহায্য করে তাই উপন্যাসটি আপনাকে কল্পনা করে লিখতে হয়েছে। এর স্বেচ্ছাসেবকদের কথাবার্তা না জেনে কল্পনার উপর নির্ভর করে মানুষের জীবন বাঁচানোর একটা ঘটনা লিখলেও আপনি হয়তো জানেনও না আমি আত্মহত্যা প্রবণ ছিলাম আর আমি এখনো যে টিকে আছি এর পিছে আপনার স্বেচ্ছায় প্রতক্ষ্য ও পরোক্ষ দুই প্রকার অবদান আছে। আপনার কি মাঝেমধ্যে মনে হয় না মানুষ হিসাবে আপনারো সীমাবদ্ধতা আছে আর এটা থাকাটা খুবই স্বাভাবিক? মৃত্তিকা অথবা অমৃতের সন্তান, ঢাকা।
উত্তর: জেনে শান্তি পেলাম যে তুমি তোমার দুঃসময় কাটিয়ে উঠতে পেরেছ। কী সর্বনাশ হতো তা নাহলে? আমার কয়েকজন ছাত্রছাত্রী সুইসাইড করেছে, আমার সবসময় মনে হয়, ইশ, যদি তারা একটিবার আমাকে ফোন করতো! হ্যাঁ আমি নিশ্চিত ভাবে জানি মানুষ হিসেবে আমার অনেক সিরিয়াস সীমাবদ্ধতা আছে, মেনে নিয়েছি, কী আর করব?

প্রশ্ন: গণিতশাস্ত্রে সবচেয়ে বৃহত্তম সংখ্যা কোনটি? যতদূর জানি, সেটি এখনো বের করা যায় নি। এমন কি হতে পারে মহাকাশ সৃষ্টির পেছনে অসীমের কারসাজি আছে যে কারণে গণিতশাস্ত্রেও এসব সীমাবদ্ধতা তৈরী করে মানুষের সীমাবদ্ধতার প্রতি ইঙ্গিত করা হয়েছে? বি.দ্র: আমি গণিত পরীক্ষায় বছরে অন্তত ৩ বার শূণ্য পাই, আমার জ্ঞানও সীমিত যে কারণে প্রশ্নটা যুক্তিহীন হতে পারে। তোরসা, ৭ম শ্রেণী, বরিশাল।
উত্তর: ধরা যাক তুমি গণিতশাস্ত্রে সবচেয়ে বৃহত্তম সংখ্যাটি বের করে ফেলেছ। আমি তার সাথে এক যোগ করে আরো বড় সংখ্যা বানিয়ে ফেলতে পারবে, তাই কখনোই সবচেয়ে বড় সংখ্যা বের করতে পারবে না। বছরে তিনবার শূন্য পেয়ে ঘাবড়বে না। দেখবে কয়দিনের ভেতরে শূন্যের আগে অন্য সংখ্যা বসতে শুরু করেছে।

প্রশ্ন: Dear Sir, This is Gazi Mahmud Alam, I was your student at SUST in the department of Mathematics. Currently working as an Assistant Professor …
উত্তর: এটা যেহেতু বাচ্চা কাচ্চাদের সাইট, তারা একে অন্যের প্রশ্ন কিংবা উত্তর দুটোই দেখে, সেখানে এরকম গুরুতর বিষয় নিয়ে আলোচনা না করলাম। তুমি বরং আমাকে একটা ইমেইল পাঠাও। তুমি আলাস্কা আছ জেনে খুব মজা পেলাম। ঠাণ্ডা কেমন?

প্রশ্ন: প্রিয় স্যার , আপনি আমার আগের প্রশ্নের উত্তর দেননি l আমি যে একটু কষ্ট পেলাম ! আমি আপনাকে বলেছিলাম আপনি এবার বই মেলায় যাবেন কিনা ? তাহলে আমি আপনার সাথে দেখা করতাম আর আপনার সাথে একটি ছবি উঠতাম l কিন্তু আপনি তো আমার প্রশ্নটিই দেখেননিl স্যার আমি সত্যিই খুব কষ্ট পেয়েছি l আপনি আমার ও আমার ছোট ভাইয়ের নামে একটি অটোগ্রাফ লিখে এখানে ছবি তুলে দিবেন প্লিজ প্লিজ প্লিজ l আমি তাহলে খুশিতে আত্মহারা হয়ে যেতাম ! সত্যিই বলছি l আপনার সাথে আমার কোন ছবি না থাকলেও অটোগ্রাফ টি পেয়ে আমি সবাইকে দেখাবো l আমি সত্যিই খুব খুশি হব l আমার নাম : সাদিয়া হোসেন সারা l আমার ছোট ভাইয়ের নাম : আরাফাত হোসেন তাসকিন l আমার বাসা : বসুন্ধরা , ঢাকা l


উত্তর: আমি আমার মত চেষ্টা করি, মাঝে মাঝে ভুল হয়ে যায়, প্লিজ তোমরা এটা মেনে নাও! নিশ্চয়ই কোনো একদিন তোমার সাথে দেখা হবে, তখন তুমি যত ইচ্ছা ছবি তুলতে পারবে। এইযে এখন আমি তোমার আর তোমার ভাইয়ের জন্য অটোগ্রাফ দিচ্ছি। খুশি?

প্রশ্ন: স্যার,আসসালামু আলাইকুম।আমি সেই ছোটবেলা থেকে আপনার লিখার ভক্ত।আপনার প্রায় সব বই আমার সংগ্রহে আছে।আমি আপনার সাইন্স ফিকশন এর বইগুলো সবচেয়ে বেশী ভালোবাসি।আমার দুটি প্রশ্ন ছিলো। ১.আপনার আগের সাইন্স ফিকশন গুলো (৯৯০৩,ক্রুগো,ট্রাইটন একটি গ্রহের নাম,নিঃসঙ্গ গ্রহচারী,মহাকাশে মহাত্রাস,কপোট্রনিক সুখ দুঃখ ইত্যাদি)অত্যন্ত রগরগে ছিলো।ইদানিং কেমন জানি ছোটদের সাইন্স ফিকশনের মতো হয়ে যাচ্ছে।এই ব্যাপারটাতে কষ্ট পাচ্ছি স্যার।এটা কী স্যার আপনার ইচ্ছাকৃত? ২.একজন বিজ্ঞানী হলেও আপনি অসাধারণ ভৌতিক গল্প লিখেন।কিন্তু বিগত কয়েক বছরে সেরকম একটা বই পাচ্ছি না স্যার আপনার।দয়া করে ভৌতিক লিখা বন্ধ করবেন না স্যার,প্লিজ। বেয়াদবি করে থাকলে ক্ষমা করবেন।আপনাকে এবং আপনার পরিবারকে কতটা ভালবাসি ও শ্রদ্ধা করি তা লিখে বোঝানো সম্ভব না।আমার কাছে আপনার মোবাইল নাম্বার আছে স্যার কিন্তু কল দেয়ার সাহস পাইনা।ভালো থাকুন ও সুস্থ্য থাকুন সপরিবারে। আপনার একজন গুণমুগ্ধ- মার্শাল মালিবাগ,ঢাকা।
উত্তর: মনে হয় বয়স হয়ে যাচ্ছে তাই “রগরগে” সায়েন্স ফিকশান লেখার ক্ষমতাও কমে যাচ্ছে! না, আমি ভৌতিক লেখা বন্ধ করব না। কয়দিন থেকে একটা কাহিনী চিন্তা করে বের করার চেষ্টা করছি! দেখি কী হয়।

প্রশ্ন: হাসিন, ঢাকা। স্যার সুন্দরবনের বাওয়ালিরা কি আসলেই ’বনবিবি’তে বিশ্বাস করে?
উত্তর: আমি যতদূর জানি যে তারা আসলেই বনবিবিকে বিশ্বাস করে।

প্রশ্ন: স্যার,আপনার উত্তর পেয়ে যে আমি কতটা খুশি হয়েছি আপনাকে বুঝাতে পারবনা।কিন্তু আফসোস থেকেই গেল।সামনাসামনি আপনার সাথে কথা বলছি সেটা একরকম আর এটা অন্যরকম।আচ্ছা স্যার আপনি কী চিঠির উত্তর লিখবেন?একদম হাতে লিখে খামে ভরে পাঠিয়ে দেয় যে চিঠি,সেই চিঠি।আপনার স্পর্শ সেক্ষত্রে দূর থেকে হলেও অনুভব করতে পারতাম।আপনার ঠিকানা কী বলবেন!অথবা আপনাকে চিঠি লিখব সেই ঠিকানা!! আহনাফ হাসান আবীর,একাদশ শ্রেণি,নটর ডেম কলেজ,ঢাকা।
উত্তর: কোভিডের সময় এটা একটা ঝামেলা, খাম কিনে এনে চিঠি লিখে পোস্ট করতে হয়। কোভিড শেষ হলে আবার শুরু করব। তা ছাড়া ঠিকানা কী হবে এখনও ঠিক করি নি। “মুহম্মদ জাফর ইকবাল, মেঘনা নদী” পোস্ট অফিসের লোকজন ঠিকানা হিসেবে নেবে বলে মনে হয় না।

প্রশ্ন: Sir, আদাব। কেমন আছেন? আগামী সোমবার ০৫/০৪/২০২১ আমার ছোট ভাই দেবরঞ্জন দে এর জন্মদিন। আপনি স‍্যার উত্তরে একটা অটোগ্রাফ দিন। আমি সেটা screenshot তুলে ওকে দেখাব। ও খুব খুশি হবে।ভালো থাকবেন। দিব‍্য দে।


উত্তর: এই যে দিলাম। একটা কেকও আছে!

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম সার, আমি আপনার এক পাঠক রুদ্র বলছি, আমার মামাতো বোন আফিয়া যা বলেছিল মানে, টুনটুনি ও ছোটাচ্চু নাটকের জন্য সেটা মোটেও সত্যি না, আমাকে যদি একটা অটোগ্রাফ দিতেন তাহলে খুব খুশি হতাম। মুনতাসির আহসান (রুদ্র) রাজশাহী, প্যারামেডিকেল রোড।

উত্তর: এই যে অটোগ্রাফ। চলবে?

প্রশ্ন: Sir; what is your email address.(Kurigram, pori)
উত্তর: যেহেতু আমার ইমেইলটি অফিসিয়াল, সেজন্য এই ব্যক্তিগত জায়গায় ঘোষণা করতে চাই না! খুঁজে বের করে নাও, প্লিজ!।

প্রশ্ন: স্যার আমি নন্দ গোপাল বিশ্বাস আমি ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর উপজেলা থেকে বলছি।
ইমেইল :……@gmail.com আমি গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নিয়ে আপনাকে কিছু বলতে চাই।
উত্তর: এটা যেহেতু বাচ্চা কাচ্চাদের ওয়েবসাইট, একজনের প্রশ্ন তার উত্তর অন্যরাও পড়তে পারে, তাই আমি চেষ্টা করি সহজ কথাবার্তার মাঝে সীমাবদ্ধ রাখতে। গুরুতর বিষয়, লেখাপড়ার বিষয়, জাতীয় বিষয় নিয়ে কথা বলতে হলে আমার ইমেইলে জানালে সবচেয়ে ভালো।

প্রশ্ন: টুনটুনি বিষয়ক কয়েকটি চাওয়া : ১. ছোটাচ্চুকে ডিটেকটিভ এজেন্সি ফিরিয়ে দিতে হবে। ২. এজেন্সি ফিরে পাওয়ার পর সরফরাজ কাফি কে শাস্তি দিতে হবে। ৩. এজেন্সি ফিরে পাওয়ার পর নতুন অফিস খুলতে হবে। ৪. ডিটেকটিভ গল্প লিখতে হবে। ৫. হাসির গল্প লিখতে হবে। ৬. ভূতের গল্প লিখতে হবে। ৭. ফারিহা আপুকে নিয়ে গল্প লিখতে হবে। ৮. প্রতি গল্পে টুনি, ছোটাচ্চু, ঝুমু খালা এবং শান্তর চরিত্র থাকতে হবে। ৯. প্রতিবছর টুনটুনি সিরিজের দুইটি বই বের হলে ভালো হয়। আহনাফ প্রত‍্যয়, টাঙ্গাইল।
উত্তর: থ্যাংকু, তুমি যে বছরে মাত্র দুইটি বই চেয়েছ, দশটি চাওনি!

প্রশ্ন: Ronan Wadi Chandpur স্যার আসসালামু আলইকুম, আশা করছি ভালো আছেন। আমি কয়েকমাস চেষ্টা করার পর । ভালোভাবে বাংলা টাইপ করা শিকে গেছি। তাও ভুল হলে। আমায় বলবেন। আর, অসংখ্য অসংখ্য ধন্যবাদ। আমার প্রশ্নের উত্তর দেয়ার জন্য। ভালোবাসা অবিরাম
উত্তর: তুমি হচ্ছ সবার জন্য উদাহরণ! এই যে, সবাই দেখ, এই বাচ্চা ছেলেটা আমার অনুরোধ শুনে ইংরেজিতে বাংলা না লিখে, বাংলায় টাইপ করা শিখে নিয়েছে। তার জন্য সবার হাত তালি!!

প্রশ্ন: Sir, আপনি কি class 9-10, 11-12 এ যখন পড়তেন, তখন কি নিজে নিজেই পড়তেন?,নিজে পড়ে যা বুঝতেন, তাই কি exam এ লিখতেন?, আমিও নিজে নিজেই পড়ে বুঝি, কিন্তু science তো একটু self- confidence এর অভাব ও কাজ করে, এক্ষেত্রে আপনি আমাকে কি পরামর্শ দিবেন? ———-MD. TAHSAN ISLAM NAZIM, ADRESS:TONGI, GAZIPUR,BANGLADESH SSC EXAMINEE.( আপনার প্রতি শুভ কামনা)
উত্তর: অবশ্যই! আমি নিজে নিজে যেটুকু পারি সেটা হচ্ছে আমার ক্ষমতা। কেন অন্যরা চামুচ দিয়ে আমাকে মুখে তুলে তুলে লেখাপড়া খাইয়ে দেবে? আসলে উপদেশ দেওয়ার কিছু নেই, আজকালকার বাবা মায়েরা আমার উপদেশ শুনতেও রাজী হবে না। যদি সাহস থাকে নিজেকে বল, আমি নিজে নিজে যেটুকু পারি তাতেই খুশি থাকব।

প্রশ্ন: স্যার,আশা করি ভালো আছেন। আমরা মানুষ, আমাদের মস্তিষ্কের সব সময় সব তথ্য মনে রাখা সম্ভব হয় না,যদি আমরা মনোযোগ দিয়ে পড়ি/শুনি/দেখি তাহলে মনে থাকে।আমিও একটি তথ্য আবছা শুনেছি,ঠিক ভালোভাবে মনে করতে পারছি না।আপনার কাছে আমি আমার আবছা মনে থাকা তথ্যটি সঠিক কিনা তা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে চাই।তথ্যটি হলোঃ একটি মটর দানাতে যে পরিমাণ শক্তি আছে সেটি যদি জ্বালানি শক্তিতে পরিণত করা যায় তাহলে সেই শক্তি ব্যবহার করে একটি জাহাজ আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দিতে পারে।এই তথ্যটি কি সঠিক?আর এর সাথে কী আইনস্টাইনের তত্ত্বের কোনো সংযোগ আছে? নামঃনাফিজা তাবাসসুম ফিহা।ঠিকানাঃ মনোহরদী, নরসিংদী,ঢাকা। (বিঃদ্রঃআপনি কি কোনোদিন নরসিংদী এসেছেন/আসবেন?)
উত্তর: থিওরি অফ রিলেটিভিটি বলেছে E=mc^2 একটা মটর দানার ভর অনুমান করে নাও, সেটাকে আলোর গতিবেগের বর্গ দিয়ে গুণ কর, তাহলে শক্তিটা পেয়ে যাবে। এখন একটা জাহাজ আটলান্টিক পাড়ি দিতে কত শক্তি লাগে বের করে তুলনা করে দেখ। (শুধু একটা জিনিষ মনে করিয়ে দিই, প্রযুক্তিগত ভাবে মটর দানা থেকে নিউক্লিয়ার শক্তি বের করা সহজ নয়, নিউক্লিয়ার শক্তি এখনো বিশেষ বিশেষ মৌল থেকে বের করা হয়।) হ্যাঁ, আমি নরসিংদী গিয়েছি, আবার নিশ্চয়ই একদিন যাব।

প্রশ্ন: Sir do you know, I am 13 years old girl but I am 5 feet 7 inches tall. My friends tell me slang words for my height. Sir, now what can I do it? Class 7 Zara
উত্তর: বাহ! কী চমৎকার! আমি একদিন কার্জন হলে ফিজিক্স অলিম্পিয়াডে গিয়েছি, যে মেয়েটা অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছে সে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক কোনো একটা বিউটি কনটেস্টে যোগ দিয়েছিল। এত বিখ্যাত একটা মেয়ে তাই খুব আগ্রহ নিয়ে আমি তার সাথে ছবি তুলেছিলাম। ছবিটা আমার কাছে আছে, মেয়েটার কাছ থেকে অনুমতি নেই নি, তাই এখানে তোমাকে দেখাতে পারছি না। সেই ছবিটিতে মেয়েটা আমার থেকেও কমপক্ষে দুই তিন ইঞ্চি লম্বা, কী চমৎকার লাগছে তাকে দেখতে! কাজেই লম্বা হয়া মোটেও খারাপ নয়, ভালো। যারা সেটা বুঝে না, তারা মনে হয় পুরানা মডেলের মানুষ। তারা কী বলে সেটা নিয়ে মাথা ঘামিও না!

প্রশ্ন: …… বুঝলাম না কিছু আমি আপনাকে আমার ইমেইল টা দিলাম কিন্তু কোন উত্তর নেই আমার প্রশ্নটা উধাও হয়ে গিয়েছে উনিশে মার্চ এ আপনার উত্তর গুলোর মধ্য থেকে…… তখন প্রশ্নে আপনাকে আরো বলেছিলাম আপনার লেখা থিওরি অফ রিলেটিভিটি বইটা একটু এই ওয়েবসাইটে দয়া করে প্লিজ দিয়ে দিবেন…. আমি এত অভাগী কেন ????? আপনার থিওরি অফ রিলেটিভিটি বইটা আমার খুব প্রয়োজন প্লিজ আপনি একটু এই ওয়েবসাইটে সেটা আমাদের পড়ার জন্য উন্মুক্ত করে দেন…. কি জানি আপনি আমারে প্রশ্নটার উত্তর দিবেন কিনা নাকি আবার আমার এই প্রশ্নটা উধাও হয়ে যাবে…. আপনি তো বলেছিলেন আমাকে আমার ইমেইল টা যেন আমি আপনাকে দেই দিলাম কোনো লাভ তো হলোনা আমি কি আবার দিব ??? আপনি সবাইকে বলেন আপনার ইমেইল টা খুজে বের করতে এখন একটু এটা বলেন তো আমরা কিভাবে আপনার ইমেইল টা খুজে পাব??? শেষবার আবারো বলছি প্লিজ আপনার থিওরি অফ রিলেটিভিটি বইটা একটু ওয়েবসাইটের দেন … @gmail.com…. আমার নাম: সাদিয়া হোসেন সারা… ঠিকানা :বসুন্ধরা ঢাকা ( আমার ইমেইল এড্রেস টা গোপন রাখবেন) কে জানে উত্তর পাবো কিনা??????
উত্তর: না, তুমি মোটেও অভাগী নও! অভাগী কেন হবে? আমার কাছে এই বইটার পিডিএফ নেই, থাকলে তো দিয়েই দিতাম! আমি এই মাত্র খুঁজে দেখলাম, এটা নেটে আছে। যেহেতু এরা আমার অনুমতি ছাড়া রাখে আমি তাদের লিঙ্ক দিয়ে তাদের জাতে তুলতে পারব না। তুমি খুঁজে বের করে নাও প্লিজ!

প্রশ্ন: In case you depicted me invisible,I’ll like to ask the question again. Religious extremism and intolerance in Bangladesh is growing rapidly. It’s true that free thinkers are also growing, but due to the unhealthy politics of Bangladesh, they’re being silenced. This Hefazat e Islami, Jamat e Islami wants to turn Bangladesh into Pakistan, Afghanistan. You’ll be shocked to see the ground report, on internet, social medias,the Islamists are not unseenable. Maybe Bangladesh has pressure from middle east to not deal with radical Islam. But if Bangladesh turns out to be a Islamic Republic, what’s the point of achieving freedom in 1971? I read in class 9,so I Don’t Have much to do. Even if I want to create awareness publicly,I might face social challenges and terrorism (like you did). But the thought of losing our independence to ISIS taliban like organisations, doesn’t let me sleep well. I’ve contacted you via email and tried to reach out to you several times before,but it went in vain. Can you please do something regarding this issue? You must know people at higher level. 😛 Fariya Islam, Dhaka. Please answer this question because I can’t rest well.
উত্তর: তুমি এতো ভয় পাচ্ছ কেন? এরা কী কম চেষ্টা করেছে? বাংলাদেশ কখনো পাকিস্তান কিংবা আফগানিস্তান হবে না। আমার কথা বিশ্বাস কর। আমার অনেকের সাথে যোগাযোগ আছে, কখন কী করতে হবে তারা জানে। আমার জন্য যেটা করা দরকার সেটা আমি সবসময় করি। করে যাব। যে দেশে মেয়েরা সবকিছুতে সক্রিয় সেই দেশ কিখনো তালেবানি দেশ হবে না। তোমার নিজের দায়িত্বটা ঠিক করে কর, শান্তি নিয়ে কর।

প্রশ্ন: স্যার, আমি সিলেটে থাকি, আমি মনিপুরী সম্প্রদায়ের হওয়ায় তেমন কেউ আমার সাথে মিশতে চায় না, আমি নিজ থেকে এগিয়ে গেলেও না, এখন আমার কি করা উচিত? সাগর সিংহ, সিলেট
উত্তর: আমি শুনে খুবই অবাক হলাম যে তুমি মনিপুরী হওয়ার কারনে কেউ তোমার সাথে মিশতে চায় না। আমি তো সিলেটে ছিলাম, আমি জানি মনিপুরীদের সাথে সবার খুব ভাল সম্পর্ক। আমার সাথে অনেক মনিপুরীদের ভালো পরিচয় ছিল। সত্যি কথা বলতে কি আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে যখন আন্তর্জাতিক কোনো অনুষ্ঠান হতো তখন আমি সবসময় মনিপুরীদের নাচ দেখানোর ব্যবস্থা করতাম, যারা একবার দেখতো তারা জীবনেও সেই নাচের কথা ভুলতো না। রাস পূর্নিমার অনুষ্ঠান দেখার জন্য আমরা সবাই মিলে অনেক জায়গায় গিয়েছি। কাজেই তুমি খোলা মন নিয়ে থাকো দেখবে সবাই তোমাকে নিজের মানুষ হিসেবে গ্রহণ করবে।

প্রশ্ন: What is .rocks sir? Shaira Shehrin, Barishal.
উত্তর: জানি না। এই সাইটটার জন্য এটাই বাকী ছিল অন্য সবগুলো (mzi.com, mzi.org …) অন্যেরা নিয়ে গেছে। এটা খারাপ কী? আমার কাজ চলে যাচ্ছে!

 

২৯ মার্চ ২০২১

প্রশ্ন: Sir amar onek bondhu freefiire pubg ittadi online game khele.Amar oshob korte valo lage na.Amar valo lage boi porte.Ora amai proshno kore eshobe game er nesha theke muktir upai ki.O der ki uttor dibo khuje pai na.Sir eshobe theke muktir upai jodi ektu bolten.Badhon dey. (Chittagong)
উত্তর: খুবই কঠিন একটা প্রশ্ন। নিজেরা যদি সিদ্ধান্ত নিয়ে ধীরে ধীরে কমিয়ে আনতে পারে তাহলে সম্ভব হতে পারে। ওদেরকে ভালো দুই একটা বই দিয়ে পড়ে দেখতে বল, লাভ হবে কিনা জনি না। সত্যি কথা বলতে কি এটা ইয়াবা কিংবা হেরোইনের সত্যিকারের নেশার মত, একবার এর চক্করে পড়ে গেলে বের হওয়ার সহজ কোনো উপায় নেই। বিদেশে মাদক নিরাময় কেন্দ্রের মত কম্পিউটার গেম নেশার নিরাময় কেন্দ্র পর্যন্ত আছে।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার। দেশের এই পরিস্থিতিতে ২ এপ্রিল পরীক্ষা নেওয়ার বেপারে কি আপনি একমত? নামঃজান্নাতুল ফেরদৌস ঠিকানা ঃমুন্সিগঞ্জ
উত্তর: সরি, উত্তর দিতে দিতে পরীক্ষা হয়ে ফলাফল পর্যন্ত বের হয়ে গেছে!

প্রশ্ন: প্রিয় জাফর ইকবাল স্যার,কেমন আছেন আপনারা(আপনি এবং ইয়াসমিন ম্যাডাম)?আশা করি করোনার এই খারাপ সময়ে ভাল আছেন।অনেক মানুষকে করোনা নিয়ে উদাসীন হতে দেখি তখন খুব কষ্ট লাগে(আমার নিজের করোনা হয়েছিল তো তাই,কি কষ্ট বুঝি) ।আপনি এবং ম্যাডাম স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিরাপদে থেকেন।২০২০ সালে আপনাকে প্রশ্ন দিয়েছিলাম কিন্তু প্রশ্নের উত্তর দেখতে দেরি করায় এখন আর খুঁজে পাচ্ছি না,নতুন করে প্রশ্নটা দিতেও পারছি না কারনঃ মনে পড়ছে না কি প্রশ্ন ছিল! আপনাকে জিজ্ঞেস করছি নতুন প্রশ্নঃআপনি কতদিন পর পর এই ওয়েবসাইটটিতে আসেন?এবং করোনা ভাইরাসের সময়ে আমরা স্টুডেন্টরা (বাকিদেরটা জানি না,আমারটা বলছি)বাসায় থেকে থেকে অনেক অলস,খিটখিটে হয়ে গেছে,এর থেকে সত্যিকার অর্থে মুক্তির উপায় কি? (নিশ্চয় বই পড়া,সৃজনশীল কাজের করার কথা বলবেন কিন্তু আমি এই করোনার সময়ে আমার রুম এর সব আসবাবপত্র রঙ/করিডোরের দেয়াল রঙ করেছি,অনলাইনে অনেক বই পরেছি,আরও অনেক কাজ করেছি) নিরাপদে থাকবেন,ভাল থাকবেন । মাইশা মারুফ,চট্টগ্রাম।
উত্তর: বাহ! কী চমৎকার!! করোনার সময়টা তুমি কী সুন্দর কাজে লাগিয়েছ, সবাই যদি তোমার মত হত কী অসাধারণ একটা ব্যাপার হতো। এই সাইটে আসার আমার নির্দিষ্ট সময় নেই, যখন সময় পাই তখন আসি।

প্রশ্ন: আংকেল, অন্য অনেকের মতো আমার কাছেও মনে হচ্ছে, টুনটুনি ছোটাচ্চু অনেক হয়ে গেছে। এখন আর এইটা নিয়ে বই লাগবে না। আপনি বরং অন্য কিছু লিখেন। ওহ, আরেকটা কথা। আপনার শিক্ষকতা জীবন নিয়ে বই চাই। “সাস্টে ২২ বছর” পড়া আছে যদিও! তবে ওখানে তো শিক্ষকতার চাইতে সাস্টের অভিজ্ঞতাই বেশি বলা হয়েছে। টিচার হিসেবে ছাত্রছাত্রীদের কেমন দেখেছেন, ক্লাসরুমের গল্প, শিক্ষকতা জীবন যেমন আশা করেছিলেন সেরকমটা পেয়েছেন নাকি ইত্যাদি ইত্যাদি নিয়ে লিখুন, খুব করে পড়তে চাই। ইশতিয়াক, ঢাকা
উত্তর: তুমি ভোটে হেরে গেছ, তোমরা অল্প কয়েকজন বলেছ টুন্টুনির বই আর লেখার দরকার নেই, কিন্তু অনেক বেশিজন বলেছে লেখা উচিত, তাই আমি লিখে ফেলেছি, বইটা বেরও হয়ে গেছে! সরি। তোমাদের পড়তে হবে না!  নিজের জীবন নিয়ে বই লেখার বেশি উৎসাহ নেই, দেখি কখনো যদি মনে হয় লেখার মত কিছু একটা হয়েছে তখন দেখব।

প্রশ্ন: ঝুমু খালার সরফরাজ কাজীকে লবন-চা খাওয়ানোর আইডিয়াটা কোত্থেকে পেয়েছেন? এটা কি আসলেই কার্যকর ?? শাইরা শেহরিন, বরিশাল
উত্তর: বিশ্বাস না হলে কারো উপর ব্যবহার করে দেখ আসলেই কাজ করে কিনা!

প্রশ্ন: স্যার আপনি এতদিন কেন করছেন উত্তর দিতে? রাগ করছি আমি আপনার সাথে…. নওশীন,চট্টগ্রাম
উত্তর: কী করব বল একেবারে সময় পাই না যে!

প্রশ্ন: Sir, Bangladesh is on high risk of radical Islam. If we Don’t stop it now,our country will be the next Syria Iraq. Please, do something,before It’s too late. Luise, Dhaka, Bangladesh.
উত্তর: দুশ্চিন্তা করো না, বাংলাদেশ কখনো জঙ্গীদের অভয়ারণ্য হবে না। অনেকগুলো কারণ আছে, তার একটা কারণ হচ্ছে আমাদের দেশে মেয়েরা ছেলেদের সমান সমান পড়াশোনা করে, কাজকর্ম করে। যে দেশে মেয়েরা ছেলেদের সমান সমান সেখানে মৌলবাদীরা কখনো সুবিধা করতে পারে না।

প্রশ্ন: স্যার, শুভেচ্ছা নেবেন। নিশ্চয়ই খুব খুব ভালো আছেন। আমি এইবারের এসএসসি পরীক্ষার্থী। খুব ছোটোবেলা থেকেই বিজ্ঞান আর গণিতের প্রতি আমার আগ্রহ। বইয়ের সব উদাহরণ সব অনুশীলনী আমি নিজে নিজে করার চেষ্টা করতাম। আমাদের শহরে যতো বিজ্ঞান মেলা হতো, সবগুলো দেখতে যেতাম, মাঝেমাঝে নিজেও অংশ নিতাম। কিন্তু ক্লাস নাইনে উঠবার পর দেখলাম, আমাদের বিজ্ঞানভিত্তিক বিষয়গুলির স্যাররা একরকম অদ্ভুতভাবে পড়ান বিষয়গুলোকে। ভালোভাবে বোঝানোর চেয়ে গত পরীক্ষায় বোর্ডের প্রশ্ন কেমন এসেছে, এবার কেমন আসবে, জিপিএ-ফাইভ পেতে শুধু কোন কোন টপিক পড়লেই চলবে- এসবেই তারা জোর বেশি দেন। বাবা-মা জোর করে আমাকে কোচিংয়ে ভর্তি করে দেন। কোচিংয়ে যেতে কখনোই ভালো লাগতো না, সেই সময়টাতে হয় রাস্তায় রাস্তায় ঘুরে বেড়াতাম, কিংবা কোনো গল্পবইয়ের দোকানে বা লাইব্রেরিতে গিয়ে বই পড়তাম। বাসায় বসে নিজে নিজে বুঝে পড়ার চেষ্টা করতাম। বইয়ের মূল কনটেক্সটটা বুঝলেও কেন যেন পরীক্ষাগুলো সবার তুলনায় খারাপ হতে থাকে । বছর শেষে স্কুলের রোল পিছিয়ে যায়, সহপাঠীদের টিটকিরি শুনতে হয় – সবমিলিয়ে পড়াশোনার ওপর থেকে আগ্রহই হারাতে থাকি। তারপরের বছর তো করোনাই চলে আসে। পড়াশোনা আর আমার মাঝে বিশাল একটা গ্যাপ তৈরি হয়ে যায়। মোটামুটিভাবে আমার পড়াশোনার অবস্থা এখন ভয়াবহ। পড়ারই আগ্রহ পাই না আর। সামনে বই নিয়ে বসে থাকি, একটা শব্দও মাথায় ঢোকে না, যা যা জানতাম, তা-ও ভুলে গেছি। বাবা-মায়ের সাথে বেশ কয়েকবার সমস্যাটা নিয়ে কথা বলার চেষ্টা করেছি। আমার বাবা-মা খুব সুইট মানুষ, কিন্তু তারা কেন জানি বুঝতেই চাননা, বরং রেগে ওঠেন। আমাকে একটু বুদ্ধি দেবেন কিভাবে আবার ঠিকঠাক পড়াশোনা শুরু করবো? অনেক অনেক শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা, **********, চট্টগ্রাম (নিজের নামটা এখানে দিতে কেমন জানি একটু লজ্জা লজ্জা লাগছে, আমার নামটা কি একটু গোপন রাখবেন?)
উত্তর: অবশ্যি আমি তোমাকে বুদ্ধি দেব। তোমার পড়াশোনাকে এখন দুইভাগে ভাগ করে ফেলতে হবে। একভাগ হবে পরীক্ষায় ভালো করার জন্য যেটা আসলে ফালতু পড়াশোনা। তোমাদের টিচাররা যেটা ক্লাশে পড়ান, কোচিং সেন্টারে যেটা পড়ায়, তুমি দাঁতে দাঁত চেপে সেই পড়ালেখাটা করে ফেলবে। তারপর তোমার আসল পড়াশোনা শুরু হবে যেটা তুমি আগে করে এসেছ। স্কুলের বাইরের কোনো বিজ্ঞানের বই কিংবা কোনো এক্সপেরিমেন্টের বই পড়বে। সাহায্য লাগলে আমি তো আছিই। আমি জানি আমাদের দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা ছেলেমেয়েদের একেবারে সর্বনাশ করে দিচ্ছে, সেজন্য আমি প্রাণপন চেষ্টা করে বিজ্ঞানের বই লিখে যাচ্ছি, যেন ছেলেমেয়েরা তাদের আগ্রহটা ধরে রাখতে পারে।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম প্রিয় লেখক। আমি আপনাকে কখনো কিছু বলতে পারব তা কখনোই ভাবতে পারিনি(যদিও ভার্চুয়াল ভাবে বিষয়টা হচ্ছে)।যাই হোক এতেই আমি আনন্দিত। আমার একটা সামান্য প্রশ্ন ছিল আমাদের একাডেমিক শিক্ষাটা বেশি জরুরি নাকি সামাজিক শিক্ষা?
উত্তর: রবীন্দ্রনাথের কথা ধার করে বলি? সামজিক শিক্ষা হচ্ছে একটা বাটি, তোমার একাডেমিক শিক্ষাটা ওই বাটিতে রাখা হয়। বাটি আছে সবার? না থাকলে সব পড়ে যাবে নিচে!

প্রশ্ন: Sir,space e agun jalale agun ki shape e hobe? Maria, Dhaka
উত্তর: আগুনের শিখা উপরে উঠে কারন গরম বাতাস হালকা। মহাকাশে হালকা কিংবা ভারী বলে কিছু নেই, এখন তুমিই বল আগুনের শিখাটা কেমন হবে?

প্রশ্ন: Assalamu Alaikum sir . How are you? One day I see the moon was looking red. Sometime why they moon looks red .Name-Pori,Kurigram.
উত্তর: “Why does the moon look red sometimes?” লিখে গুগলে একটা সার্চ দাও।

প্রশ্ন: Sir,নিচের চিত্র ২ টির আলোকে প্রশ্ন২ টির সমাধান বুঝিয়ে তুলে ধরুন, আমি এইয ২ টি বুঝি না।
১) •——/|——-/|——/|——/|—–/|—-(ভুমিতে যুক্ত)
X. A. B. C. D. E. ( A,B,C,D,E 5 টি কোষ)
(A,B,C,D,E কোষের তড়িচ্চালক বল যথাক্রমে 1.5V,3V,4.5 V,6V,7.5 V হলে কোন কোষের সনযোগ উল্টিয়ে দিলে 16.5 V মানের potential পাওয়া যাবে?
২) ৩ টি 1.5 V এর battery কে নিম্নরুপে যুক্ত করা হলো:
A. B. C. D.
-•——/| —•—-/|—-•—-/|—–•—
এখানে B বিন্দুটি ভূমিতে যুক্ত আছে। D বিন্দুটির বিভব কত? ( কষ্ট করে প্রশ্ন ২ টি লিখলাম, এর উওর প্রান্জল ভাষায় দিবেন কিন্তু।)
********** ADDRESS:TONGI, GAZIPUR, BANGLADESH. SSC EXAMINEE.
উত্তর: তুমি সত্যিই বিশ্বাস কর, যে প্রশ্নটার উত্তর তোমার নিজের করার কথা সেটা আমি তোমাকে করে দেব? আমাকে কী এতই বোকা মনে হয়? উঁহু!!

প্রশ্ন: স্যার, আপনি বইমেলায় কবে আসবেন? আমার অনেক দিনের ইচ্ছা আপনার সাথে বইমেলায় দেখা করে আপনার অটোগ্রাফ নিব। কিন্তু কোনোবারই অপনার সাথে দেখা হয়নি বইমেলায়। নাদিয়া, দশম শ্রেণী মহাখালী ডিওএইচএস, ঢাকা
উত্তর: তোমার উত্তর দিতে দিতে বইমেলা শেষ! এই বছর আমার যাওয়া হয়নি।

প্রশ্ন: https://youtu.be/zO_LkUMieD8 স্যার এই ভিডিও লিংক এ বলেছে এই মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহে ব্ল্যাকহোল নাকি গবেষণাগারে বানানো হয়েছে…… আপনি কি এমন কোন তথ্য পেয়েছেন ? স্যার আপনি একটু এই ছোট্ট তিন মিনিটের ভিডিওটি দেখে আমাকে নিশ্চিত করে বলবেন এই ভিডিওটি কি সঠিক কিনা…… ব্ল্যাকহোল গবেষণাগারে বানানোর অর্থ হচ্ছে পৃথিবীর মধ্যে একটি ব্ল্যাকহোল থাকা….. পৃথিবীর মধ্যে ব্ল্যাকহোল থাকলে তো সবকিছু এলোমেলো হয়ে যাবে… তাহলেতো আশেপাশের সব নক্ষত্র পৃথিবীর দিকে ছুটে আসবে এবং পৃথিবী কে কেন্দ্র করে ঘুরতে শুরু করবে…… তাহলে এই ভিডিওতে এরা কিভাবে বলল যে ব্ল্যাকহোল গবেষণাগারে তৈরি হয়েছে আবার তারা বলেছে বিজ্ঞানীরা এই ব্ল্যাকহোলের হকিং রেডিয়েশন শনাক্ত করেছে…… আমার কাছে খুব অদ্ভুত লাগছে কেননা এটা কি সম্ভব ? স্যার আপনি একটু নিশ্চিত হয়ে আমাকে বলবেন… এখন আমার প্রশ্নটা বলি — বিজ্ঞানীরা ব্ল্যাকহোলের ভর কিভাবে বের করে ? ব্ল্যাকহোল তো অসীম ঘনত্বের একটি বিন্দু তাহলে বিজ্ঞানীরা সে বিন্দুর ভর কিভাবে বের করে ? আমার নাম : আদিবা রহমান ….ঠিকানা : বসুন্ধরা , ঢাকা |
উত্তর: এই ওয়েবসাইটে আমার ব্ল্যাকহোলের উপর একটা বই আছে। এই বইটা পড়েও যদি তোমার প্রশ্নের উত্তর না পাও তাহলে আবার এই প্রশ্নটা করো!

প্রশ্ন: Sir,take my Salam.Ami apnar onk boro fan.apnak amr onk vlo lage.. apnar satha amr dhaka korara onk icca chilo kintu pari ni..tobe apni amder School a asechilan..kintu amr bad luck..valo thakbe sir Nirjara ibnat,Mymensingh Cantonment Public School and college.Momanshahi.
উত্তর: দুশ্চিন্তা করোনা। একদিন তোমার সাথে নিশ্চয়ই দেখা হবে। অবশ্যই হবে।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার। কেমন আচ্ছেন? আমি হচ্ছি আপনার ক্ষুদে ভক্তদের মধ্যে একজন। আমার প্রিয় লেখকদের তালিকার সবচেয়ে উপরে আপনাকে রেখেছি। আপনার প্রতিটা গল্পই একেবারে অসাধারণ। আমি প্রায়ে গুগলে আপনার বইয়ের সন্ধানে যাই। এরকম করে আমার কম্পুটারে একটা ছোট খাট লাইব্রেরী বানিয়েছি। আজ হঠাত আপনার বই খুজতে গিয়ে এই ওয়েবসাইটা পাই। পেয়ে যে কি খুশি হই তা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। তাই এটা আমার প্রথম প্রশ্ন। ঠিক প্রশ্ন না। আসলে একটা অনুরোধ। আমার গোয়েন্দা গল্প অনেক অনেক অনেক পছন্দ। টুনটুনি ও ছটাচ্চুর কম করে হলেও ২০টা গল্প লিখা চাই-ই চাই। টুনটুনি ও ছোটাচ্চু না হলেও অন্য কোন সিরিস। কোন অসুবিধা নেই। শুধু পেলেই হল। এটা আপনার ক্ষুদে ভক্তর একটা ছোট্ট আর্জি। ধর্য নিয়ে পুরোটা পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। (আপনার সুবিধার জন্য অভ্র ডাউনলোড করে এটা লিখা। তাই উত্তর না পেলে খুব রাগ করব। খুব খুব খুব।) বিঃদ্রঃ একটা বিশেষ কারণে নাম, ঠিকানা গোপন রাখছি। কারণ ফুড়িয়ে গেলে নিশ্চয় বলব। ১০০ বার বলব। তবে এখন শুধু গোপন, গোপন এবং গোপন।
উত্তর: আমাকে বিশ্বাস করে নাম ঠিকানা দিতে হবে, তা না হলে উত্তর দেব কেমন করে?

প্রশ্ন: নামঃ শরিফ উদ্দীন জুম্মান ঠিকানাঃ বাড্ডা ঢাকা স্যার, আপনি আপনার এই সাইটে “বইয়ের তালিকা ২০২০ ” থেকে “বইয়ের তালিকা ২০২১” এ এখনো আপডেট করেননাই।
উত্তর: এই যে, করে দিলাম!

প্রশ্ন: স্যার,ভালো আছেন? আজকে আমি আপনাকে একটা ঘটনা বলবো। তিন বছর আগে আমাদের স্কুল থেকে বিজয় দিবস উপলক্ষে একটা প্রজেক্ট দেয়া হয়েছিলো।প্রত্যেক ছাত্রী তার পরিবার বা আত্মীয়দের মধ্যে যাঁরা মুক্তিযুদ্ধ দেখেছেন তাদের কাছ থেকে সেই পুরো সময়টার গল্প শুনে লিখতে হবে এবং স্কুলে জমা দিতে হবে। আমি তাই বাড়িতে ফিরে আমার দাদুভাই কে সবটা বললাম।সব শুনে দাদুভাই খুব আগ্রহ করে গল্প শোনালেন।তখন দাদুভাই খুব অসুস্থ ছিলেন।বিছানা থেকে উঠতে পারেন না,এমন অবস্থা।কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের কথা শুনতে চাই জেনে দাদুভাই অনেক কথা বললেন,তাঁর কথা বলতে কষ্ট হচ্ছিলো,তবু তিনি সব কথা আমাকে বললেন।বলতে বলতে কখনো তাঁর চোখে পানি চলে আসছিলো,কখনো তাঁর প্রবীণ চোখদুটো গৌরবে চকচক করছিলো।আমি অবাক হয়ে শুনছিলাম আর নোট নিচ্ছিলাম। একসময় দাদুর কথা শেষ হলে আমি উঠে চলে আসবো তখন দাদু আমার হাত ধরে বলেছিলেন,”বুবু,একসময় আমি থাকবো না।যাঁরা মুক্তিযুদ্ধ দেখেছে তাঁরাও ধীরে ধীরে পৃথিবী থেকে চলে যাবেন।তখন ছোটো ছেলেমেয়েদের কে কারা এমন করে মুক্তিযুদ্ধের কথা বলবে?তাই তোমরা ভালো করে সেইদিন গুলো কে জেনে রাখো।তোমরাই পরবর্তীতে অন্যদের জানাবে।কথাটা মনে রেখো,বুবু।” দাদু তার পরের বছর ই আমাদের ছেড়ে চলে যান।কিন্তু দাদুর কথাগুলো আমার কানে সবসময় বাজে।স্যার,আপনিও আমাদের কে আশীর্বাদ করে দিন।যেন আমরা এত বড় দায়িত্বটা নিতে পারি। -(তন্বী,নরসিংদী)
উত্তর: আমি তোমার দাদুর মনের কথাটা একেবারে একশভাগ বুঝতে পারি। তোমাদের প্রজন্ম আসলেও কল্পনা করতে পারবে না সেই সময়টা কী অসাধারণ একটা সময় ছিল। অবশ্যই আমি দোয়া করি তুমি যেন তোমার দাদুর দেওয়া দায়িত্বটা নিতে পার।

প্রশ্ন: Sir, আদাব। কেমন আছেন? আপনার মতে কোন ছাত্র/ছাত্রী যদি পড়ালেখা করতে করতে স্বপ্নে যদি “পড়ালেখা/পরীক্ষা/বিভিন্ন সূত্র” ইত্যাদির স্বপ্ন দেখে তাহলে তার কী করণীয়? (আমি স্যার এখানে আপনার মতামতই চাই। প্লীজ স্যার উত্তর দিবেন।)( তাছাড়া এটি স্যার আমার একটু জানার কৌতূহল আর কী!) ভালো থাকবেন। দেবরঞ্জন দে।
উত্তর: আমার মনে হয় তাহলে তার লেখাপড়া কমিয়ে আনন্দের কিছু একটা করা উচিৎ যেন স্বপ্নে এই ভয়ঙ্কর বিষয়গুলো দেখতে না হয়!

প্রশ্ন: Sir, আদাব। আপনি কেমন আছেন? আমি একটি বইয়ে পড়েছি (আপনার নয়) যে “ঈশ্বর পাশা খেলেন না” এর অর্থ কী? ভালো থাকবেন। দিব্য দে।
উত্তর: এর অর্থ প্রকৃতি নিয়ম মেনে চলে। নিয়মের বাইরে কিছু নেই।

প্রশ্ন: স্যার, যারা নাম ঠিকানা লেখে না, তাদের উত্তর তো আপনি দেন না ৷ একইভাবে যারা ইংরেজিতে বাংলা লেখে, তাদের উত্তরও দেবেন না ৷ নাইফ সাকিব পাবনা জেলা স্কুল ৷
উত্তর: সেটা মনে হয় এখন বেশি নিষ্ঠুরতা হয়ে যাবে। আস্তে আস্তে করা যাবে। অনেকেই তো আমার কথা শুনে বাংলায় টাইপ করতে শুরু করেছে।

প্রশ্ন: 3^2021 সংখ্যাটির শেষের দুই অংকের যোগফল কত ? উত্তর: 0 + 3 = 3 উত্তরটি কীভাবে বের করলেন স্যার ? নাবিল আরাফ, কুষ্টিয়া জিলা স্কুল ৷
উত্তর: প্যাটার্ন দেখে। ভাগ্যিস সহজ প্যাটার্ন ছিল, সময় লাগেনি।

প্রশ্ন: সোনিয়া, শাহজাহানপুর বাচ্চাদের ভীরে ইদানীং মনে হয় আমার প্রশ্ন গুলো আড়ালে পরে যাচ্ছে, অবশ্য এতে আমার কোন আক্ষেপ নেই। তাদের প্রশ্ন গুলো এবং তার উত্তর গুলো দেখতে বেশ ভালো লাগে। সে যাই হোক, বইমেলায় শুরু হয়ে গেছে, আপনি আসবেন কি এবার মেলায়? আসলে দেখা হওয়ার অপেক্ষায় থাকবো। আর একটা প্রশ্ন, জন্মদিনে মেইল করা আমার তোলা ছবিটা কি আপনার পছন্দ হয়েছিল??
উত্তর: এই বছর কোভিড এতো বেড়ে গিয়েছিল যে কেউ আমাকে বই মেলায় যেতে দেয়নি। আমার ছবি? যেখানে আমি রংচংয়ের কাপড় পরে বত্রিশ দ্বিগুণে চৌষট্টিটা দাঁত বের করে হাসছিলাম? অনেক মজার ছবি ছিল। থ্যাঙ্কু!

প্রশ্ন: স্যার, আপনি আপনার ছোটবেলা নিয়ে একটা বই বা লেখা কেন ছাপেন না? আসমাউল হাসান, ঢাকা।
উত্তর: আমি বাচ্চাদের জন্য যে বইগুলো লিখি ধরে নাও সেগুলো আ্মার ছেলেবেলার গল্প!

প্রশ্ন: স্যার, আপনার মানসিক বয়স কত ? আমার বয়স ১৪, কিন্তু মানসিক বয়স এসেছে ৩৭! শাইরা শেহরিন, বরিশাল
উত্তর: কেমন করে মাপা যায় জনি না। মাপা গেলে দেখা যাবে টেনেটুনে বারো হবে কিনা সন্দেহ!

প্রশ্ন: স্যার, আপনি বিভিন্ন ইভেন্টে বলেন আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট নেই। কিন্তু আপনার নামে একটা একাউন্ট আছে যার ফলোয়ার প্রায় 13 লক্ষ। একাউন্ট টা কি সত্যিই আপনার? আমিনুল আলম, সিলেট।
উত্তর: তুমি ঠিকই বলেছ, আমার আসলে একটা ফেসবুক একাউণ্ট আছে। আমার ছাত্রছাত্রীরা এটা তৈরি করে রেখেছে যেন স্বাধীনতা বিরোধীরা আমার নামে কোনো একাউণ্ট খুলে আজেবাজে কথা ছড়াতে না পারে। আমি আমার ভেরিফাইড ফেসবুকের পাশওয়ার্ড জানি না, কোনোদিন ঢুকে দেখিনি ভিতরে কী আছে। সত্যিই ১৩লক্ষ মানুষ এটা নিয়ে ঘাটাঘাটি করে? কারো কোনো কাজ নেই?

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার, দয়া করে আমাকে আপনার একটি অটোগ্রাফ দেবেন প্লিজ, প্যারামেডিকেল রোড, রাজশাহী মুনতাসির আহসান রুদ্র

উত্তর: ওয়ালাইকুম সালাম। দিলাম। খুশি?

প্রশ্ন: স্যার,আসসালামুয়ালাইকুম।স্যার আপনি কেমন আছেন?আমি জায়েদ আহমেদ।স্যার,আমার অনেক ইচ্ছা আপনার সাথে দেখা করে আপনার সাথে কথা বলার,কিন্তু আমার আপনার সাথে দেখা করার সুযোগ হয়নি।আপনি কী এখন আমাকে একটা রিপ্লাই দিবেন?
উত্তর: ওয়ালাইকুম সালাম। অবশ্যি দেব। এইযে দিলাম। তোমার সাথে একদিন নিশ্চয়ই দেখা হবে।

প্রশ্ন: স্যার আসসালামু আলাইকুম। স্যার ২০২১ সালের বইমেলায় আপনার কয়টি নতুন বই আসবে? একবারই যাবো তো তাই সব একসাথে নিয়ে আসব। তাসনিম আমিন ইভা, ঢাকা
উত্তর: ওয়ালাইকুম সালাম।বইমেলা তো শেষ, এখন আর লিখে কী করব? তারপরেও যদি জানতে চাও এই সাইটে বইয়ের তালিকায় লেখা আছে।

১৯ মার্চ ২০২১

প্রশ্ন: Sir, আদাব। কেমন আছেন? আমাকে কী আপনি একটু বলবেন যে- ১। ধোঁয়া তো বায়ু। কিন্তু আমরা এইটি কেন দেখতে পাই?২। ডিম আগে নাকি মুরগি আগে? (এই প্রশ্নটির উত্তর আমার খুব দরকার)ভালো থাকবেন। দিব‍্য দে।
উত্তর: ১. ধোঁয়া বায়ু না, ধোঁয়া হচ্ছে ধোঁয়া! এর মাঝে ছোট ছোট কার্বনের কনা এবং আরো অনেক কিছু থাকে, সেজন্য আমরা দেখতে পাই। ২. মুরগি আগে। কেন আমি এই উত্তরটা দিয়েছি দেখি তুমি বের করতে পার কিনা!

প্রশ্ন: Sir, আদাব। কেমন আছেন? আমি আপনার “গ্রামের নাম কাঁকনডুবি” মুক্তিযুদ্ধের বইটি পড়েছি। এটি অনেক সুন্দর। আমি কী বইটির শেষে যে যুদ্ধের বর্ণনা আছে সেটি কমিক্স এ এঁকে কী “কিশোর আলো” তে পাঠাতে পারি?? দয়া করে স‍্যার একটু উত্তর দিবেন। আপনি ভালো থাকবেন। দেবরঞ্জন দে।
উত্তর: আমাকে জিজ্ঞেস করলেই পাবলিশারের কপিরাইট থেকে শুরু করে কমিকের গুণগত মান এরকম অনেক কিছু চলে আসে। আমাকে জিজ্ঞেস না করে তোমরা যা ইচ্ছা করে ফেল!

প্রশ্ন: স্যার আমাকে মনে আসে? আমি ওয়াদি বয়স সাত সেই ছেলেতা আপনাকে ইনলিশ অক্করে বাংলা লিখেছিলাম। আমি যান্তে পাল্লাম আপনি বানলিশ লেকা পরতে পারেন না আই মিন পড়তে কস্ট হয়। তাই আমি বহ কস্ত করে বানলা লিকাচি। অনেক ভুল হয়েছে আমি যানি আমি পারছি না আর৷ লিকতে। আমার৷ এই কস্তের মুল্ল দেবিন না? আমাকে একতা অতোগাফ ছবি তুলে দিন প্লিস। আমি স্কিনসত দিয়ে রেকে দিবো। চাঁদপুর, ক্লাশ অয়ান,৷ চাদপুর কিস্টান মিসন স্কুল। আর স্যার, আপনি কনোদিন৷ চাদপুর আশলে আমার বাসায় যাবেন।৷ মত্তিযোদ্ধা কমান্ডার এর বাসা। আমার দাদা।


উত্তর: বাহ! কী অসাধারণ! তুমি আমার কথা শুনে সত্যি সত্যি বাংলা টাইপ করা শুরু করে দিয়েছ? কী চমৎকার! সবাই যদি তোমার মতো হতো তাহলে আমদের আর কিছু নিয়ে দুশ্চিন্তা করতে হতো না। ভুল গুলি নিয়ে মাথা ঘামিও না, আস্তে আস্তে ঠিক হয়ে যাবে। আমার কত ভুল হয় দেখেছ? আমি তোমাকে অটোগ্রাফের ছবি তুলে দিলাম। খুশি? তোমার মুক্তিযোদ্ধা দাদার জন্য আমার শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা। তোমাদের বাসায় দাওয়াত দেওয়ার জন্য অনেক থ্যাঙ্কু!

প্রশ্ন: boimeae kobe ashben??? amar shob bondhu apnar otograph pyeche, ami nibo. please bolen, alif, dhska
উত্তর: যেভাবে কভিড বাড়ছে, বই মেলা যাওয়ার ব্যাপারে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নিইনি।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম।আশা করি ভালো আছেন।আমার ছোট প্রশ্ন-আপনার দুটি নতুন বই এই বই মেলায় আসছে ইনশাল্লাহ সেগুলো হলো টুনটুনি ও ছোটাচ্ছু আর বন বালিকা, বই দুটি কোন প্রকাশনীর?আর ছোট একটা অনুরোধ-আপনি আগে বিভিন্ন কিশোর পত্রিকায় আমাদের জন্য লিখতেন এখন আর লিখছেন না।পুনরায় যদি আবার লেখা শুরু করেন তাহলে আমি ও আমার বন্ধুরা খুবই খুশি হবো। তাসনুভা,৬ষ্ঠ শ্রেণি,ভিকারুন নিসা নূন স্কুল এন্ড কলেজ,ঢাকা।
উত্তর: সময় আর তাম্রলিপি। আগে অনেক সময় ছিল বলে কিশোর পত্রিকায় লেখালেখি করতে পারতাম, এখন সময় পাই না। যদি কিছু লিখতে পারতাম তাহলে সেটা এই সাইটেই দিয়ে দিতাম।

প্রশ্ন: আমি আপনার বই অনেক অনেক পড়ি। আমার আপুও অনেক পড়ে। আপনার কাছে আমার ৩ তা প্রশ্ন আছে, ১) আপনার ২০২১ বইমেলার বইগুলো কী কী? ২) অগুলো online এ পাওয়া যাবে?? ৩) আর, আপনার বই এত মজা কেন? please, একটা reply দেন। আলিফ আহম্মদ লাবিব, নাফিযা তাসনিম আহমেদ রিদিতা। রমনা, ঢাকা
উত্তর: এবারের বইমেলার বইগুলোর নাম হচ্ছে: বনবালিকা (তাম্রলিপি), মানুষ মানুষের জন্য ও অন্যান্য (অনন্যা্‌ যেটুকু টুনটুনি সেটুকু ছোটাচ্চু (সময়), অপারেশন নীলাঞ্জনা (অনুপম), মহাকাশের প্রাণী (ঢাকা কমিকস্্‌ কিশোর উপন্যাস সমগ্র (৬) (জ্ঞানকোষ), শর্টকার্ট প্রোগ্রামিং (কাকলী)। আমি দেখেছি অনলাইনে আমার বইগুলো মোটামুটি পাওয়া যায়। তবে যেহেতু এগুলো বেআইনি তাই আমি সেগুলোর কথা তোমাদের নিজে থেকে জানাই না। খুঁজে বের করে নাও প্লিজ।

প্রশ্ন: স্যার আসসালামু আলাইকুম। প্লিজ বডি শেমিং নিয়ে কিছু লিখবেন। আমাদের ধারণা, সাধারণত খাটোরা বডি শেমিং এর শিকার হয়, কিন্তু তা নয়। আজকাল বেশি লম্বারাও এর শিকার হচ্ছে। আমি অনেক বেশি লম্বা দেখে আমাকে ক্লাসের সবাই খুব বাজে কথা বলে। এটা শুধু আমার একার সমস্যা না। আচ্ছা স্যার, আপনার হাইট কতো? *** নাম গোপন রাখবেন প্লিজ।
উত্তর: তুমি লম্বা বলে তোমার ক্লাশের সবাই তোমাকে নিয়ে বাজে কথা বলে? কী আজব! কয়দিন পরে শুনব একজন খুব ভালো, সবাইকে ভালোবাসে, দেশের জন্য কাজ করে সেজন্য সবাই তাকে নিয়ে বাজে কথা বলে! মোটেও পাত্তা দিও না! আমার হাইট ছিল পাঁচ ফুট সাড়ে দশ ইঞ্চি, এখন বয়স হয়ে নিশ্চয়ই ইঞ্চি কয়েক খাটো হয়ে গেছি!

প্রশ্ন: যেটুকু টুনটুনি সেটুকু ছোটাচ্চু বইয়ের প্রচ্ছদে টুনির পাশের চরিত্রটি কে? স্যার আমি আপনার লেখা টনটুনি ও ছোটাচ্চুর বইগুলো পড়েছি। আমি নবম শ্রেণিতে পড়ি। আমিও আপনার কাছ থেকে একটা রিপ্লাই চাই। লামিয়া, ব্রাক্ষনবাড়িয়া
উত্তর: বইটা পড়লেই বুঝতে পারবে! আমি আগে থেকে বলে দিচ্ছি না। আমার টুনটুনির বইগুলি পড়েছ শুনে খুশি হয়েছি। থ্যাঙ্ক ইউ। এই যে রিপ্লাই।

প্রশ্ন: আপনার শর্টকাট প্রোগ্রামিং বই এর যোগ, বিয়োগ, গুন, ভাগ পর্যন্ত করেছি। আমি সেভেনে এ পড়ি। এর পরের অঙ্ক বুঝতে পারিনি। কি করবো? আগের বার টুনটুনির বই এর কথা বলেছিলাম। সেটা ইউটিউব থেকে অডিও বুক শুনেছি। ভালো লেগেছে। আপনার প্রিয় বই এর তালিকা দেখে রূপসী বাংলা ডাউনলোড করেছিলাম পড়ার জন্য। তারপরেই রচনায় ৩য় হয়ে জীবনানন্দের শ্রেষ্ঠ কবিতা সমগ্র পেয়েছি।অনেক খুশি হয়েছিলাম। এ. এস, সাভার, ঢাকা
উত্তর: বাহ! তুমি ক্লাশ সেভেনে পড়েই প্রোগ্রামিং শুরু করে দিয়েছ। যে অংশ বুঝো না সেটা বাদ দিয়ে পরের অংশ করে দেখ! আমি জানতাম না, ইউ টিউবে টুনটুনির অডিও বুক আছে! তবে সবচেয়ে ভালো হচ্ছে পড়া, অডিও ভিডিওতে উপভোগ করা হয় কিন্তু ব্রেনের কাজ হয় কম। জীবনান্দের শ্রেষ্ঠ কবিতা সমগ্রের কবিতাগুলো পড়েছ? রূপসী বাংলার একটা কবিতা মুখস্ত করে ফেল। যখন আশে পাশে কেউ থাকবে না তখন আপন মনে সেই কবিতাটা আবৃত্তি করে দেখো কত ভালো লাগবে।

প্রশ্ন: আমি সাদিক। বাগেরহাট থেকে… স্যার, তড়িৎ প্রবাহের একক অ্যাম্পিয়ারকে যেহেতু কুলম্ব/সেকেন্ড রূপে প্রকাশ করা যায় তাই কারেন্ট তো একটি লব্ধ রাশি হওয়ার কথা। কিন্তু এইটা একটা মৌলিক রাশি, কেন? আমার মতে আধানকে একটি মৌলিক রাশি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করা উচিত ছিল যার একক কুলম্ব, কিন্তু এটা বাদ পড়ল কেন?


উত্তর: ইচ্ছা করলে তুমি কি অ্যাম্পিয়ারকে মৌলিক রাশি ধরে নিয়ে চার্জকে লব্ধ রাশি হিসেবে ধরতে পার না? এই ছবিতে যেভাবে দেখানো হয়েছে? আসলে যেটা এক্সপেরিমেন্টে সহজে মাপা যায় সেটাকেই মৌলিক রাশি ধরে নেয়া হয়।

প্রশ্ন: এই বছর আপনার নতুন কি কি বই আসছে? – রামিছ ফারিহা খালিশপুর ,খুলনা

উত্তর: বইগুলি হচ্ছে:
সায়েন্স ফিকশানঃ বনবালিকা (তাম্রলিপি)
যেটুকু টুনটুনি সেটুকু ছোটাচ্চু (সময়)
কিশোর উপন্যাস: অপারেশন নীলাঞ্জনা (অনুপম)
কমিক: মহাকাশের প্রাণী (ঢাকা কমিকস্)
কিশোর উপন্যাস সমগ্র (৬) (জ্ঞানকোষ)
কলামের বই: মানুষ মানুষের জন্য ও অন্যান্য (অনন্যা)
প্রোগ্রামিংয়ের বই: শর্টকার্ট প্রোগ্রামিং (কাকলী)

প্রশ্ন: আসসালামুআলাইকুম স্যার। সবাই বলে বড় হওয়ার জন্য নিজের passion টাকে খুজে বের করতে। আমার প্রায় সব কিছুই করতে ভাল লাগে । কিন্তু কোনোটাতেই আমি দক্ষ নই। এক্ষেত্রে আমি কিভাবে আমার ভালো লাগার জায়গাটা খুজে বের করব? নওশিন, চট্টগ্রাম
উত্তর: তুমি হচ্ছ লাকি! তার কারণ তোমার passion অনেকগুলো! সবগুলো উপভোগ করো। কোনো একটাতে দক্ষ হতে হবে কে বলেছে? তুমি চাইলে অনেকগুলোতে দক্ষ হতে পারবে। আবার কোনো কিছুতে দক্ষ না হয়েও একজন অসাধারণ ভাবে বেঁচে থাকতে পারে। ছোটো একটা জীবন, সেই জীবনটা উপভোগ করা হচ্ছে আসল কথা।

প্রশ্ন: অবসর সময়টা কিভাবে কাজে লাগানো উচিত? আফিফা,চট্টগ্রাম।
উত্তর: উপভোগ করে। সবচেয়ে ভালো হয় তুমি যদি চমৎকার কাজগুলো উপভোগ করা শিখে নাও। যেমন বই পড়া, গান শোনা, ছবি আঁকা, প্রোগ্রামিং করা, মাঠে গিয়ে দৌড়াদৌড়ি করে খেলা, কোনো ধরনের ভলান্টারি কাজ করা… এরকম অনেক কিছু করতে পার। তোমার যেটা করতে ভালো লাগে সেটা কর। তবে কিছু কিছু কাজ হচ্ছে সময় নষ্ট- যেমন ফেসবুক! এরকম কাজ উপভোগ করা শিখে গেলে দুনিয়ার কোনো লাভ হয় না! জুকারবার্গ কিছু টাকা পয়সা পায়!

প্রশ্ন: আস্সালামুআলাইকুম, স্যার। আপনার ও কায়কোবাদ স্যার এর লেখা নিউরনে অনুরণন ও নিউরনে আবার অনুরণন পড়ে শেষ করলাম। কিন্তু সেটা পড়ার পরে কয়েক রাত আমার ঘুম হচ্ছে না, কয়েকদিন আমার মুখে রুচি নেই, এবং আমার প্রিয় ফুটবল খেলায়ও আমি কয়েকদিন ধরে ফর্মে নেই! কারণ বইগুলোর পেছনের অনুশীলনীর অঙ্কগুলো আমার মাথায় সারাক্ষণ ঘুরছে। আপনি দয়া করে অঙ্কগুলোর উত্তর দিন। Name: Safiul Alam Zithu Class:8 Faujderhat Cadet College, Chattogram
উত্তর: প্রশ্নগুলোর উত্তর জেনে তুমি কি করবে? আমরা প্রশ্নগুলো দিয়েছি যেন এগুলো চিন্তা করতে করতে তোমার ঘুম না হয়, তোমাদের মুখে রুচি না থাকে, এবং তোমাদের প্রিয় ফুটবল খেলাতও তোমরা ফর্মে না থাকো! কারণ বইগুলোর পেছনের অনুশীলনীর অঙ্কগুলো যেন সারাক্ষণ তোমাদের মাথায় ঘুরে। দেখা যাচ্ছে আমরা হান্ড্রেড পার্সেন্ট সফল।

প্রশ্ন: স‍্যার আমি তাহমিদ, নবীগঞ্জ, হবিগঞ্জ। Science fiction somogro 6 kokhon PDF e beer hobe. ……… Ar Darwinism to kunu ghotona noy. Eta shudhui ekta totto. Plzz answer sir.koren?
উত্তর: পৃথিবীর সব বিজ্ঞানীরা মিলে একবার জরীপ করেছিলেন যে পৃথিবীতে বিজ্ঞানের সর্বশ্রষ্ঠ থিওরি কোনটি। তারা বলেছিলেন যে সেটা হচ্ছে ডারউইনের বিবর্তন। তুমি এটা বিশ্বাস করবে কিনা সেটা তোমার ব্যাপার। বিজ্ঞানকে নিয়ে যত খুশি প্রশ্ন করা যায়, যেভাবে ইচ্ছা চ্যালেঞ্জ করা যায়, কাজেই করতে থাক, কোনো সমস্যা নেই। পৃথিবী সূর্যের চারিদিকে ঘুরে বলায় ব্রুনোকে ক্যাথলিক চার্চ একসময় পুড়িয়ে মেরেছিল, কিন্তু তাই বলে পৃথিবীর সূর্যকে ঘিরে ঘুরতে থাকা বন্ধ হয়নি।

প্রশ্ন: আমার প্রশ্নটি খুব সহজ। আপনি ফেসবুকে বা সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করেন না কেন? আর আপনার কিচান আমরা এটি ব্যাবহার না করি? কেন? নাম: শাহেদ হাসনাইন সাবিত জেলা: জয়পুরহাট
উত্তর: উত্তরটাও সহজ: প্রয়োজন হয় না বলে আমি আরও অনেক কিছু ব্যবহার করি না, ছোট একটা জীবন, সেটা কি আমি আমার মত করে উপভোগ করতে পারব না? সবাই যেটা করে আমাকেও সেটা করতে হবে? তোমরা ব্যবহার করবে কিনা সেটা তোমরাই ঠিক করে নিতে পার। হিসেব করে দেখ দিনে এর পিছনে কতটুকু সময় দিচ্ছ, তার বদলে তুমি কতটুকু পাচ্ছ। যদি মনে হয় অনেক কিছু পাচ্ছ, জীবনটা আরও অনেক অর্থপূর্ণ হয়েছে তাহলে কেন করবে না? অবশ্যই তাহলে সবাই মিলে দিনরাত ফেসবুক করবে। তোমার জীবন, তুমি এটা দিয়ে কি করবে সেটা তো তোমাকেই ঠিক করতে হবে।

প্রশ্ন: স্যার গণিত এবং আরো গণিত বইয়ে ত্রিকোণমিতি নিয়ে একটা অধ্যায় করলে ভালো হতো। আর এটার পরবর্তী ধাপ মানে গণিত এবং আরো গণিত -২ করলে খুব ভালো হয়।প্লিজ প্লিজ.. মাহমুদুল আমিন নাজির পাড়া,চঁাদপুর।
উত্তর: তোমার অনুরোধটা জেনে রাখলাম। দেখি কী করা যায়। আজকাল চমৎকার সব গণিতের বই বের হয়েছে না?

প্রশ্ন: Dear Sir, my name is Anushka.I am currently working individually to start STEM ( Science Technology Engineering and Mathematics ) CENTERS accessible by all,especially girls.I have been trying to reach out to you regarding this only.With utmost humbleness Sir, I am not in need of funds or any other favors.Just your statuesque presence to guide us at the right direction.I pray Sir you will at least reach out to me, regardless of the decision you make about this project. Thank you. Anushka Rezwana anushka.
উত্তর: শুনে খুব খুশি হলাম যে তুমি মেয়েদের STEM এডুকেশন নিয়ে কাজ করতে যাচ্ছ। আমার কাছ থকে ঠিক কী ধরনের সাহায্য চাও বল। মনে হয় যদি ই-মেইলে লিখ তাহলে সুবিধা হবে।

প্রশ্ন: জড়তার সাহায্যে কিভাবে বলের ধারণা ব্যাখ্যা করা যায় ?? আমিন-আল-নূর দীপ , ঢাকা সিটি কলেজ , ঢাকা
উত্তর: নিউটনের প্রথম সুত্রতেই তো বলেই দেওয়া আছে, স্থিতি জড়তা কিংবা গতি জড়তার পরিবর্তন করতে হলে বল প্রয়োগ করতে হয়। কিন্তু বলের পরিমাপ না করা হলে সেই বল দিয়ে আমি কী করব? তাই দ্বিতীয় সূত্রটা অনেক বেশি কাজের।

প্রশ্ন: নাম ঃ যারীন তাসনিম ঠিকানাঃ নবীগঞ্জ,হবিগঞ্জ,সিলেট। আসসালামুওয়ালাইকুম স্যার। আমি একজন মেডিকেল ভর্তিচ্ছু।আপনি হয়তো জেনে থাকবেন যে আমাদের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা ২ এপ্রিল নেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে।অথচ, অন্যান্য প্রায় সকল ভার্সিটি করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করে, তাদের ভর্তি পরীক্ষা অনেকটা পিছিয়ে নিয়েছে।এতে আমরা মেডিক্যাল ভর্তিচ্ছুরা সময় বৈষম্যের শিকার হচ্ছি।এটা আমরা কিছুতেই মেনে নিতে পারছিনা। আমরা চাই অন্যান্য ভার্সিটিগুলোর সাথে সামঞ্জস্য রেখে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারিত হোক। এ বিষয়ে আপনার মতামত কি স্যার?
উত্তর: আসলে এই ব্যাপারগুলোতে শুধু একজনের তাৎক্ষনিক মতামত দিয়ে বিবেচনা করা যায় না। এর সাথে আরো অনেক ব্যাপার জড়িত থাকে। যারা সিদ্ধান্ত নেয় তাদেরকে সবকিছু বিবেচনা করতে হয়, কভিডের এই বিষয়টা এতো বিচিত্র যে কোনটা ঠিক কোনটা ভুল সিদ্ধান্ত সেটাও অনেক সময় আগে থেকে বোঝা যায় না।

প্রশ্ন: নাম: আল মুঈদ জেলা: শেরপুর প্রতিষ্ঠান : শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম কলেজ,ময়মনসিংহ আসসালামু আলাইকুম স্যার। আমি একজন মেডিকেল ভর্তিচ্ছু পরিক্ষার্থী।আগামী ২ এপ্রিল আমাদের মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা।কিন্তু বিগত কয়েকদিনে করোনার প্রকোপ আবারো বেড়ে চলেছে।এমতাবস্থায় পরীক্ষা কেন্দ্রিক অনেক লোকের সমাগম আর অন্যান্য এডমিশন টেস্টের তুলনায় আমাদের এক্সাম টা অনেক আগে হচ্ছে।আমরা চাচ্ছি অন্যান্য এডমিশন টেস্টের সাথে সামঞ্জস্য রেখে আমাদের পরীক্ষা টা নেওয়া হোক।আর করোনার অবস্থাটাও বিবেচনা করা হোক।এ বিষয়ে আপনার কি মতামত স্যার?
উত্তর: তোমার আগের জন ঠিক এই প্রশ্নটাই করেছে কাজেই আমার উত্তরও ঠিক আগেরটাই।

প্রশ্ন: প্রিয় ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল স্যার ,আসসালামু আলাইকুম । আমি আপনার সবচেয়ে বেশি ভক্তদের একজন । আপনার লেখা ‘নাট-বল্টু’ আমার পড়া প্রথম বই । তারপর থেকে আপনার যতগুলো বই প্রকাশিত হয়েছে , সবগুলো আমার পড়া । আপনার বই পড়েই বিজ্ঞান শেখার প্রতি আমার আগ্রহ জন্মে । তখন থেকেই আমার বিজ্ঞান নিয়ে আমার অপূরণীয় তৃষ্ণা ! বর্তমানে আমি একাদশ শ্রেণিতে পড়ছি । আমার একটা অনুরোধ আছে । আপনি একটি শিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান চালু করুন । সেই প্রতিষ্ঠান সর্বদা মানুষের ভালর জন্য কাজ করবে । পরিকল্পিতভাবে চিরসবুজ সোনার বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্য গবেষণা করবে । গরিব মানুষদের বিনামূল্যে শিক্ষা দিবে । বিজ্ঞান ও গনিতের রহস্যময় জগতে শিশু-কিশোরদের আগ্রহী করে তুলবে । আর শেষ কথা , যেখানে আপনার পাশাপাশি আমার মতো শিক্ষার্থীরা আপনার সাথে কাজ করার সুযোগ পাবো । ( আমি ভবিষ্যতে দেশের শিক্ষার জন্য কাজ করতে চাই । আপনি যেহেতু দেশে বিজ্ঞান শিক্ষার অগ্রগতিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখেছেন , তাই আপনাকে এই অনুরোধ করলাম । আরও অনেক বই লিখুন আমাদের জন্য , শিক্ষার জন্য । আমাদের জন্য দোয়া করবেন । আসসালামু আলাইকুম । আল্লাহ হাফেজ । আমিন-আল-নূর দীপ , একাদশ শ্রেণি , ঢাকা সিটি কলেজ ঢাকা
উত্তর: ওয়লাইকুম সালাম। তুমি অনেক সুন্দর সুন্দর পরিকল্পনার কথা বলেছ, যার অনেকগুলো আমি নিজেই মাঝে মাঝে চিন্তা করি। আমি যে সব করতে পারব তা হয়তো নয় কিন্তু তোমাদের কেউ কেউ ভবিষ্যতে হয়তো সেগুলো করবে, আমি সব সময় সেটা নিয়ে স্বপ্ন দেখি। আর হ্যাঁ, আমি বই লেখার চেষ্টা করে যাচ্ছি। এটা করতে আমার ভালোই লাগে!

প্রশ্ন: Sir, Assalamualaikum. is universe a sphere or flat?if it is a sphere, can it be possible that the surface we are on is 4 dimensional and the inner and outer side has other dimensions? Can the singularity of a black hole just the way to another dimension and so we see the way with infinite density in which we cant see anything ? Rayet Zarif Mirzapur Cadet College
উত্তর: আমরা বিশাল universe এর ছোট একটা অংশ দেখছি, এর বাইরে কি আছে আমরা কোনোদিন জানতে পারব না। ‘সময়’ হচ্ছে চতুর্থ মাত্রা, কাজেই তূমি যেটা বলতে চাইছ সেটা হয়তো অন্যভাবে বলতে হবে। এই universe নিয়ে সম্ভাব্য কী হতে পারে সেটা নিয়ে জল্পনা কল্পনা করার প্রথম ধাপ হচ্ছে বিজ্ঞানীরা এখন পর্যন্ত যা যা জেনেছেন সেটা সম্পর্কে খুব ভালো ধারনা থাকা। সেটা না থাকলে তুমি যেটা জল্পনা কল্পনা করবে সেটা অনেক সময় অর্থহীন হয়ে যেতে পারে।

প্রশ্ন: হাসিন, ঢাকা। স্যার আপনি হ্যারি পটার সিরিজের কোনো বই পড়েছেন?
উত্তর: এমন কেউ কি আছে যে হ্যারি পটারের কোনো বই পড়েনি? হ্যাঁ আমি পড়েছি। যারা ইংরেজি শিখতে চায় তারা যদি রীতিমত পরিকল্পনা করে এই সিরিজের সবগুলো বই ইংরেজিতে পড়ে ফেলে দেখবে সে কত সুন্দর ইংরেজি শিখে যাবে।

প্রশ্ন: স্যার আমি আপনার বই পড়তে অনেক বেশি পছন্দ করি। স্যার আপনি কি প্লিজ এমন একটা বই লিখবেন যেখানে একটি মেয়ের জীবন যুদ্ধে শুধু মেয়ে হাওয়ার জন্য সমাজ ও পরিবার এর কাছে অপমানিত হতে হচ্ছে। প্লিজ স্যার…প্লিজ, প্লিজ। মুন্সিগঞ্জ, অর্পিতা মন্ডল।
উত্তর: আমি যেহেতু ছেলে হয়ে জন্ম নিয়েছি সেজন্য মেয়েদের অনেক গোপন দুঃখ কষ্টের কথা আমি সরাসরি জানতে পারি নাই। কিন্তু যতই দিন যাচ্ছে আমি সেটা অনেকের কাছ থেকে জানতে পারছি। তুমি ঠিকই বলেছ, আমার চেষ্টা করা উচিৎ এরকম একটা বই লেখা। তবে মেয়েদের নিয়ে আমি রাশা আর সাইক্লোন এই দুইটা বই লিখেছি, পড়েছ?

প্রশ্ন: Sir apni ki Feluda series er kono boi porechen???jodi pore thaken tahole apnar kemon legeche?? Name:Adib,Address:rampura,Dhaka
উত্তর: অবশ্যই পড়েছি। খুবই ভালো লেগেছে। ফেলুদা’র বইয়ে সত্যজিৎ রায় নিজে ছবি আঁকতেন সেগুলোও আমার কাছে খুব ভালো লাগতো।

প্রশ্ন: স্যার অনেক দিন পর এসেছেন।কেমন আছেন স্যার?সুস্থ আছেন?বাসায় সবাই কেমন আছে? আপনি এই বছর আবারও টুনটুনি ছোটাচ্চু লিখেছেন বলে আমি অনেক খুশি হয়েছি।স্যার একটি প্রশ্ন আছে আপনার কাছে।স্যার আপনি কি হ্যারি পটার পড়েছেন? স্যার আরও একটা কথা স্যার আমার জন্মদিন আসছে ১৫ই মার্চ। আমার ১৫ তম জন্মদিন এবার।স্যার দোয়া করবেন যেনো আমি একজন ভালো মানুষ হয়ে উঠতে পারি।আমার মা বাবাকে যেনো আমি ভালো রাখতে পারি এবং আমার সব দায়িত্ব যেনো আমি ঠিক মত পালন করতে পারি।স্যার আজ এই পর্যন্তই।ভাল থাকবেন স্যার।প্লিজ উত্তর দিবেন।সাবধানে থাকবেন স্যার নাম:দেবাত্রী মজুমদার তরী ঠিকানা:মালিবাগ,ঢাকা


উত্তর: হ্যাঁ সবাই ভালো আছি আমরা। থ্যাঙ্কু। আমি খুবই দুঃখিত যে সময়মতো তোমার জন্মদিনের শুভেচ্ছা দিতে পারলাম না। একটু দেরি করে দিলাম “শুভ জন্মদিন তরী”। বড় হয়ে তুমি যা যা করতে চাইছ তার সব কিছু নিশ্চয়ই করতে পারবে। আমি দোয়া করছি একদিন যেন সবাই তোমাকে নিয়ে গর্ব করতে পারে। (হ্যাঁ, আমি হ্যারি পটারের বই পড়েছি।)

প্রশ্ন: আমি সাদিক। বাগেরহাট থেকে… স্যার, ডার্ক এনার্জি এবং ডার্ক ম্যাটার কী?
উত্তর: এই সাইটেই আমার এর উপর দুইটা বই আছে, সেখানে অনেক গুছিয়ে আমি এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দিয়েছি। একটু কষ্ট করে পড়ে নেবে প্লিজ?

প্রশ্ন: সম্মানিত স্যার, টুনটুনি ও ছোটাচ্চু সিরিজ এর একটি নাটক বানানো দরকার – বলে আমার ফুফাতো ভাই আমার আমার মাথা খেয়ে নিল |আজকে আপনার এই ওয়েবসাইট টা দেখে সে আমাকে এই প্রশ্ন লিখতে বাধ্য করেছে। এখন এর উত্তরে আপনি কি দিবেন সেটা আপনি জানেন। আফিয়া আজমাইন মুনতাসির আহসান রুদ্র তেরোখাদিয়া রাজশাহী
উত্তর: ছোটাচ্চু আর টুনটুনি নিয়ে সিরিজ বানানোর জন্য একবার অনেক বড় একটা প্রতিষ্ঠানের অনেক বড় একজন ডিরেক্টর এসে আমার সাথে দেখা করেছিলেন। আমি রাজী হইনি, আমি চাই সব ছেলেমেয়েরা নিজের মত করে চরিত্রগুলো কল্পনা করে নিক। এক ঘন্টা থেকে বেশি সময় চেষ্টা করেও আমাকে রাজী করাতে না পেরে সেই ডিরেক্টর সত্যি সত্যি চোখ মুছতে মুছতে (এবং নিশ্চয়ই আমার উপর অনেক রাগ হয়ে) চলে গিয়েছিলেন। তোমার ফুফাতো ভাইকে এই ঘটনার কথাটা বল, এখন সেও নিশ্চয়ই আমার উপর অনেক রাগ হবে!

প্রশ্ন: স্যার আমি এইবার ক্লাস নাইনে উঠেছি। যখন নতুন বই আনতে গেলাম তখন লক্ষ করলাম অনেক স্টুডেন্টের মুখেই মাস্ক নেই। এমনকি টিচারও যখন বই দিলেন, তার মুখেও মাস্ক নেই। কারো কারো মাস্ক নাকের নিচে।আমার ক্লাসের অনেক মেয়েই মাস্ক খুলে গল্প করছিল। ক্লাস টেনের একটি মেয়ে মাস্ক না পড়েই চলে এসেছে। স্যার কয়েকদিন পর স্কুল খুলে দিচ্ছে। এখনই যদি এই অবস্থা হয় তাহলে তখন কি হবে? আমি এই ব্যাপারটা নিয়ে খুব চিন্তিত। পুনশ্চঃ আমাদের স্কুলটা আশা করি চিনবেন। আপনি এই স্কুলের বিজ্ঞান মেলায় এসেছিলেন। পুনশ্চ ২ : আর বর্তমানে আপনি কোথায় আছেন? নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক, নবম শ্রেণি, সরকারি অগ্রগামী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ, সিলেট।
উত্তর: নাম পরিচয় না দেওয়ার জন্য যেহেতু অনেকের প্রশ্নের উত্তর দিইনি, তোমার প্রশ্নের উত্তর কিভাবে দিই, বল? সরি।

প্রশ্ন: Sir, assalamualaikum. Hope you are fine. I am a crazy fan of you. (There are more than 70 books of you in my collection) Also my whole school students are your crazy fan. You know our 21st Book Fair is upcoming. I and my friends are very excited about this. Every year I go to the fair with my family for buying your new books and for meeting you for only some moments (For saying that, “You are my super hero, dear Muhammed Zafar Iqbal sir!!!”). So, now I want to know that, are you coming at the book fair? If the ans. is yes, in which day or days are you coming? Your crazy fan Raiyan Nawar Athai Class 7 Rajshahi University School Rajshahi
উত্তর: আমি ভেবেছিলাম বইমেলায় যাব। কিন্তু দেখতেই পাচ্ছ কভিড খুব যন্ত্রণা করছে, তাই কবে যাব, কিংবা যাবই কিনা সেগুলো ঠিক করিনি। কিন্তু কভিডের যন্ত্রণা শেষ হলে আমি সারা দেশ ঘুরে বেড়াব ঠিক করে রেখেছি, তখন নিশ্চয়ই তোমার সাথে আমার দেখা হবে।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার।ভালো আছেন আশা করছি। আপনার লেখার পেছনে,লেখক হয়ে ওঠার পেছনে কার উৎসাহ কাজ করেছে? “রঙিন চশমা” বইটি পড়ে আপনার ভার্সিটি জীবন সম্পর্কে জেনেছি।কিন্তু আপনার ছোটবেলা সম্পর্কে কিছুই জানতে পারিনি।আপনার ছেলেবেলা নিয়ে যদি একটা বই লিখতেন ! আরেকটা অনুরোধ স্যার।আপনি শিশু,কিশোরদের নিয়ে বেশি লেখেন।তরুণ-তরুণীদের নিয়ে লেখেননা অনেক দিন হলো।”আকাশ বাড়িয়ে দাও” কিংবা “বিবর্ণ তুষার” এর মতো উপন্যাস কত কাল যাবৎ দেখিনা।এরকম যদি আবার লিখতেন স্যার। শেষ আরেকটা অনুরোধ করছি। আপনার অটোগ্রাফ যদি পেতাম!আপনার দীর্ঘায়ু কামনা করছি। আহনাফ হাসান আবীর,একাদশ শ্রেণি,নটর ডেম কলেজ,ঢাকা


উত্তর: একজনের উৎসাহ থেকে মনে হয় পরিবারের পরিবেশটাই বেশি কাজ করেছে। চারপাশে শুধু বই, সবাই পড়ছে, সবাই লিখছে তাই লেখালেখিটুকু খুব সাধারন কজ বলে মনে হত। তবে লেখক হব সেটা কখনো মাথায় আসেনি। আমার শৈশব খুব আনন্দের ছিল, কিন্তু লিখে সবাইকে জানানোর মত চমকপ্রদ কিছু ছিল না। বড়দের জন্য আরো লিখতাম, যদি আরেকটুকু সময় পেতাম! ( এই অটোগ্রাফ দিয়ে কাজ চলবে?)

প্রশ্ন: স্যার, আংশিক পাতন বিষয়টি বুঝি না, একটু বুঝিয়ে বলবেন কিন্তু। – মোহাম্মদ তাহসান ইসলাম নাজিম অ্যাড্রেস: টঙ্গী, গাজীপুর , বাংলাদেশ এসএসসি পরীক্ষার্থী ২০২১
উত্তর: আমি এক লাইনে যেটুকু বোঝাব তার চাইতে অনেক ভালোভাবে এগুলো ইন্টারনেটে দেওয়া আছে। fractional distillation লিখে একটা সার্চ দাও।

প্রশ্ন: স্যার আমি মাহির । ঠিকানা , কুমিল্লা ***** পোস্টাল কোড : ৩৫০০ । স্যার , আমরা তিন ভাই , আপনার নিয়মিত পাঠক । সামনে আমার ছোট ভাইয়ার জন্মদিন । তাকে আপনি একটি অটোগ্রাফ দিবেন প্লিজ ? আর ঠিকানাটা গোপন রাখলে ভালো হয়, নাহলে অন্যরা বাসায় চলে আসতে পারে 😀

উত্তর: তোমার ছোটভাইয়ের জন্য শুভ জন্মদিন।

প্রশ্ন: Sir, I think you should put an end to this website. Yes, there’s no denying that it’s been a great medium to be attached with you, your thoughts. But yet, we couldn’t care less about how newcomer children are getting addicted to useless Internet surfing day by day. They are even up to beguile themselves that what they’re doing is just fine as it’s a kind of part of their book things! But, in reality, it doesn’t go that way one think it would. It’s aftermath is far worse. Sorry Sir, but though I don’t mean it for everybody else, I happened to my little brother.That’s why we are stepping back from these website things! It’s much better to read your books or any books than delivering questions in website and checking frequently for replies! I am really really sorry sir, I have to do it for getting back to our own self! We know you very well that you’d be very happy hearing this! We are eagerly waiting for your new books in the upcoming book fair! Lots of love for you,Sir. _ Neila, class:10, Jamalpur Gov.
Girls’ High School
উত্তর: আমিও এটা ভেবেছি। আমি টুনটুনিকে নিয়ে লিখতাম, অনেকেই বলেছে বন্ধ করে দিতে। কিন্তু যতজন বন্ধ করতে বলেছে তার চেয়ে অনেক বেশিজন লিখে যেতে বলেছে। তাই এই বছর আরেকবার লিখেছি। এই ওয়েবসাইটের বেলাতেও তাই, দেখি আরো অনেকে যদি তোমার মত করে বলে বন্ধ করে দিতে তাহলে বন্ধ করে দেব।

প্রশ্ন: Sir amar nam manik , apnar pochonder Sylhet theke bolchi . Ami choto bela theke ai porjonto apnar shob boi porechi . Amar sathe apnar math olympiad e dekhao hoyechilo . sir ami physics niye porte agrohi . kintu poribarer chape E.E.E te vhorti hoyechi , online e class hocche jehetu ekhon amake kichu English physics boi suggest korben , google kore onekgulo peyechi tobuo apnar kach theke shunte chai .
উত্তর: বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে আমার সব চেয়ে প্রিয় বই Resnick and Halilday যেটা পড়ে আমি ফিজিক্স শিখেছিলাম।

প্রশ্ন: ও, sir আমরা যারা ssc 2021 শেষ করতে চলেছি, তাদের জন্য HSC HIGHER MATH সহজ ভাষায় লিখে দিন, please, sir. —– MD. TAHSAN ISLAM NAZIM, ADRESS: TONGI, GAZIPUR,BANGLADESH, SSC CANDIDATE 2021.
উত্তর: তুমি যখন আমার বয়সে পৌঁছাবে, বই পত্র লিখবে তখন টের পাবে একটা বই লিখে ফেলা এতো সহজ না! আজকাল সব বিষয়ে এত সুন্দর সুন্দর বই আছে, ইন্টারনেটে অনেক তথ্য খুব গুছিয়ে দেওয়া আছে, কাজেই তুমি ইন্টারমেডিয়েটের হায়ার ম্যাথের চমৎকার বই এমনিতেই পেয়ে যাবে।

প্রশ্ন: আমি সাদিক। বাগেরহাট থেকে… স্যার, ক্যালকুলাস শিখতে গেলে কোন কোন বিষয়ে পূর্বজ্ঞান থাকা আবশ্যক? (আমি ক্যালকুলাস শিখতে আগ্রহী) আর, ক্যালকুলাস শেখার কয়েকটি বইয়ের নাম বলে যান, প্লিজ… (আপনার ক্যালকুলাসের বইটি আমার কাছে আছে)
উত্তর: গণিতের সাধারণ বিষয়গুলোর বাইরে তেমন কিছু জানতে হয় বলে মনে হয় না। একটা ক্যাল্কুলাস বই নিয়ে শুরু করে দেখ সমস্যা হয় কি না।

প্রশ্ন: এ বছর আপনার যে কিশোর উপন্যাস সমগ্র বেরোবে, তার প্রচ্ছদের রং কী ঠিক করেছেন? গোলাপি,জলপাই সবুজ নাকি আগের মতোই লাল,সবুজ,হলদে-কমলা,নীল অথবা বেগুনি? পিনাক গুপ্ত, গোয়ালখালি,খুলনা।


উত্তর: আমি তো প্রচ্ছদের রঙ ঠিক করিনা প্রচ্ছদ-শিল্পী করে। এই, দেখো কী রঙ?

প্রশ্ন: স্যার, আমি কিছু ছবি এঁকেছি। আপনাকে দেখাবো কিভাবে? শাইরা শেহরিন, কবি জীবনানন্দ দাশ সড়ক, বরিশাল
উত্তর: বাহ! কী চমৎকার! আমার ই-মেইল জোগার করে পাঠিয়ে দাও প্লিজ।

প্রশ্ন: কোথায় যেন একটা ছোট্ট গল্প পড়েছিলাম আপনার লেখা , নাম “প্রোগ্রামার”। গল্পটা কী আসলেই আপনি লিখেছিলেন? লিখে থাকলে কোথায় লিখেছিলেন?
উত্তর: মনে হয় লিখেছিলাম। কবে কোথায় লিখেছিলাম কিছুই যে মনে নেই!

প্রশ্ন: যেরকম টুনটুনি সেরকম ছোটাচ্চু বইটা খুঁজে পাইনি। পিডিএফ কপিটা কি দিতে পারবেন? এ.এস, সাভার,ঢাকা।
উত্তর: আমার কাছে পিডিএফ নেই, খুঁজে দেখ নেটে কেউ দিয়েছে কিনা।

প্রশ্ন: স্যার আসসালামু আলাইকুম আশা করছি ভালো আছেন। স্যার, আপনি যদি আপনার চুলগুলো একটু বড় রাখেন, কাজী নজরুল ইসলাম এর মতো, তাহলে আপনাকে হুবহু আইন্সটাইনের মতো লাগবে। বাপি বলেছে। রুম্মান জারা।
উত্তর: মনে হয় নিজেকে আইনস্টাইনের মত দেখানো আমার কপালে নেই, চুল একটু বড় হলেই সারা মাথা কুট কুট করে। রবীন্দ্রনাথ, নজরুল আইনস্টাইন কীভাবে এতো লম্বা চুল রেখেছেন সেটা আমার কাছে রীতিমত রহস্য!

প্রশ্ন: আমি আপনার অনেকগুলো বই পড়েছি ( কিশোর উপন্যাস সমগ্র ১-৫, টুকুনজিল, সফদর আলীর মহা মহা আবিষ্কার, সায়রা সায়েন্টিস্ট, ব্ল্যাকহোলের বাচ্চা, গ্রামের নাম কাঁকনডুবি…… নাম বলে শেষ করা যাবে না) অসংখ্য ধন্যবাদ আমাদের আনন্দ দেওয়ার জন্য। ইমতিহান ইসলাম, উত্তর বগুড়া রোড, বরিশাল
উত্তর: থ্যাঙ্কু ইমতিহান। তুমি কোনো প্রশ্নের উত্তর চাওনি, শুধু আমাকে ধন্যবাদ দেওয়ার জন্য কষ্ট করে লিখেছ, কি সুন্দর একটা ব্যাপার!

প্রশ্ন: স্যার, আমার নাম রাব্বি, এবার এইচ.এস.সি দিয়েছি। কয়েকমাস পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা। আমার একটা সমস্যার সমাধান দিন প্লিজ! ছোটবেলা থেকেই আমার ইচ্ছা ছিল সি.এস.ই তে পড়ার। কারণ বন্ধুরা অনেক তারিফ করতো আমি তাদের কম্পিউটার কিংবা মোবাইলের প্রবলেমগুলো ঠিক করে দিতাম বলে। তাছাড়া পোগ্রামিং কিংবা লজিক ব্যাপারগুলি ধরতে পারি। আমার পরিবারও রাজী এবার। কিন্তু সমস্যাটা আমাকে নিয়ে। করোনার বন্ধে আমি প্রচুর ফিজিক্স রিলেটেড বই পড়েছি, , ড্যাভিড হ্যালিডে, ইয়াকভ পেরেলম্যান, অভিজিৎ রায়, স্টিফেন হকিং, কার্ল স্যাগান, রুশো তাহের, আপনার এবং আরও অনেকের। শুরু করেছিলাম আপনার একটুখানি বিজ্ঞান ও আরেকটু খানি বিজ্ঞান দিয়ে। তারপর কোয়ান্টাম ম্যাকানিক্স, বিগ ব্যাঙ্গ থেকে হোমো সেপিয়েন্স, থিওরী অব রিলেটিভিটি এগুলো শেষ করেছি। বইগুলো যখন পড়ছিলাম তখন ছোটবেলা থেকে পদার্থ বিজ্ঞানের না বোঝা বিষয়গুলির মানে দাড়াতে শুরু করলো। একটু একটু করে পদার্থবিজ্ঞানকে ভালো বাসতে শুরু করলাম। গণিত আমার এমনিতেই প্রচুর ভালো লাগে। কিন্তু পিওর ম্যাথমেটিক্স নিয়ে পড়তে ইচ্ছে করেনা রিচার্ড ফাইনম্যান যে কারণে পিওর ম্যাথমেটিক্স ছেড়ে দিয়েছিলেন একই কারণে! আর এ্যাপ্লাইড ্যাথমেটিক্স তো ইঞ্জিনিয়ারিং ম্যাথই। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, আমার কোনটাতে পড়া উচিত? এর মাঝে আপনি ফিজিক্স নিয়ে পড়েছেন জেনে আমার ফিজিক্স চয়েজে আরও একটি স্টার যোগ হলো। এখন আমি কল্পনা করি একজন থিওরিটিক্যাল ফিজিসিস্টের মতন হাতের সামনে প্যাড ধরে মহাবিশ্বের কোন একটা সমস্যা নিয়ে ভাববার কী মজাই আলাদা! কিন্তু আবার ভয় করে কারণ আমি যে ফিজিক্সে প্রচুর ভালো তা সত্যি না। কিন্তু সিএসই সামলাতে পারবো সে সক্ষমতা আছে। এখন প্রশ্ন দুটো ১. সিএসইতে বিএস শেষে, ফিজিক্সে এমএস করে কম্পিউটেশনাল ফিজিক্স বা কোয়ান্টাম কম্পিউটিং নিয়ে কাজ করা যাবে? এটা কী ভালো সিদ্ধান্ত? কেননা বিএস শেষ করতে করতে আমি ফিজিক্সের বেসিক অর্জন করতে চাই। ২. ফিজিক্স নিয়ে পড়াটা কী খুব টাফ? আমার কম্পিউটার নিয়ে ভালোবাসাটাও কী আমি এর সাথে মার্জ করতে পারবো? … অনেক কথা বল্লাম স্যার। বিরক্ত হলে সরি। কথা হয়তো গুছিয়েও বলতে পারিনাই। কিন্তু আমি সত্যিই স্যার অনেক কষ্টে আছি এটা সিলেক্ট করতে না পেরে! আমার উত্তরটা দিবেন স্যার। আপনার মতন করে একটু সময় নিয়ে 🙁 …. … নাম : রাব্বি বাসা: আশুলিয়া, সাভার।

উত্তর: আমি তো কিছু একটা উত্তর দিতেই পারি, কিন্তু এরকম প্রশ্নের উত্তর আসলে নিজের খুঁজে বের করতে হয়। আমার পরিচিত ছাত্রেরা ইইই পড়ে ফিজিক্সে পিএইচডি করেছে, সিএসই পড়ে কোয়ান্টাম কম্পিউটিং করেছে, ফিজিক্স পড়ে গুগলে কাজ করেছে, তাই সব রকম উদাহরণই আছে। কথা হল তোমার সখ কত তীব্র, তার জন্য তুমি কত সময় দেবে।

প্রশ্ন: স্যার আপনার কাছে আমি একটি ভালো প্রাইভেট ইউনিভার্সিটির নাম জানতে চেয়েছিলাম। আপনি উত্তর দিয়েছিলেন তবে ইউনিভার্সিটির নাম দেননি। আপনার উত্তরটাই আমার পছন্দ হয়েছে স্যার এখন একটু অন্য বিষয়ে জানতে চাচ্ছি। বেসিক লেভেল থেকে পদার্থবিজ্ঞান শেখা শুরু করতে চাইলে কিছু বই সাজেস্ট করবেন স্যার? আপনার পদার্থবিজ্ঞানের প্রথম পাঠ পড়ে শেষ করেছি! আর কিছু ইংলিশ বই সাজেস্ট করবেন প্লিজ? এবং শেষে আপনি কী এরকম আরও বই লিখবেন? বিশেষ করে উক্ত বইটির কোন দ্বিতীয় খন্ড। অগ্রিম ধন্যবাদ স্যার। …. নাম : আকাশ, কুমিল্লা।

উত্তর: না, এই মুহূর্তে আমার কোনো প্ল্যান নেই, তবে অন্য বিজ্ঞানের বই লেখার জন্য রেডি হচ্ছি।

প্রশ্ন: আসসালামুয়ালাইকুম স্যার। আসলে আমি এই সাইটে নতুন। তাই কীভাবে প্রশ্ন করতে হয় বা কী ধরনের প্রশ্ন করতে হয় জানি না‌। আমার পাঠ্যপুস্তক সম্পর্কিত কিছু প্রশ্ন আছে,যার উত্তর আমি জানতে চাই। ১…. আপেক্ষিক শব্দের মানে কি? ২…. অ্যাম্পিয়ার,ওয়াট,ভোল্টে এর পার্থক্য কী? ৩…..আম্বর কি?? ৪…… শূন্য মাধ্যম কোনটি? ৫……. স্থিতিস্থাপকতা কী?? নাম: ইশরাক রহমান ফ্লোরা ‌। ঠিকানা: মরজাল, রায়পুরা,নরসিংদী।
উত্তর: দেখতেই পাচ্ছ এখানে অনেক প্রশ্ন করার কোনো নিয়ম নেই যার যেভাবে খুশি প্রশ্ন করে। তবে আমি সবসময়েই চাই তোমরা নিজেরাই যেন প্রশ্নের উত্তরগুলো বের করে ফেল। তুমি যেহেতু প্রথমবার প্রশ্ন করছ, আমি একটি দুটি প্রশ্নের উত্তর দিই: ১. আপেক্ষিক মানে একটার তুলনায় অন্যটি, ২. অ্যাম্পিয়ার হচ্ছে কারেন্টের একক, ওয়াট হচ্ছে ক্ষমতার একক আর ভোল্ট হচ্ছে পটেন্সিয়ালের একক ৩. আম্বর দিয়ে তুমি কি Amber বোঝাচ্ছ? তাহলে সেটা হচ্ছে রেজিনের ফসিল। ৪. শুন্য মাধ্যম নিশ্চয়ই ভ্যাকুয়াম ৫.  স্থিতিস্থাপকতা পদার্থের একটা ধর্ম, তোমাদের ফিজিক্স বইয়ে নিশ্চয়ই বলে দেওয়া আছে।

প্রশ্ন: Assalamualaikum,Sir. Hope you are well. Question: What’s the escape velocity in a black hole? Equal or more than the speed of light? From Sylhet.
উত্তর: নাম পরিচয়টি না দিলে আমি যে প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছি না! সরি!

প্রশ্ন: আচ্ছা ভবিষ্যতে কি আমরা আলোর গতিতে ট্রাভেল করতে পারবো? আব্দুল্লাহ, রাজশাহী
উত্তর: তুমিই বল, ভবিষ্যতে কী পদার্থ বিজ্ঞানের সূত্রগুলি পালটে যাবে?

প্রশ্ন: স্যার, আপনি বলেন যে এখানে ছবি বা ভিডিও দেওয়া সম্ভব না , তবে আপনি এখানে অনেক ছবি দিয়েছেন ৷ যেমন ধরা যাক, আপনি এখানে টুনটুনি ও ছোটাচ্চু সমগ্র , যেটুকু টুনটুনি সেটুূকু ছোটাচ্চু এই ছবি দিয়েছেন | এছাড়াও আপনি অনেকের জন্মদিনে কেকের ছবি দিয়েছেন | সেগুলো কিভাবে দেন ? আফিয়া আজমাইন ,তেরোখাদিয়া রাজশাহী
উত্তর: আমি তো দিতেই পারি, এবং দিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু এটা তো ফেসবুকের মত একটা প্লাটফর্ম না যে সবাই সবকিছু করতে পারবে, তাই যারা এটা পড়ছে তারা শুধু দেখতে পারে, ছোটখাট প্রশ্ন করতে পারে তার বেশি কিছু করতে পারে না!

প্রশ্ন: আসসালামুআলাইকুম স্যার।আশা করি আগের মতোই বা এর থেকেও বেশি সুস্থ আছেন।গতবারের প্রশ্নের উত্তর পেয়ে খুশি হলাম।আজ আমি আপনার কাছ থেকে পরামর্শ নিতে চাই।আমি নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী।মানে ২০২০ অষ্টম শ্রেণী থেকে নবম শ্রেণিতে অটোপ্রমোশন পেয়েছি।যেহেতু গতবছর বিদ্যালয় থেকে সরাসরি পাঠদানের অন্তর্ভুক্ত হতে পারিনি, তো পড়ালেখা করার জন্যও তেমন তাগিদ ছিলনা।বছরটা অনেকটা হেলাফেলায় অতিবাহিত হয়েছিল।কিন্তু আমার ব্যক্তিসত্ত্বায় কিছুটা পরিবর্তন এসেছে।আমার দৃষ্টিভঙ্গিতে পরিবর্তন এসেছে,আমি ধর্মটাকে যথাযথভাবে অনুসরণ করার চেষ্টা করি এখন।আবার আগে যেমন একদম মুখস্ত করতাম পড়া, এখন আর তেমন করিনা।কিন্তু এখন যেহেতু মাধ্যমিক পর্যায়ে আমি পড়াশোনা করছি সুতরাং শাখা নির্বাচন করতে হয়, ক্যারিয়ারের কথা চিন্তা করতে হয়।ভবিষ্যতে কোন পেশায় নিয়োজিত হবো সেটা নির্ধারণ করতে হয়।কিন্তু আমি এখনো সেটা নির্ধারণ করতে পারিনি।মানে আমার নির্দিষ্ট কোনো লক্ষ্য এখনো তৈরি হয়নি।আমার সহপাঠী বা প্রতিবেশী, আত্মীয়দের সন্তানদের নির্দিষ্ট লক্ষ্য আছে।আমার নির্দিষ্ট কোনো লক্ষ্য নেই বলে অনেকসময় মন খারাপ হয়,সেটা অনেকটা হতাশায় পরিণত হয়ে গেছে বলতে পারেন।আমার আবার কিছু জিনিস ভালোলাগ, কিন্তু সেগুলোর কোনটাকে আমি বেশি পছন্দ করি সেটা এখনো বুঝতে পারিনি।আমার বিজ্ঞান পড়তে ভাল্লা, সমাজসেবা করার ইচ্ছা আছে,আমার বাবার ইচ্ছে হচ্ছে নরসিংদী জেলার ডি. সি. হওয়া,বা বিসিএস ক্যাডার হওয়া।আমার আবার আরেকটা ইচ্ছা আছে সেটা হলো অভিনয় জগতে যাওয়া।অন্যগুলোর থেকে অভিনয় করার ইচ্ছাটা মনে হয় একটু বেশি সেটা এখন লিখতে লিখতে অনেকটা পরিষ্কার হলো..কিন্তু আবার অভিনয় পেশার খারাপ দিকগুলোও আমার মনে উঁকি দিচ্ছে।যেহেতু আমি অনেকটা ধার্মিক হচ্ছি ধীরে ধীরে তাই।তো আপনি তো আমাদের শিশু-কিশোরদের অনেক প্রিয়।আপনি আপনার দিক থেকে আমাদের কাছে সফল। তাই আপনি যদি আমাকে একটু পথের দিশা দেখান তাহলে আমার এই হতাশা অনেকটা কাটতো।আমি পড়াশোনায় মনোযোগ দিতে পারতাম।…..নামঃনাফিজা তাবাসসুম ফিহা।ঠিকানাঃমনোহরদী, নরসিংদী,ঢাকা। আশা করি আমাকে একটু সাহায্য করবেন..
উত্তর: আমি তোমাকে পথের দিশা দেখাতে পারব না, কিন্তু কয়েকটা বিষয় মনে করিয়ে দিতে পারি। এখন যেহেতু তুমি ছোট আছ তোমার ভবিষ্যতের সবকিছু খোলা আছে। কাজেই বড় হয়ে কী হবে তার জন্য এখনই সব প্রস্তুতি নিয়ে ফেলতে হবে তা কিন্তু নয়! ঠিক করে লেখাপড়া করে দেখ শেষ পর্যন্ত কোনটা তোমার ভালো লাগে। আমি খুব ছোট থাকতে জলদস্যু হতে চেয়েছিলাম। তারপর ফায়ার ব্রিগেডের কর্মী। তারপর আর্টিস্ট। তারপর ডাক্তার। তারপর বিজ্ঞানী। লেখক হওয়ার কোনো পরিকল্পনা ছিল না, কিন্তু বেশিরভাগ মানুষ আমাকে লেখক হিসেবে চিনে!

প্রশ্ন: স্যার আমি ………… তাই মিসির আলী হওয়া ছাড়া হয়তো আর উপায় নেই। স্যা আপনি কিছু বলুন প্লিজ 🙁 নামঃ সাজিদ ঠিকানাঃ খোশবাস, বরুড়া, কুমিল্লা
উত্তর: এটা বাচ্চা কাচ্চার সাইট, এখানে কি এই গুরুতর বিষয় নিয়ে কথা বলা ঠিক হবে? বিশেষ করে আমি যে সব বিষয়ের এক্সপার্ট না!

 

২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

দেখতেই পাচ্ছ পরিচয় দিয়ে না লিখলে উত্তর দিচ্ছি না। তোমাদের নিজের পরিচয় দিয়ে কথা বলা শেখাতে চাইছি। একসাথে একজন অনেকগুলো প্রশ্ন করলে আপাতত একটা প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছি। মাঝে মাঝে কেউ কেউ বুঝে হোক, না বুঝে হোক একটুখানি অশোভন ভাষা ব্যবহার করে, সেই সব প্রশ্নের উত্তরও দেয়া হচ্ছে না।

প্রশ্ন: Sir ami apnar boi onek pori. Amar onek bhallage apnar boi porte (amar computer e bangla type kora jay na tai ektu bujhte oshubifha hote pare). Sir amke please akta reply dien. Nayapaltan, Dhaka,
উত্তর: এই যে উত্তর দিলাম। খুশি? তুমি প্লিজ তোমার কম্পিউটারে অভ্র কিংবা অন্য কোনো ফন্ট ইন্সটল করে নাও। আমি একটু পুরানো মডেলের মানুষ, তাই ইংরেজিতে বাংলা পড়তে খুব কষ্ট হয়!

প্রশ্ন: স্যার আপনি এখন একটি বড় গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন যেখানে আপনি কিছু সহযোগী ছাত্র রেখে বিভিন্ন তত্ত্ব আবিষ্কার করেন। এবং সেখানে শিক্ষার্থীদের শিক্ষার ব্যবস্থা করেন। আমাদের দেশ এতে খুব উপকৃত হবে। তানহা জুবায়ের আরাফ ঢাকা
উত্তর: কী আশ্চর্য, আমি মাঝে মাঝে ঠিক এরকম একটা বিষয় কল্পনা করি।

প্রশ্ন: Sir amar Salam neben.Apni to shb shmoy chotoder jonno boi lekhen,tate borora nishcoy khub rag hoy. Amar khub anondo hoy!Apnaro ki khub anond9o hoy?Sir aro akta proshno apni uttor ato derite den keno?sir apni nijer kheyal rakhben.(ebar proshner uttor napele kintyo ari ari ari ) Hrida nadda dhaka
উত্তর: হ্যাঁ,ছোটদের জন্য লিখতে আমার খুব আনন্দ হয়! তুমি যখন আমার মত বয়স্ক হবে, যখন অনেক রকম ঝামেলা ঘাড়ের উপর পড়বে তখন বুঝবে কেন উত্তর দিতে মাঝে মাঝে দেরি হয়ে যায়!

প্রশ্ন: স্যার এবছর বইমেলায় আপনার লেখা কি কি বই আসবে? নামঃ রোদেলা রাইসা প্রিয়ন্তী ঠিকানাঃ ঢাকা
উত্তর: এখনো লিখছি তাই জানি না। একটা ‘বন বালিকা’ আরেকটা টুনটুনি!

প্রশ্ন: আচ্ছা আপনি আপনার বইয়ের বিভিন্ন চরিত্রের নাম হিসাবে আমার বন্ধুবান্ধবদের নাম ব্যবহার করেন।কিন্ত আমার নাম কেন ব্যবহার করেন না?নাম: মুখর ঠিকানা:গাংনী, মেহেরপুর।
উত্তর: খুবই জটিল প্রশ্ন! দোষ কি আমার, যে তোমার আব্বু আম্মু তোমার জন্য টুনটুনি জাতীয় কোনো নাম দেননি?

প্রশ্ন: Sir, compare these two news please… … … … Maisha Sejunti Jhenaidah District, Bangladesh
উত্তর: আমি এই সাইটে বাচ্চাদের প্রশ্নগুলিও দেখিয়ে দিই যেন সবাই প্রশ্ন আর উত্তর দুটোই পড়তে পারে। শুধু আমার জন্য প্রযোজ্য তথ্যগুলো আমার ই-মেইলে পাঠালে আমার জন্য সুবিধা হয়। প্লিজ! (আমার ই-মেইল বের করা এমন কিছু কঠিন নয়।)

প্রশ্ন: প্রিয় লেখক, আশা করি ভালো আছেন। আমার নাম আফরা, ময়মনসিংহ থেকে।আমি আপনাকে কয়েকটি প্রশ্ন করতে চাই। এমন কোন বই (বা একাধিক বই) কী আছে যা আপনার কাছে খুবই প্রিয় এবং আপনি সবাইকে পড়তে বলবেন? পরের প্রশ্ন হচ্ছে বাংলাদেশের কিশোরদের প্রতি আপনি কি উপদেশ দিবেন? শেষ প্রশ্ন, ২০২১ সালের বইমেলায় কি আপনার কোন নতুন বই বার হবে?আশা করি আপনি এত কিছু দেখে বিরক্ত হন নাই। আপনার সব বই খুব ভালো লাগে আমার। টুনটুনি আর ছোটাচ্চু সিরিজটা তো ফাটাফাটি। এসব অসাধারণ বইয়ের জন্য ধন্যবাদ। আমার লেখায় ভুল থাকলে , সরি। আমি অত ভালো লিখতে পারি না। প্লিজ উত্তর দেবেন কিন্তু, খুব ভেবেচিন্তে ও অনেক পরিশ্রম করে লিখেছি কিনা!
উত্তর: তুমি একটা বইয়ের নাম চেয়েছ, আমি ৫০টা বইয়ের তালিকা এই ওয়েবসাইটে দিয়ে রেখেছি! যদি শুধু একটা বল তাহলে আমি হয়তো জাহানার ইমামের লেখা একাত্তরের দিনগুলির কথা বলব। বাংলাদেশের কিশোর এবং কিশোরীদের জন্য একটাই উপদেশ, সোশাল নেটওয়ার্কে সময় নষ্ট না করে বই পড়, প্লিজ!

প্রশ্ন: স্যার, এই বছর বইমেলায় কি টুনটুনি ও ছোটাচ্চুর নতুন বই বের হবে? মাহমুদুল হাসান, সিলেট।
উত্তর: হবে! না হলে বাচ্চারা আমার জান খেয়ে ফেলবে।

প্রশ্ন: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ বরাবর, মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, বিষয় : একটি বিনীত আবেদন জনাব, যথাবিহীত সম্মানপূর্বক বিনীত নিবেদন এই যে, আমরা আপনার কয়েকজন নিয়মিত পাঠক-মাঝে মাঝে আপনার এই ওয়েবসাইটটিতে ঢু মেরে যাই ৷ কিন্তু অত্যন্ত বেদনাদায়ক ভাবে আপনি প্রায় এক মাস থেকে এই ওয়েবসাইটটিতে আসেননি ৷ অতঃপর আপনাকে এই ওয়েবসাইটটিতে নিয়মিত আসার জন্য অশেষ অনুরোধ রইল ৷ আপনার কয়েকজন নিয়মিত পাঠক আফিয়া আজমাইন } ফিয়না সাদাত } – সকালে রাজশাহী থেকে মুনতাসির আহসান }
উত্তর: হা হা হা! কী সুন্দর দরখাস্ত! পরীক্ষায় এভাবে লিখলে নির্ঘাত দশে দশ! আমি তো আসতেই চাই, এতো ব্যস্ত হয়ে যাই মাঝে মাঝে যে নিঃশ্বাস নেবার সময় পাই না। কী করব বল?

প্রশ্ন: ২৪/ ২/ ২০২১ সকাল ১:৩১ মিনিট স্যার, প্রায় এক মাস হয়ে গেল আপনার দেখা নাই ৷কেন?????? ঠিক আছেন তো ? আফিয়া আজমাইন, মাইক্রো স্ট্যান্ডের সামনে,তেরোখাদিয়া, রাজশাহী
উত্তর: হ্যাঁ, ঠিক আছি, এই তো এসেছি, দেখা হল।

প্রশ্ন: নামঃ শরিফ উদ্দীন জুম্মান ঠিকানাঃ বাড্ডা ঢাকা স্যার, এখন তো আপনার অবসর আর অবসর আর অবসর। তাহলে আমরা কি এবারে ডাবল ডাবল নতুন বই উপহার পাবো? (বিদ্রঃ আমি আপনার কয়েকটা বাদে সব বই পড়ে ফেলেছি। বাকিগুলোও পড়তাম, কিন্তু হঠাত আমার চোখে একটু সমস্যা দেখা দেওয়ায় পড়া থেকে একটু অবসর নিয়েছিলাম। এখন আবার শুরু করবো। )
উত্তর: কেমন করে তোমার ধারণা হল এখন আমার অবসর আর অবসর অবসর? দুনিয়ার সবাই জানে আমি অবসরে গিয়েছি, তাই এখন সবাই আমাকে সব কাজ দিয়ে বসে আছে! পাগল হয়ে যাবার অবস্থা।

প্রশ্ন: শ্রদ্ধেয় স্যার, আমি আজকেই আপনার ইরন নামের বইটি পড়ে শেষ করেছি ৷ গল্পটা চমৎকৃত ছিল ৷ কিন্তু আমি শেষের এই লাইনটা বুঝতে পারলাম না- “….মূর্তিটা নেওয়ার জন্য নিশি তার হাত বাড়িয়ে দিল ৷ ইরন চমকে উঠলো ৷ কারণ নিশি তার যে হাতটি বাড়িয়েছে সেটি ছিল তার ডান হাত ৷” এটা কেমন হলো ! তার মানে কি 4th dimension এর প্রাণীরা তাকে নিয়ে গিয়ে আবার ফেরত দিয়ে এসেছে?! আমার কাছে বিষয়টি বেশ স্পষ্ট হলো না ৷ নাম: আফিয়া আজমাইন ঠিকানা: রাজশাহী
উত্তর: কী লিখেছিলাম কিচ্ছু মনে নাই। তোমার প্রশ্নটার উত্তর দিতে হলে আবার বইটা পড়তে হবে। তুমি যেটা লিখেছ মনে হয় সেরকম কিছু একটাই হবে!

প্রশ্ন: স্যার, আমি ইন্টার দিয়েছি, প্রিপারেশন আর রেজাল্ট খারাপ। প্রাইভেটে ভর্তি হতে চাই, একটি ভালো প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি সাজেস্ট করবেন কী কম্পিউটার সায়েন্সের জন্য? ধন্যবাদ নাম: আকাশ কুমিল্লা
উত্তর: আমি আসলে সেভাবে প্রাইভেট ইউনিভার্সিটির ভালো-মন্দ জানি না। জানলেও বলা হয়তো শোভন হত না, ঠিক কিনা?

প্রশ্ন: স্যার, আপনি কী কফি খান? বেশ উদ্ভট প্রশ্ন স্যার তারপলও জানতে চাই। নাম : আকাশ কুমিল্লা থেকে বলছি।
উত্তর: হ্যাঁ খাই। তবে  কফি ভালো হতে হবে, এ ব্যাপারে আমি একটু খুঁতখুঁতে।

প্রশ্ন: আপনি কি আর টুনটুনিও ছোটাচ্চু আর লিখবেন না? আগের বইমেলা থেকে আমি টুনটুনিও ছোটাচ্চু সমগ্র কিনেছিলাম। আমি আমার বড় বোন দেরকে রাতে পরে শুনিয়েছিলাম। এইবার বইমেলাতে আরো টুনটুনিও ছোটাচ্চু বের হবে না? আপনি এবার বইমেলাতে কবে আসবেন? আমি আপনার Autograph নিব। সুজানা ইসলাম রিয়ানা, ঢাকা
উত্তর: লিখব, লিখব অবশ্যই লিখব। বইমেলাতে কবে আসব এখনো জানি না। এবারের বইমেলাতে নিশ্চয়ই তুফান হবে, কী মজা হবে, তাই না? তুফানে ভিজতে আমার খুব ভালো লাগে।

প্রশ্ন: স্যার, আমাদের পদার্থবিজ্ঞান বইয়ে হুকের সরল স্পন্দন গতির সূত্রটি প্রমাণ করার সুযোগ নাই কেন? আমি সাদিক। বাগেরহাট থেকে…
উত্তর: একটুখানি ক্যালকুলাস ছাড়া এটা বের করা যাবে না বলে।

প্রশ্ন: প্রিয় স্যার,আসসালামু আলাইকুম।আজকে আমি যে প্রশ্নটি করব সেটি আগেও করেছিলাম, তবে আগে একটা ভুল হয়ে গেছিল।আমার নাম -ঠিকানা লিখতে ভুলে গেছিলাম।আসলে আপনাকে প্রশ্ন..নয় ঠিক অনুরোধ করতে চাই।এই সাইটে ঢুকে আমি সকলের প্রশ্ন উত্তর গুলো পড়ছিলাম।তখন একটা প্রশ্নে দেখি কারা যেন অনুরোধ করেছে আপনাকে “টুনটুনি ও ছোটাচ্চু” সিরিজটি আর না লিখতে।যতবারই নতুন পার্ট বের হচ্ছে কেমন যেন পানসে হয়ে যা। কিন্তু আমার অনুরোধ আপনি অন্তত আরো কয়েকটা লিখবেন,দয়া করে।আসলে অন্যদের কাছে বোরিং লাগলেও আমার বোরিং লাগছেনা।যদিও সংখ্যাগরিষ্ঠ কোন দল?..মানে কতজন এই সিরিজটির আরো বই পড়তে চায় আর কতজন চায় না,আমার তা জানা নেই।তবে আমি আমার ব্যক্তিগত মতামত জানালাম।যদি আমার প্রশ্নের উত্তর টা আপনি দেন তাহলে অন্য যারা এই সাইটে প্রশ্ন-উত্তর পড়তে আসে তাদের মধ্যে যারা এই সিরিজের আরো বই পেতে চায় তাদেরও চোখে পড়বে নিশ্চয়ই(আশা করি)।আর যারা আরও পড়তে চায় তাদের কাছে অনুরোধ রইল আপনারাও স্যারকে অনুরোধ করবেন।আর স্যার যদি আপনার নিজেরই পানসে লাগে তাহলে অন্য কোনো সিরিজের বই লিখবেন গোয়েন্দাগিরি নিয়ে।আর আরো একটা প্রশ্ন আপনার এই সাইটে ঢুকে একটা ছবি দেখলাম,ছবির পোজটা দেখে মনে মনে অবাক হলাম।এই পোজটা দেবার কারণটা যদি জানাতেন দয়া করে। নামঃ নাফিজা তাবাসসুম ফিহা।ঠিকানাঃমনোহরদী, নরসিংদী, ঢাকা।


উত্তর: তোমার মন খারাপ করার কোনো কারণ নেই। এই দেখ, এই বছরের টুনটুনি আর ছোটাচ্চুর বইয়ের প্রচ্ছদ! বই ছাপা হচ্ছে! আর ছবির পোজের সত্যিকারের কোনো কারণ নেই, সব কিছুর কারণ থাকতে হবে সেটাই কে বলেছে? তুমি কোনো একটা কারণ বেছে নাও।

প্রশ্ন: স্যার text book এর গন্ডি থেকে বের হয়ে আমি জ্ঞান অর্জন আর বই পড়ার আনন্দ উপভোগ করার জন্য বই পরতে চাই ।। এখন কোন লেখক বা কি বই দিয়ে পড়া শুরু করলে ভালো হবে। Muhammad Hamim,Bagerhat
উত্তর: বইটা খুবই ব্যক্তিগত পছন্দের ব্যাপার। তোমার কোন বইটা ভালো লাগবে সেটা তো আমার পক্ষে অনুমান করা কঠিন। এই ওয়েবসাইটে আমার পছন্দের ৫০টা বইয়ের নাম দিয়ে রেখেছি, দেখ সেগুলো তোমার কাছে কেমন লাগে।

প্রশ্ন: Dear sir, I am a student of class 10 in … … … …  School. Our school has a lot of good students so the environment of the school is very competitive. When we were in class 5 almost all students started to went to 1 or 2 coachings. I was also one of them. In class 8, they went to 3 or 4 coachings from the beginning of the year but this time I gave only model test in a coaching for one month and had a homeroom teacher for last 3 month before JSC. When I was in class 7, I read Shadashidhe Kotha. At first, I thought it must be boring but then after I read it, it changed my mind.I started to respect you a lot. After reading it, I decided to slowly reduce my coaching in future. In class 9, I decided to give SSC without any coaching. But because of corona schools were closed and I missed 3 months to prepare for SSC. But at that time, most of the students of my class started 5 or 6 online coaching. In July 2020, my dad forced me and I needed to attend a coaching for 3 months then I rebelled and quitted the coaching. In class 10, my parents forced me to attend a coaching for January month and I rebelled and quitted again after attending in January. … … … … … … … … I don’t want to go to coaching. To be honest, it hurts my pride. Whenever some students asked why my result is good without many coaching, I felt good and a bit proud. I don’t want to go to coaching and let go of my pride. But how can I get golden in SSC? Should I have joined coaching from the beginning? In this situation, What should I do? How many hours should I study? How much effort do I need to give? From, … … …  Class 10 (Bangla medium)  Dhaka
উত্তর: আমি কিন্তু এখনো কোচিংয়ের প্রয়োজনীয়তাটুকু বুঝতে পারিনি। ধরা যাক তোমার গণিত বইয়ের অঙ্ক তুমি নিজে নিজে করতে পারছ না, তুমি চেষ্টা করে যাচ্ছ। আর তোমার বন্ধুবান্ধবেরা কোচিং সেন্টারে গিয়ে তার রেডিমেড সমাধান পেয়ে যাচ্ছে। তাতে তার কী লাভ? সে কি সেই অঙ্কটা মুখস্ত করে ফেলবে? এটাই কী কোচিংয়ের সুবিধা?
আমি একটা বিষয় শেখার ব্যপারটুকু বুঝতে পারি। বইয়ের দায়িত্ব হচ্ছে ছেলেমেয়েদেরকে শেখানো। পরীক্ষাটা ভিন্ন ব্যাপার। সেটা হওয়া উচিৎ ছেলেমেয়ে কতটুকু জানে সেটার সঠিক মূল্যায়ন। তোমার কথা শুনে মনে হচ্ছে আসলে সেটা হয় না। পরীক্ষার বিষয়টা ভিন্ন, কৃত্রিম ভাবে কঠিন। তাই যদি সত্যি হয় তাহলে শেখার সাথে সাথে পরীক্ষার আগে আগে তোমাকে পরীক্ষা দেওয়ার টেকনিকটাও একটু জেনে নিতে হবে। আমি নিশ্চিত তুমি নিশ্চয়ই পরীক্ষার প্রশ্নগুলো কোথাও না কোথাও পেয়ে যাবে। সেগুলোর সমাধান করে পরীক্ষার জন্যেও একটু প্রস্তুতি নিতে পার। আমি তোমাকে গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি তোমার পরীক্ষা ভালো হবে। আমার কথা শুনে যারা কোচিং না করে লেখাপড়া করেছে এখন পর্যন্ত তাদের একজনের পরীক্ষাও খারাপ হয়নি। তোমাকে হতাশ হলে হবে না, তোমাকে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ থাকতে হবে। তুমি সবার মাঝে একটা উদাহরণ তৈরি করবে, তাই না? আমি আশা করে আছি, আমাকে নিরাশ করো না, প্লিজ।

প্রশ্ন: 3^2021 সংখ্যাটির শেষের দুই অংকের যোগফল কত? Md. Shahadat Hossain Govt. Science College, Class:11
উত্তর: 0 + 3 = 3

প্রশ্ন: আমি অষ্টম শ্রেণির একজন ছাত্রী।বুঝতেই পারছেন সামনে আমার জেএসসি পরীক্ষা। এ কারনে পড়ার অনেক চাপ। তবে চাপ প্রদানকারী বাবা মা নয় বরং আমাদের শিক্ষাব্যাবস্থা। আমি ছবি আঁকা ও বই পড়া ( পাঠ্যবই বাদে অন্য যেকোনো বই) অসম্ভব পছন্দ করি। কিন্তু সময় পাই না। এই গেল শিক্ষাব্যাবস্থা ( যদিও অল্প কথায় শেষ করলাম)। আমাদের সমাজব্যাবস্থা আমাকে নাচ,গান,কারাতে, জিমন্যাস্টিকস ইত্যাদি শিখতে বাধা দিয়েছে।এছাড়া আমাকে বোরকা পড়তে রীতিমত বাধ্য করা হয়েছে (সমাজব্যাবস্থাও অল্প কথায় শেষ করলাম)। এখন আমার কী করা উচিত? বিঃদ্রঃ বাংলা টাইপ করতে অনেক কষ্ট হয়েছে, তাই প্লিজ সমাধান না হলেও অন্তত সমবেদনা জানাবেন। ( নাম-ঠিকানা গোপন রাখলে খুশি হব)
উত্তর: ইশ! তুমি মাত্র অষ্টম শ্রেণিতে পড় আর তুমি বলছ তোমার পড়ালেখার অনেক চাপ। এই বয়সে লেখাপড়া নিয়ে কোনো মাথা ব্যাথাই থাকার কথা নয়। তুমি ছবি আঁকতে আর বই পড়তে পছন্দ কর শুনে খুব খুশি হয়েছি। সময় না পেলেও এই দুটি কাজ অবশ্যই করে যাবে। (আমি নিজেও এই দুটি কাজ অসম্ভব পছন্দ করি, আমিও সময় পাই না, কিন্তু আমার বয়স তোমার বয়সের পাঁচ-ছয় গুণ)। আমার শুনে খুব খারাপ লাগছে যে এই সমাজব্যবস্থার কারণে তুমি তোমার পছন্দের কিছু করত পারছ না। তুমি তোমার স্বপ্নগুলিকে বাঁচিয়ে রেখো, যখন বড় হবে, নিজে স্বাধীন হবে, তখন একটি একটি করে সব স্বপ্ন সত্যি করে ফেলবে। এটি সম্ভব, আমি জানি।
তুমি ইংরেজিতে বাংলা না লিখে কষ্ট করে বাংলায় লিখেছ সেজন্য তোমাকে অনেক অনেক অভিনন্দন। অন্য সবাই কী দেখছ এই মেয়েটির কাজ?

প্রশ্ন: মহাবিশ্বের গ্রহগুলো নিখুঁত গোলাকৃতি ধারন করে থাকে কীভাবে? শাইরা শেহরিন, কবি জীবনানন্দ দাশ সড়ক, বরিশাল সদর
উত্তর: মাধ্যাকর্ষণের কারণে। ছোট গ্রহকণা এবরো থেবরো হয়, কিন্তু বড় গ্রহ সবসময় গোলাকার।

প্রশ্ন: স্যার, একটা আবেদন… এসএসসি লেভেলের সায়েন্সের বইগুলাতে যদি শব্দকোষ যোগ করতেন তাহলে খুবই উপকার হতো… (যেমনঃ জীববিজ্ঞানের অনেক কথা বুঝি না। “সেন্ট্রোজোম অ্যাাস্টার রে, স্পিন্ডল যন্ত্র, ফ্লাজেলা তৈরি করে” – এইখানে ‘অ্যাাস্টার রে’, ‘স্পিন্ডল যন্ত্র’ ও ‘ফ্লাজেলা’ এর মানে কী?)
উত্তর: আমি যদি ভবিষ্যতে পাঠ্য বই লিখি তোমার চমৎকার প্রস্তাবটা মনে রাখব।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম, স্যার! আমি ইরফান সাদিক। বাগেরহাট থেকে… আমার জ্যোতির্বিজ্ঞানী হওয়ার প্রচণ্ড শখ। বাংলাদেশে জ্যোতির্বিজ্ঞান নিয়ে পড়ার সুযোগ আছে কি? না থাকলে আমার কি করা উচিত? ~ ধন্যবাদ
উত্তর: পদার্থ বিজ্ঞান নিয়ে পড়লেই পরে জ্যোতির্বিজ্ঞান পড়তে পারবে।

প্রশ্ন: স্যার,আলোকে তরংগ হিসেবে ধরে নিলে ব্ল্যাক হোল কীভাবে একে আকর্ষণ করে? সিংগুলারিটি এর ঘনত্ব অসীম হয় কীভাবে?সিংগুলারিটির ঘনত্ব অসীম হলে মহাবিশ্ব এর ঘনত্ব ও কী অসীম? মহাবিশ্ব অসীম হলে প্রসারণ হয় কীভাবে? যদি সিংগুলারিটির ঘনত্ব অসীম হয় তাহলে ভরও অসীম নয় কী?ভর অসীম হলে তো স্থান-কাল অসীম ভাবে বেঁকে যাবে!!তাই না?একটু ব্যাখ্যা করো না নানু। প্লিজ… মাহমুদুল আমিন চঁাদপুর।
উত্তর: ধরে নাও ব্ল্যাক হোলের পাশে স্পেস বাঁকা হয়ে যায়, সেদিক দিয়ে যখন আলোটাও বাঁকা ভাবে যায়, তোমার মনে হবে আলোকে আকর্ষণ করেছে। সব ব্ল্যাক হোলের ভেতরেই সিঙ্গুলারিটী আছে কিন্তু তার মানে এই নয় যে ব্ল্যাক হোলের ভর অসীম। সূর্যের মাত্র তিন গুণ ভর হলেই নক্ষত্র ব্ল্যাকহোল হতে পারে।

প্রশ্ন: আসসালামুআলাইকুম স্যার,আপনার একপাশে যদি একটি স্মার্ট ফোন রাখা হয় আর অন্য পাশে যদি কাজী নজরুল ইসলামের “সর্বহারা” গ্রন্থটি রাখা হয়, আপনি কোনটা বেছে নেবেন?(নুসরাত ইসলাম, চট্টগ্রাম)
উত্তর: সর্বহারা বইটা আছে, অন্য কোনো বই রাখতে পারবে যেটা আমি খুঁজছি?

প্রশ্ন: আস্সালামুআলাইকুম স্যার আমার প্রশ্ন হলো, এই মুহূর্তে যদি আপনার সাথে ১৫ বছর বয়সী জাফর ইকবাল এর সাথে দেখা হয় আপনি তাকে কোন ৩ টি উপদেশ দিতেন? আরেকটি প্রশ্ন হলো ,আমি খুব সুন্দর করে গুছিয়ে কথা বলতে চাই আমি কি করতে পারি? নওশীন,চট্টগ্রা
উত্তর: হা হা হা! কী মজার প্রশ্ন! আমি কল্পনা করছি, আমার সাথে ১৫ বছরের আমার দেখা হয়ে গেছে, তরুণ আমি আমার দিকে হা করে তাকিয়ে আছে! আমি তাকে বলব (১) এখনই আরো বেশি করে বই পড়, বড় হয়ে গেলে কিন্তু বেশি সময় পাবে না। (২) তোমার বাবা মায়ের সাথে আরো অনেক বেশি সময় কাটাও, তাদের সাথে রাজ্যের বিষয় নিয়ে গল্প কর। তোমার মা’কে অনেকদিন পাবে, বাবাকে কিন্তু পাবে না। (৩) ১৮ বছর বয়স হওয়ার পর থেকে নিয়মিত রক্ত দাও, কোনো ভয় নেই। তারপর বলব এ ছাড়া তোমার আগের জীবনের বাকী সবকিছু মোটামুটি ঠিকই আছে।

প্রশ্ন: এই খাইছে। আবার ডুব দিয়েছেন।
উত্তর: পরিচয় নেই তো উত্তর নেই!

প্রশ্ন: স্যার, ২০২১ সালে আপনার কয়টা বই প্রকাশিত হতে পারে?? মো: ইনামুল। যশোর থেকে।
উত্তর: এখনো জানি না। লিখছি। শেষ করতে পারব কিনা জানি না!

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার।ভালো আছেন আশা করছি। আপনার লেখার পেছনে,লেখক হয়ে ওঠার পেছনে কার উৎসাহ কাজ করেছে? “রঙিন চশমা” বইটি পড়ে আপনার ভার্সিটি জীবন সম্পর্কে জেনেছি।কিন্তু আপনার ছোটবেলা সম্পর্কে কিছুই জানতে পারিনি।আপনার ছেলেবেলা নিয়ে যদি একটা বই লিখতেন ! প্রশ্ন: আরেকটা অনুরোধ স্যার।আপনি শিশু,কিশোরদের নিয়ে বেশি লেখেন।তরুণ-তরুণীদের নিয়ে লেখেননা অনেক দিন হলো। “আকাশ বাড়িয়ে দাও” কিংবা “বিবর্ণ তুষার” এর মতো উপন্যাস কত কাল যাবৎ দেখিনা।এরকম যদি আবার লিখতেন স্যার।
শেষ আরেকটা অনুরোধ করছি। আপনার অটোগ্রাফ যদি পেতাম!প্লিজ স্যার।ছবি তুলে দিলেও হবে।আমি প্রিন্ট করে নিব।আপনার দীর্ঘায়ু কামনা করছি। মোঃ আহনাফ হাসান আবীর একাদশ শ্রেণি,নটর ডেম কলেজ,ঢাকা ঠিকানাঃ ওসমানপুর,পীরগঞ্জ,রংপুর
উত্তর: আমারও বড়দের জন্য লিখতে খুব ইচ্ছা করে। সময় পাই না, কী করব বল? নিশ্চয়ই লিখব। আমার লেখার পিছনে প্রথমে আমার বাবা মা ভাই বোনের উৎসাহ ছিল। এখন আমার পাঠকদের উৎসাহ কাজ করছ। একটা অটোগ্রাফ ছবি তুলে দিতেও অনেক কিছু করতে হয়, দেখি একটা শর্টকাট পদ্ধতি বের করতে পারি কিনা।

প্রশ্ন: Sir ekta kotha bolbo rag korben na ……..apnake ekhane kono question korle apni onk onk onk din por ( apnar kache may be olpo din ) apni setar ans den……ami onk onk onk besi kosto pai……..ami er ekta solution chai ami apnar sathe protidin kotha bolte chai ….ami ki tar joggo noi……ami apnar sathe protidin kotha bolbo……..Name : Sadia Hossain Sara ….Address : Joar Sahara ,Dhaka..-1229..
উত্তর: তুমি কী ভেবেছ আমি সাথে সাথে উত্তর দিতে চাই না? অবশ্যি দিতে চাই, নানা ঝামেলায় দিতে পারি না। আমি এতো বড় একজন মানুষ নিজের কাজকর্ম ফেলে তোমাদের মত বাচ্চাদের এতো সময় দিচ্ছি, সেটা কি তুমি দেখেছ? তুমি তোমার ই-মেইলটা আমাকে জানাও দেখি, আমি কিছু একটা সমাধান বের করতে পারি কিনা! তুমি মনে করিয়ে দিও আমি সেই মানুষ যে … … ইত্যাদি ইত্যাদি!

প্রশ্ন: স্যার,আমরা কয়েকজন বন্ধু মিলে ঠিক করলাম আপনাকে চিঠি লিখবো।চিঠি লিখা হলো।প্রথমবার লেখার পর ইলা(সে ই লিখেছে) খেয়াল করলো কিছু বানান ভুল,কিছু আ কার, ওকার ভুল।তারপর সে কারেকশন পেন দিয়ে ঠিক করলো। তারপর ভাবলো ,প্রথমবার একটা চিঠি লিখলাম সেটাতে কারেকশান পেন এর দাগ কেমন দেখায় ! তাই সেই চিঠি আবার লেখা হলো।এবার ইতি লিখে ইলা আমাদের সবার নাম লিখলো।তারপর ভাবলো নাম টা যার যার টা সেই লিখবে।যথারীতি চিঠি আবার লিখা হলো – সেটাতে সবাই সবার নাম সই করে দিলো।আমি তখন ওদের সাথে ছিলাম না যেহেতু আমি ঢাকায় হোস্টেলে থেকে পড়ি।তাই আমার নামটা ওরাই লিখে দিলো।তারপর ওদের আমার জন্যে একটু মায়া হলো,সবাই নিজে হাতে নাম লিখলো কিন্তু আমি বাদ পরলাম। তাই সেই চিঠি আবার লেখা হলো।ছুটিতে বাড়ি গিয়ে আমি তাতে নিজের নাম লিখলাম। তারপর,অবশেষে সেই চিঠি পোস্ট করা হলো। অধীর আগ্রহে আমরা অপেক্ষা করতে লাগলাম। বই মেলায় আপনার বই বেরুলো,প্রজেক্ট আকাশলীন বই টা পড়ে আমরা সব বান্ধবীরা একসাথে চমকে উঠলাম।গল্পের যে কথক তিনি বলেছেন তার ছেলে তাকে চিঠি লিখেছে যার মধ্যে মূল চিঠির চেয়ে পুনশ্চ অনেক বেশি। এটা পড়ে চমকে উঠার কারণ আমরা আপনাকে যে চিঠি লিখেছি তার ও পুনশ্চ অনেক বেশি ছিলো….!!!!!! তবে কি….???? আপনি আমাদের চিঠি টা পেয়েছিলেন? নাকি ব্যাপার টা নেহাত কাকতালীয় ??ইলা,আকসা,সুমাইয়া,লিপি,তিথি,তাহসিনা,রেবিন,রোসাত এর পক্ষে- তন্বী (নরসিংদী)
উত্তর: আমি সিলেট থেকে চলে আসার পর আমার চিঠিপত্র পুরোপুরি এলোমেলো হয়ে গেছে। চিঠিপত্রগুলো আমার কাছে সময়মতো আসে না, ঘুরে ফিরে অনেকদিন পরে হাতে এলেও উত্তর দেওয়া হয় না। তোমাদের এতো ঘটনাবহুল একটা চিঠির উত্তর দেওয়া হয়নি, ভেবে খুব খারাপ লাগছে। তবে এখন সেই ঘটনা প্রবাহ জেনে মজা পেয়েছি। চিঠির উত্তর না দিয়ে তোমাদের উপর যে অন্যায় করা হয়েছে সেটার জন্য কোনো একদিন একটা প্রায়শ্চিত্য কোনো একদিন করে ফেলা যাবে, কী বল? অনেক গুলো পুনশ্চ এর ব্যাপারটি ঠিক কীভাবে হয়েছে জানি না। হতে পারে ঠিক সে সময় তোমাদের চিঠিটা আমি পেয়েছিলাম, তাই মনে গেঁথে ছিল।

প্রশ্ন: স‍্যার আদাব। কেমন আছেন???? স‍্যার মহাকাশে কী এলিয়েন আছে???? … … … ও … … … চট্টগ্রাম। (পরিচয় গোপন রাখলে ভালো হয়।)


উত্তর: এই বইটা পড়লে তো মনে হয়, এলিয়েনরা আছে এবং আমদের সৌরজগৎ ঘুরে গেছে। যিনি লিখেছেন তিনি অনেক বড় বিজ্ঞানী এবং দায়িত্বশীল মানুষ!! (তোমরা নিজেদের পরিচয় গোপন রাখতে এত ব্যস্ত কেন?)

প্রশ্ন: EARTH’S MAGNETISM EARTH ER SHAPE A KONO EFFECT FELECHE KI? -MD.READOWANUL ISLAM -SADAR,NOAKHALI
উত্তর: পৃথিবীর আকার নির্ধারিত হয়েছে তার ভর এবং মাধ্যাকর্ষণ বল দিয়ে।

প্রশ্ন: স্যার আমি এই প্রশ্নটা অনেক কে জিজ্ঞেস করেছি কিন্তু কেউ উত্তর দিতে পারে নি|প্রশ্নটা হলো এ বছর কি “একুশে বইমেলা” হবে? জেরিন খান,বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদ পাবলিক কলেজ, পিলখানা, ঢাকা-1205|
উত্তর: এখন পর্যন্ত হওয়ার কথা, ১৮ মার্চ থেকে, তুমুল কাল বোশেখীর মাঝে বিশাল আনন্দে! শেষ মুহূর্তে বন্ধ করে দিলে অন্য ব্যাপার।

প্রশ্ন: Sir here I got something for you. In your ‘question’ section here, If I click right button, then comes an option saying ‘inspection’ which entirely opens that section’s coding. Did you do it on your own? thanks, Sadia from Dhaka.
উত্তর: সব ওয়েবসাইটেই এটা হয়। ঘাবড়ানোর কিছু নেই।

প্রশ্ন: স্যার, আপনি এখন কেমন আছেন? স্যার আপনি কি জানেন আপনার চেহারা যে খুব ভাল? Almost symmetrical. আপনার golden ratio খুব ভাল হওয়ার কথা! *****@gmail.com
উত্তর: ভালো আছি। থ্যাংকু। হা হা হা! আমি জানতাম রোবটেরা সিমেট্রিক এসিমেট্রিক গোল্ডেন রেশিও দেখে চেহারার ভালো মন্দ বের করে। তুমিও কেন এই চেষ্টা করছ?

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম,স্যার।কেমন আছেন?আমরা জানি,সবুজ উদ্ভিদ ছাড়া অন্য কোনো জীব সূর্যের আলো ব্যবহার করে শক্তি উৎপাদন করতে পারে না।কিন্ত মানবদেহের চামড়া তো সূর্যের আলোর উপস্থিতিতে ভিটামিন-ডি উৎপন্ন করতে পারে তাহলে সেটা কী?
তানজিবুল আলম আকিফ ইসলামপুর, জামালপুর, ময়মনসিংহ, বাংলাদেশ, এশিয়া, পৃথিবী, সৌরজগৎ, মিল্কিওয়ে, ইউনিভার্স
উত্তর: এটা তো শক্তি উৎপাদন হল না, এটা একটা রাসায়নিক বিক্রিয়া হল। (তোমার ঠিকানাটা খুবই নিঁখুত)

প্রশ্ন: স্যার সর্বশেষ ময়মনসিংহে কবে এসেছিলেন?? অবন্তি, ময়মনসিংহ
উত্তর: মনে করতে পারছি আ। আমার স্মৃতিশক্তি খুবই খারাপ!

প্রশ্ন: স্যার নতুন কিছু ছবি জুড়ে দিয়েন।। অনন্যা,এিশাল
উত্তর: একটা নূতন ছবি দিয়েছি!

প্রশ্ন: স্যার ১৯৭১ এবং ২০২১ এর ক্যালেন্ডার নাকি হুবুহু একইরকম!!! এটা কি সত্যি?? জাইসা,ময়মনসিংহ
উত্তর: হ্যাঁ। কিন্তু এতো অবাক হবার কী আছে? সপ্তাহে সাত দিন তাই লিপ ইয়ার ছাড়া ক্যালেন্ডার মাত্র সাত রকমের! ঘুরে ফিরে আসতেই পারে।

প্রশ্ন: ১। … … … … কি আপনার ই-মেইল অ্যাড্রেস ? ২।…
উত্তর: পরিচয় নেই তো উত্তর নেই!

প্রশ্ন: আপনার বেশ কটা বই পড়েছি (আমার বন্ধু রাশেদ, টুকুন ছিল, হোমোস্যাপিয়েন্স, রহস্য ময় ব্ল্যাকহোল, টুনটুনি ও ছোটাচ্চু, ইরন, আমি তপু, লিটু, আমার সাইন্টিস মামা, আর…. না আর মনে পড়ছে না… Sorry.) আমার একটি অটোগ্রাফ চাই। Please× 9⁹⁹⁹⁹⁹⁹⁹⁹⁹⁹ (Please গুন (×) 9 to the power 9999999999. অধিকাংশ ব্যক্তিকে অনেক বড় একটা সংখ্যা লিখতে বললে সে ১ এর পরে ০ লাগাতে থাকে… কিন্তু আমি ৯ এর পরে ৯ লাগাতে থাকি……..) আপনি হয়ত অন্যদের মতো বলবেন অটোগ্রাফ তো রেডি থাকে, কিন্তু পাঠাবো কোথায়? আমি আপনাকে সেই ফাঁকি বাজি করতে দেব না! একটু বেশি খাটাবো! কষ্ট করে একটু খাটবেন! কিছু মনে করবেন না!
অটোগ্রাফ টা নিম্নোক্ত ঠিকানায় পাঠান প্লিজ। না না আপনাকে চিঠিতে বা আদিম যুগের পদ্ধতি তে পাঠাতে হবে না! এখন মানুষ মডার্ন হয়েছে, আপনার তৈ কথাই নাই! ফ্যান ফলোয়ারের অভাব নাই! ই-মেইলে পাঠান :-)। একটু বেশিই লিখে ফেললাম…. প্রশ্ন: প্রশ্ন: Sorry…My Email:*****@gmail.com নাম: ফাহিম ফয়সাল ঠিকানা: রাজশাহী শ্রেনী: ৭ম বয়স:১২
উত্তর: ঠিক আছে, পাঠাব। ভুলে গেলে মনে করিয়ে দিও।

প্রশ্ন: স্যার, আমি অনেক চিন্তা করেও এই প্রশ্নটার উত্তর খুঁজে পাই নাই, আপনি যদি একটু বলতেন যে,আমাদের জীবনের উদ্দেশ্য আসলে কি? Farhan khan Gulshan-1 Class 10
উত্তর: এটার তো একটা উত্তর নেই, একেকজনের কাছে উত্তর একেক রকম। কেউ অর্থ আর ক্ষমতার জন্য জীবন দিয়ে দিচ্ছে (ডনাল্ড ট্রাম্প) , কেউ টাকা হাতে পেয়েও সেটাকে তুচ্ছ মনে করে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে (পোলিও টিকা আবিষ্কারক জোনাস সাল্ক)।

প্রশ্ন: কোন ধনাত্মক আধানের বস্তুকে পৃথিবীর সাথে সংযুক্ত করলে পৃথিবী থেকে ইলেকট্রন এসে বস্তুটিকে নিস্তড়িত করে।এই ধারণা কাজে লাগিয়ে আমরা পৃথিবী থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারি না কেন?? (ফাহিমা শারমিন, হলি ক্রস কলেজ ঢাকা)
উত্তর: শুরুতে পজিটিভ চার্জটা পাবে কোথায়?

প্রশ্ন: “stay hungry, stay foolish”. কথাটি দ্বারা আসলে কী বোঝানো হয়েছে? রাফি। রাজশাহী।
উত্তর: স্টিভ জবস এই কথাটি সমাবর্তনে বলে এটাকে জনপ্রিয় করেছিলেন, এর অর্থ হচ্ছে জ্ঞানের জন্য সবসময় ক্ষুধার্ত থেকো, আরো বেশি জানার জন্য বোকা থেকো। আমার ধারনা কথাটা অন্য ভাবেও বলা যেতো!

প্রশ্ন: আমি সাফিন, ঢাকা। “শর্টকাট প্রোগ্রামিং” বইটি নিয়ে অল্প কিছু জানাবেন, প্লিজ?
উত্তর: এই সাইটে দিয়ে দিলাম, দেখে নাও। বাচ্চাদের জন্য প্রোগ্রামিংয়ের বই।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার, আপনি তো অনেক বিষয়েই গল্প লেখেন। ” বডি শেমিং ” নিয়ে একটি গল্প লিখবেন দয়া করে। কিভাবে এর উচিত জবাব দেয়া যায় সেটাও বলে দিবেন। আসলে ছোটবেলা থেকেই এটা আমার সাথে হয়ে আসছে কিন্তু কখনো কোনো জবাব দিতে পারিনি। মোঃ মিলন আহমেদ। খুলনা জিলা স্কুল, খুলনা।
উত্তর: আমি জানতাম না যে বডি শেমিং এর ব্যাপারটা আমাদের দেশের ছেলেমেয়েদের জন্য একটা সমস্যা। শুনে কষ্ট হল। অবশ্যই আমি কিছু একটা লিখব।

প্রশ্ন: একেক বার প্রশ্ন করার সময় একেকটা নাম ঠিকানা ব্যাবহার করব? না মনে অনেকে তো প্রশ্ন করেও উত্তর পায় না তাই হয়তো আপনি একজনের একটা প্রশ্ন ই উত্তর দেন….. না আমি জাস্ট একটা ধারনা করলাম, কিছু মনে করবেন না। আমি একটা প্রশ্ন করে উত্তর দেখে আবার প্রশ্ন করছি। (কৌতুহল!) নাম: বলব না, ঠিকানা: বলব না…… না একটা তো বলাই যায় সেটা হলো বাংলাদেশ!
উত্তর: আমাকে বোকা পেয়ে ইচ্ছে হলে একজন আমাকে ঠকাতেই পারে, কিন্তু যে আমাকে ঠকাবে তার কী কোনো অনন্দ হবে? গর্ব হবে? সত্যি কথা বলতে আমার কাছে যে প্রশ্ন আসে তার অনেকগুলোই আসলে ইন্টারনেটে খুব ভালোভাবে আছে।

প্রশ্ন: স্যার ঈদানীং কিছু কারণে আমার মন খারাপ হচ্ছে।আমি গল্পের বই পড়ি,আমার বাবা-মা বলে গল্পের বই পড়লে নাকি আমি খারাপ হয়ে যাবো,আমার রেজাল্ট খারাপ হবে।সায়েন্স ফিকশন পড়তে আমার ভালো লাগে,কিন্তু আমার একজন মামা বলে সায়েন্স ফিকশনগুলো নাকি সব ধর্মদ্রোহিতা।গান শুনি,আব্বু-আম্মু বলে গান শোনাও নাকি পাপ।আমি কোনো কিছু করতে গেলেই শুধু ধর্ম দিয়ে সবকিছুকে define করে।আমার শখ,ভালো লাগা কোনো কিছুকে তারা পাত্তা দেয় না।Even বইমেলাতেও আমি কোনো বিজ্ঞানের, সায়েন্স ফিকশনের, গল্পের বই কিনতে পারি না।অনেক কষ্ট করে টাকা জমিয়ে একটি লাইব্রেরীর সদস্য হয়ে বই পড়ি।আমি খুব হতাশায় আছি। কী করব? নামঃমাহমুদুল আমিন চঁাদপুর।
উত্তর: যে যাই বলুক, তুমি জেনে রেখো, বইয়ের কোনো বিকল্প নেই। যে তোমাকে যাই বলুক তুমি বই পড়ে যাবে। পৃথিবীতে বই পড়ে কেউ কখনো খারাপ হয়নি, কেউ কখনো নষ্ট হয়নি। সায়েন্স ফিকশনগুলো ধর্মদ্রোহিতা না, গান শোনা পাপ না, তুমি হতাশ হয়ো না। হতাশ হলে সব শেষ। বিজ্ঞানের উপর বিশ্বাস রেখ।

প্রশ্ন: আসসালামু আলাইকুম স্যার, আপনি কেমন আছেন? আমি আপনার অনেক বড় ফ্যান। আমি আপনার অনেক বই পরেছি। আপনার লেখা বইগুলোর এর মত অসাধারণ বই আমি আর কখনো পড়িনি। স্যার, আপনি কি টুনটুনি ও ছোটাচ্চু বই আরও লিখবেন? লিখলে আমাদের মত ছোট পাঠকরা আরও মজা পাবো। ( জারিফ মুশরারাত মায়িশা, ষষ্ঠ শ্রেনি, বগুরা সদর, বগুরা-৫৮০০)
উত্তর: থ্যাঙ্ক ইউ। তোমার দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নাই। এই বছরেও টুন্টুনির একটা বই বের হচ্ছে।

প্রশ্ন: মুহম্মদ জাফর ইকবাল স্যার , আপনাকে অনেক ধন্যবাদ আপনি আমার আগের প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন এবং বলেছেন আমার আগ্রহ জেনে আপনি খুশি হয়েছেন I আপনি আমাকে বলেছিলেন আপনার লেখার থিওরি অফ রিলেটিভিটি বই টা খুজে বের করতে I আমি বইটি অনলাইনে খুজেছি কিন্তু পাইনি I আমি বইটি কিভাবে অনলাইনে পড়তে পারব প্লিজ আমাকে একটু জানাবেন I আমি বইটি অনলাইনে পড়তে চাই I আপনার বই আরো প্রশ্ন আর উত্তর বলেছেন ভর ছাড়াও ভরবেগ থাকতে পারে I কিন্তু সেটা কিভাবে ? আমার একটি প্রশ্ন হল দ্বিমাত্রিক ত্রিমাত্রিক এগুলো দিয়ে কি বুঝায় সেটা আমি জানি না প্লিজ আমাকে একটু বলবেন I স্যার আমি আজকে আপনার সাথে একটা কথা শেয়ার করতে চাই I খুব সাহস করে কথাটি বলছি , হয়তো আমার কথাটি শুনে আপনার হাসি পাবে কিন্তু আমি কি করবো বলুন আমি আপনাকে কথাটি আজকেই বলতে চাই I আমি 2021 এর এসএসসি পরীক্ষার্থী I আমার জীবনের লক্ষ্য আমি বড় হয়ে একজন তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানী হব I… … … … …  আমি আমার জীবনের এই ইচ্ছাটা পূরণ করতে চাই কারণ আপনিই বলেছেন জীবন একটাই I আচ্ছা এখন আমার পরের প্রশ্নটা বলি আমার কম্পিউটারে windows 7 আছে আমি কিভাবে windows 10 সেটআপ করব ? বিস্তারিত বলবেন I আমার নাম : সাদিয়া হোসেন সারা I আমার ঠিকানা জোয়ার সাহারা ঢাকা -1229
উত্তর: অবশ্যই তুমি তোমার স্বপ্নের জন্য কাজ করবে। তবে মনে রেখ, বিখ্যাত হওয়া কিন্তু লটারি পাওয়ার মত। একই রকম কাজ অনেকেই করে কিন্তু বিখ্যাত হয় এক দুইজন। আসলে বিখ্যাত হওয়া থেকে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে জীবনে আনন্দ পাওয়া। আমি তো কখনো নিজে নিজে অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করিনি, সবসময় আমার ছাত্র ছাত্রী না হয় সহকর্মীরা করে দিয়েছে।

প্রশ্ন: আমার প্রশ্নটি আশা করি এড়িয়ে যাবেন না স্যার, একটাই প্রশ্ন আমার ৬মাসের semester কিভাবে ৩ মাসে হয় Diploma students এর জন্য তাহলে আমরা Practically শিখবো আমাদের অটো পাস দিয়া হলো না কারণ আমাদের তাতে Carrier এর ক্ষতি হবে, তাহলে ৩ মাসের Semester এ কি শিখবো আমাদের বইয়ের বিষয় বস্তু বুঝতেই ১ মাস লেগে যায় অনেক ক্লাস হয় না তাহলে শিখবো কি যদি স্যার আমার কথা সত্যি মনে না হয় একটাSemester এর বই কিনে দেখার অনুরোধ থাকবে ৩য় Semester বইগুলো দেখলই বুঝতে পারবেন আশা করি, স্যার আমার প্রশ্নের উত্তর দিবেন মিয়া মোঃ লাবিব ২য় পর্ব, কম্পিউটার, ফরিদপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট বাসাঃপূর্ব খাবাসপুর, ফরিদপুর
উত্তর: এই বছরটা খুব ঝামেলার একটা বছর গিয়েছে। যেহেতু তুমি একা নও সবাই এই ঝামেলার ভেতর দিয়ে গিয়েছে, এবং যাচ্ছে, একটু কষ্ট করে মেনে নাও, আর কী করবে?

প্রশ্ন: শ্রদ্ধাভাজনেষু,আমি সাইকোলজি নিয়ে ভবিষ্যতে পড়তে চাই,কিন্তু আমি সায়েন্স বিভাগের।এবছর ইন্টার পাশ করলাম। ভর্তি-পরীক্ষার তুমুল যুদ্ধের এহেন কঠিন সময়ে চাপের মুখেই সম্ভবত আমার বুদ্ধিসুদ্ধি গুলিয়ে গেছে;নাহলে কোনো সুস্থচিন্তার শিক্ষার্থী এ-সময় দিনরাত সাইকোলজির বই নিয়ে পড়ে থাকতে পারে না।স্যার,এ-বিষয়ে নির্ঝঞ্জাট পড়ার উপায় বাতলে দিতে পারবেন?(আরিফ,চট্টগ্রাম)
উত্তর: যার যেটা পড়ার ইচ্ছা সে সেটা পড়বে, এটাই তো দুনিয়ার নিয়ম। এর মাঝে আমি আর নূতন করে কী বলব বল?

প্রশ্ন: Sir,apnake ageo onek kichu likhechi,proshno korechi.Apni answer dichen.Aaj apnar against – e ekta complain korbo. Apni theory of relativity,quantum mechanics,caculas-koto boi likchen.Kintu ogulete eto kothin gonit ache je ami tar kichui bujhi na.Shobai bole je ogulo boroder jonne lekha.Amra porte parbo na.Tahole amra chotora ki dosh korlam?Amadero to porte iccha kore.Amader proti eta ki obichar hocche na?Please amader jonne bigganer ontoto ekta boi lekhen,jekhane kono gonit thakbe na. (Punoshco:-ektukhani biggan and aro ektukhani biggan pora ache) Bivore class 3,faridpur.
উত্তর: না তোমরা ছোটরা কোনো দোষ করনি, কিন্তু সাধারণত ক্লাশ থ্রীয়ের ছেলেমেয়েরা এই বিষয়গুলো পড়তে শুরু করে না। তুমি শুরু করে দিয়েছ সেটাই হয়েছে সমস্যা। গণিত গুলো বাদ দিয়ে দিয়ে পড়ার চেষ্টা করে দেখেছ কী হয়? গণিত ছাড়া আমার যে দুটি বই আছে, ‘একটুখানি বিজ্ঞান’ এবং ‘আরো একটুখানি বিজ্ঞান’ তুমি সেই দুইটা বইও পড়ে ফেলেছ, এখন আমি তো বিপদে পড়ে গেলাম! এখানে বিজ্ঞানের যে বইগুলো দিয়ে রেখেছি, সেগুলো চেষ্টা করে দেখেছ?

প্রশ্ন: Sir in future can we invented time travel maching. Please take my quastion. I am from BOGURA.
উত্তর: যখন মানুষ ওয়ার্ম হোল নিয়ে ঘাটাঘাটি করতে পারবে, তখন হয়তো দেখা যাবে।

প্রশ্ন: স্যার, ধন্যবাদ আমার প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য একটা প্রশ্ন, আপনি এতো লম্বা সময় ধরে নিখোঁজ থাকেন কেনো? আর, প্রশ্ন পোস্টের পর অনেক সময় কিছু ভুল মনে পরে। প্রশ্নগুলো এডিট করার দরকার হয়। কিন্তু সেই অপশন নেই। সেই অপশন থাকলে ভালো হতো। ধন্যবাদ। রুম্মান জারা, ৭ম শ্রেণি, চাঁদপুর।
উত্তর: অনেক কাজ থাকে তাই সময়ের অভাবে এই সাইটটার ভেতরে ঢোকা হয় না। প্রশ্ন এডিট করতে চাইছ! বুঝতেই পার এটা হচ্ছে খুবই আদিম ওয়েবসাইট, নেহায়েত দরকারী কাজ ছাড়া আর কিছু করা যায় না।

প্রশ্ন: স্যার আপনি এত সুন্দর করে সবসময় হাসেন,দেখতে অনেক ভালো লাগে। আপনি অনেক সুখি তাইনা স্যার? স্যার কিভাবে জীবনে অনেক কষ্ট নিয়ে ও আমি আপনার মত হাসিখুশি থাকতে পারব,এক্টু জানাবেন? নাম বলিনি বলে রাগ করবেন না স্যার।
উত্তর: নাম না বললে আমি মোটেও রাগ হই না। কিন্তু যেহেতু নিয়ম করেছি পরিচয় দিয়ে যোগাযোগ করতে হবে, তাই সেই নিয়মটা মানতে হচ্ছে, উত্তর দিতে পারছি না। সরি।

প্রশ্ন: টুনটুনি ও ছোটাচ্ছু নিয়ে আর না লেখাই মনে হয় ভালো। যতই বেশি লেখা হচ্ছে ততই বিষয়বস্তু পানসে মনে হচ্ছে। মোঃ আরাফাত হোসেন নোয়াখালী
উত্তর: ভাবছি, তোমার মত অনেকেই এটা বলেছে। আবার অনেকে লিখতেও বলছে!

প্রশ্ন: আমার নাম খালিদ হাসান।ক্লাস ৮ এ পড়ি ফরিদপুর জিলা স্কুল এ,ঠিকানা তো বল্লামই।আপনাকে ধন্যবাদ জানাই এতোগুলা সুন্দর বই লেখার জন্য।কয়েকটি বাদে প্রায় সব বই-ই আমার পড়া। টুনটুনি ও ছোটাচ্চু আর লেখেন না কেন, আর কি লিখবেন কখনো?আমার বাসায় শুধু পাঠ্যবই পড়তে বলা হয় রেজাল্ট ভালো করার জন্য(বুক এডিক্টেড)আর লোকেরা ভুল বোঝায় যে বই পড়লে নাকি বখে যাবো,বইয়ে খারাপ কথা লেখা থাকে,আমি কি করবো?
উত্তর: থ্যাঙ্কু। তোমার বাসার সবাইকে বোঝাও মস্তিষ্কটাকে বিকশিত করতে হলে বই পড়তে হয়। বই পড়ে কেউ কখনো বখে যায়নি। বই না পড়ে অনেকে বখে গেছে।

প্রশ্ন: আমি ক্লাস এইটে পড়ি।আপনাকে ধন্যবাদ এতগুলো সুন্দর বই লেখার জন্য।আপনার কয়েকটি বাদে প্রায় সব বই-ই আমার পড়া।আপনার কিশোর উপন্যাসগুলো বেস্ট।টুনটুনি আর ছোটাচ্চু আর লেখেন না কেন?আর বলেছেন যে লিখে বিপদে পড়েছেন,কি বিপদ বলা যাবে?আর কি লিখবেন টুনটুনি ও ছোটাচ্চু?
উত্তর: বিপদটা হল, এখন প্রতিবছর টুনটুনি ও ছোটাচ্চু নিয়ে লিখতে হচ্ছে!

প্রশ্ন: স্যার, আমি ***। ঢাকায় থাকি। আপনি কেমন আছেন? আমি আপনার অনেক বড় ভক্ত। আমি অনেক খুশি হলাম কারণ আপনি আমার পূর্বের প্রশ্নটির উত্তর দিয়েছেন। আমি সত্যি অনেক খুশি হয়েছি♥️। আমি কতটা আনন্দিত তা আমি আপনাকে বুঝিয়ে বলতে পারবোনা। স্যার আপনি আমার একটি প্রশ্নের উত্তর দিন প্লিজ। প্রশ্নটি হলো: লিফটের ভিতরে নেটওয়ার্ক থাকে না কেন ? স্যার আপনার বাসার সবাই কেমন আছে ? স্যার আপনি আমাদের বাসায় অবশ্যই আসবেন। যদি আমি জানি আপনি আসবেন না । তবুও ভদ্রতা করে বললাম। স্যার আমার প্রশ্নের উত্তর প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ তাড়াতাড়ি দিয়ে দিবেন। স্যার আপনার বাসার ঠিকানা চাই?? দয়া করে দিয়ে দেবেন প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ স্যার আপনি যদি এই প্রশ্নটির উত্তর দেন তাহলে আমি যে কতটা খুশি হব তা আপনাকে বলে বোঝাতে পারবো না। স্যার ভালো থাকবেন। সুস্থ থাকবেন। ইতি আপনার বিশাল বড় ভক্ত (স্যার নাম-ঠিকানা দয়া করে গোপন রাখবেন প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ প্লিজ)
উত্তর: প্রশ্নের উত্তর পেয়ে তুমি খুশি হয়েছ দেখে আমিও খুশি হয়েছি। তোমার লিফটের প্রশ্নের উত্তর অর্ধেকটা দেই, বাকীটা তুমি বের কর। লিফটটা যদি কাঠ দিয়ে কিংব প্লাস্টিক দিয়ে তৈরি হতো তাহলে লিফটের ভেতর নেটওয়ার্ক থাকতো। আগেই কেন ধরে নিলে কখনো তোমার বাসায় আসব না, কোনো একদিন তো চলেও আসতে পারি। (তোমার নাম ঠিকানা গোপন রেখেছি, খুশি?)

প্রশ্ন: sir, keu suicide korte chaile taake suicide korte deoya hoi na keno? shobai tokhon boro boro kotha bole, shomoshsha theke naki paliye jete hoi na, problem naki face korte hoi. bujhte parlam sheta. kintu je manushta beche thakar kono mane khuje pachche na, jader jonno beche thakte cheyecilo tara keu nei, shobar shathe bishakto shomporko, shei manushtake keno beche thakte hobe? dorlam manushta koshto buke neye beche thaklo, poralekha shesh kore moner moto kono chakri korlo, kachche dachche ghumachche, kintu she bhishon koste ache. akei ki problem face kora bole? she jodi mara jeto, tobe ei kosto theke mokti peto. shetai ki valo na? cake khub mojar khabar, kintu ami sheta khete kono mane khuje pachchi na, tobu amake sheta khrte hobe, karon sheta valo bole? jar jibon takei shiddhanto nite deyo uchit noi ki? purnata, mirpur, dhaka.
উত্তর: শুধু গণিতে (এবং মাঝে মাঝে কোনো বিজ্ঞানের বিষয়ে) একটি নির্দিষ্ট প্রশ্নের শুধু একটি নির্দিষ্ট উত্তর থাকে। অন্য বিষয়ে একটা প্রশ্নের অনেকগুলো উত্তর হওয়া সম্ভব। ভিন্ন উত্তর কিন্তু প্রত্যেকটাই সত্যি, প্রত্যেকটাই গ্রহণযোগ্য। ঠিক সেভাবে তোমার প্রশ্নের আরেকটা উত্তর দেওয়া যাবে যেটা ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গী থেকে দেখলে পুরোপুরি গ্রহণযোগ্য একটি উত্তর মনে হবে। আমার এই ছেলেমানুষি ওয়েবসাইটে সেগুলো নিয়ে কথা বলার সেরকম সু্যোগ নেই! গত বছর এই বিষয়ের উপর আমি একটা উপন্যাস লিখেছিলাম, বইটার নাম হটলাইন, পেলে পড়ে দেখ।
তবে তোমাকে অন্য একটা বিষয় বলি, বাংলা আমাদের এতো সুন্দর একটা ভাষা, আজকাল কম্পিউটারে বাংলা লেখা এতো সোজা, তোমরা কেন এখনো ইংরেজি অক্ষরে বাংলা লিখ? তুমি জান, তোমার প্রশ্নটার মাঝামাঝি এসে আমি ভেবেছিলাম আর পারি না, ছেড়ে দিই! কেন আমাকে এতো বিপদে ফেল? প্লিজ!

প্রশ্ন: Sir Apnar lika ICT nie lika boi taklr nam ta janaben?
উত্তর: পরিচয় নেই তো উত্তর নেই! সরি।

প্রশ্ন: স্যার আমি কিছুদিন আগে আপনাকে একটা প্রশ্ন করেছিলাম। সাথে আপনার একটা অটোগ্রাফ চেয়েছিলাম।আপনি বলেছিলেন পোস্টকোড সহ পুরো ঠিকানা পাঠাতে।তাই আমি আমার ঠিকানা পাঠিয়েছি।… … … এই ঠিকানায় আমাকে আপনার একটা অটোগ্রাফ পাঠাবেন স্যার? প্লিজ,প্লিজ,প্লিজ?মোঃ আরাফাত হোসেন (ডাক নাম বাবর), বেগমগঞ্জ, নোয়াখালী।
উত্তর: পাঠাচ্ছি। না পেলে মনে করিয়ে দিও।

প্রশ্ন: দুর্বল নিউক্লিয় বলের কাজ কী ? -মোঃ রেদওয়ানুল ইসলাম, নোয়াখালী
উত্তর: গুগলে weak nuclear force লিখে একটা সার্চ দাও, সেটা অনেক ভালো করে বলে দেবে। আমি লিখলে এক লাইনে লিখতে হবে!

প্রশ্ন: Sir, I have question to you and hope that you will give me a deliberate answer of this question. Sir I know that you are one of co-writers of ICT book of class IX-X. My question is why do you,the hon’ble writers, just use MS office to teach student office software? Why don’t you use other type of office software?? Hope, I will get the reply. Md. Muksetur Rahman Dhaka
উত্তর: বইগুলো লেখা হয় সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের জন্য, তাই যেটা সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় সেটা বেছে নেয়া হয়। তার চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কথা হচ্ছে যে কোনো একটা পদ্ধতি জানলেই অন্য যে কোনো একটা পদ্ধতি শিখে ফেলা খুব সহজ।

প্রশ্ন: ০=০, ৫-৫=৪-৪, ৫(১-১)=৪(১-১), ৫=৪ এইটাই ওই সিস্টেম যেটার সাহায্যে আমাদের শিক্ষক ৫=৪ প্রমাণ করেছিল।আর একটা কথা, আমাদের একাদশ দ্বাদশ শ্রেণির গণিতের ইনভার্স ত্রিকোণমিতির অনেকগুলো সূত্র আছে। আমি আবার কিছু মুখস্ত করতে পারি না। অনেক ঘেঁটে উইকিপিডিয়া থেকে একটা লগারিথমিয় সিস্টেম পাই যেটা দিয়ে, একটু বড় হলেও প্রায় সব গাণিতিক সমস্যা সমাধান করা যায়। কিন্তু স্যারেরা ওই অঙ্ক কেটে দেয়। এখন আমি কি করব। যেখানে এত সহজে অঙ্ক করা যায়, তখন এত্ত সূত্র কিভাবে গিলবো? ইমতিয়াজ আহমেদ, পাটুরিয়া।
উত্তর: দুই পাশ থেকে (১-১) কাটা কাটি করার অর্থ দুই পাশে (১-১) বা শুন্য দিয়ে ভাগ দেওয়া। গণিতে শুন্য দিয়ে ভাগ দেওয়া রীতিমত শাস্তিযোগ্য অপরাধ! যে স্যার ছাত্রছাত্রীদের শুন্য দিয়ে ভাগ করতে শেখায় সেই স্যার অংক কেটে দিতেই পারে। মেনে নাও!

প্রশ্ন: হাসিন , ঢাকা । স্যার ২০২১ সালের বইমেলায় আপনার কি কি বই প্রকাশ হবে?
উত্তর: এখনো লিখছি তাই ঠিক বলতে পারব না। বন বালিকা আর একটা টুনটুনির বই লেখা হয়েছে। বাচ্চাদের জন্য একটা কিশোর উপন্যাস আধাআধি লেখা হয়েছে, দেখি শেষ হয় কি না।